Alexa

বিএনপির সংসদে যাওয়ার কারণ জানালেন ফখরুল

বিএনপির সংসদে যাওয়ার কারণ জানালেন ফখরুল

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর / ছবি: বার্তা২৪

সব জল্পনা কল্পনা শেষে সোমবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার দিকে সংসদ ভবনে শপথ নেন বিএনপির নির্বাচিত চারজন প্রার্থী। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী নিজ কার্যালয়ে সংসদ সদস্য হিসেবে (এমপি) তাদের শপথবাক্য পাঠ করান। তবে শপথ নেননি দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শপথ নেওয়া বিএনপির এই চারজন হলেন- বগুড়া-৪ আসনে মোশাররফ হোসেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে মো. আমিনুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে মো. হারুন অর রশীদ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া।

এর আগে গত ২৫ এপ্রিল ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে জাহিদুর রহমান দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে শপথ নিয়েছেন। যদিও পরে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বিএনপির সংসদে যাওয়ার বিষয়ে সোমবার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে একা সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সেখানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তারেক রহমানের নির্দেশেই তারা শপথ নিয়েছেন। কথা বলার যে সীমিত সুযোগ আছে, তার সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহার করতে বিএনপির নির্বাচিতরা সংসদে গেছেন। যা সরকারের বৈধতা দেওয়া নয়।’

তবে তিনি কবে সংসদে যোগ দিচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘অপেক্ষা করুন জানতে পারবেন।’

সংসদ সদস্য হিসবে শপথ নেওয়ার আজকেই শেষ দিন হওয়ায় আপনি সময় চেয়ে স্পিকারের কাছে আবেদন করেছেন কিনা জানতে চাইলে ফখরুল বলেন, ‘আমি তো বললাম সময় আসুক জানতে পারবেন। আমি কী করেছি না করেছি আপনারা সময় হলেই জানতে পারবেন।’

সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নির্বাচনকে বৈধতা দেওয়া কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের বৈধতা দেওয়ার প্রশ্নই উঠে না। আমরা স্পষ্ট করে বলেছি যে, আমাদের কথা বলার সীমিত যে সুযোগ আছে, তার সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহার করতে সংসদে যাচ্ছি। আমরা এই সংসদ বৈধতা দিচ্ছি না। আমরা শুধু ব্যবহার করছি গণতান্ত্রিক স্পেসটুকু। কারণ, প্রথমটি গণতান্ত্রিক চর্চার অংশ হিসেবে এবং দ্বিতীয়টা কৌশলগত কারণে। আমরা দলের সর্বস্তরে নেতা-কর্মী ও বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘পলিটিক্সে আজকে যেটা হবে, কালকে সেটা হবে এমন তো মানে নেই। আমি বলেছি যে, অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন তো করতে হতে পারে, সেটাই পলিটিক্স। আমাদের যেটার প্রয়োজন দলের জন্য, রাজনীতির জন্য, দেশের জন্যে, আমরা সেটাই করছি।’

কোনো চাপে সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্তের পরিবর্তন হয়েছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না কোনো চাপে নয়।’

সরকারের সঙ্গে কোনো ধরনের সমঝোতায় আপনারা সংসদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কি-না এমন প্রশ্নে ফখরুল বলেন, ‘সমঝোতার প্রশ্ন কোথায় দেখলেন আপনারা। আমরা বলছি যে, সংসদের ভেতরে ও বাইরে দুইখানে আমরা খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসা, পুনরায় নির্বাচন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য লড়ে যেতে চাই। সংসদ এমন একটা জায়গা, যেখানে একটা স্পেস আছে টিল-টুডে। যেখানে কিছু কথা বলা যায়। সেই কথা বলার জন্য আমাদের যারা নির্বাচিত তারা শপথ নিয়েছেন।’

বিকেলে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘সরকারের চাপে শপথ গ্রহণ করেছেন এমপিরা।’

এ বিষয়ে সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সেটা শপথ গ্রহণের আগের বক্তব্য ছিল।’

তাহলে কী আপনাদের ওপর কোনো চাপ নেই? জবাবে ফখরুল বলেন, ‘আমরা মহাচাপে আছি। গণতন্ত্রের লেশমাত্র নেই, আমাদের কথা বলতে দেওয়া হয় না। এই চাপ তো আছেই। আমাদের নেত্রী জেলে। এসব সরকারের চাপ নয় কী?’

ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সাংসদ জাহিদুর রহমান দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে শপথ নেওয়ায় তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এখন কি তার বহিষ্কারদেশ প্রত্যাহার করা হবে এমন প্রশ্নে ফখরুল বলেন, ‘সেটা সময় মতো সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

আরও পড়ুন: শপথ নিলেন ফখরুল বাদে বিএনপির বাকিরা

আরও পড়ুন: সংসদ অধিবেশনে যোগ দিলেন বিএনপির ৫ এমপি

আরও পড়ুন: তারেকের নির্দেশেই বিএনপির এমপিরা শপথ নিয়েছেন: ফখরুল

আপনার মতামত লিখুন :