Alexa

ছাত্রদলের নেতৃত্ব ঠিক করতে রুদ্ধদ্বার বৈঠক

ছাত্রদলের নেতৃত্ব ঠিক করতে রুদ্ধদ্বার  বৈঠক

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: ছাত্রদলের নতুন নেতৃত্ব ঠিক করতে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন সংগঠনটির সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) বিকেল ৪টার পর থেকে সন্ধ্যা সোয়া ৬টার মধ্যে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় বলে বিএনপি সূত্রে জানা গেছে।

বৈঠকে সূত্রে জানা গেছে, বৈঠকে সাবেক নেতাদের মধ্যে ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির বিশেষ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েলসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান স্কাইপিতে যুক্ত ছিলেন না বলে জানা গেছে। তবে পরবর্তী বৈঠকে লন্ডন থেকে তিনি সংযুক্ত থাকতে পারেন।

বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে শামসুজ্জামান দুদু বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘আমরা মাগরিবের নামাজের আগেই বৈঠক মুলতবি ঘোষণা করেছি। পহেলা বৈশাখের পরে আমরা আবার বসবো।’

বৈঠকের বিষয়বস্তু জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ছাত্রদলের পরবর্তী নেতৃত্বে কারা আসবেন সেটা বাছাই প্রক্রিয়া কোন পদ্ধতিতে হবে, কীভাবে করলে ভালো হবে আমরা সেটা বের করার চেষ্টা করছি। আমরা ছাত্রদলকে সহযোগিতা করতে চাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘কাউন্সিলের মধ্য দিয়েই নতুন কমিটি গঠন করা হবে। তবে সম্মেলন কখন বা কমিটি গঠন, এসব বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে। নেতৃত্বে কারা আসবেন এ নিয়ে কথা হয়নি। তারাই (ছাত্রদলের নেতারা) নেতৃত্ব ঠিক করবে।’

ছাত্রদলের নতুন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য এগিয়ে রয়েছেন- এজমল হোসেন পাইলট, নাজমুল হাসান, আকরামুল হাসান, আলমগীর হাসান সোহান, কাজী মোক্তার হোসেন, নাহিদুল ইসলাম সুহাদ, আব্দুল ওহাব, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, ইখতিয়ার কবির, মামুন বিল্লাহ, জহিরুল ইসলাম বিপ্লব, আসাদুজ্জামান আসাদ, করিম সরকার, মিয়া মো. রাসেল, বায়েজীদ আরেফিন, মেহবুব মাসুম শান্ত, মফিজুর রহমান আশিক ও নূরুল হুদা বাবু। এছাড়া শীর্ষ পদের জন্য আরজ আলী শান্ত, আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী, মিনহাজুল ইসলাম ভূঁইয়া, আবুল বাশার আলোচনায় রয়েছেন বলে সূত্রে জানা গেছে।

ছাত্রদলের সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘তারেক রহমানের আস্থাভাজন হতে পারবে এমন নেতৃত্ব প্রত্যাশা করি। সে হিসেবে মনে করি, আমি সভাপতি পদের জন্য প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জায়গাটা তৈরি করতে পেরেছি। আমাদের সংগঠনের প্রতিটি নেতাকর্মী কারা ভোগ করেছেন, আমাদের নেত্রী কারাগারে। তাকে বের করে আনার জন্য সাহসী নেতৃত্ব বেরিয়ে আসুক সে প্রত্যাশা করি। যে-ই নেতৃত্বে আসুক না কেনো আমাদের মূল লক্ষ্য দলের জন্য কাজ করা।

উল্লেখ্য, রাজীব আহসানকে সভাপতি, মামুনুর রশিদ মামুনকে সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর ১৫৩ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করে বিএনপি। তবে এই কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার আট মাস আগে ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি ৭৩৬ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। যা এখনও রয়েছে। তিন বছরের জন্য ওই কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সেই হিসেবে এই কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে। কিন্তু প্রায় আড়াই বছরে নতুন কমিটি গঠন করা হয়নি।

আপনার মতামত লিখুন :

রাজনীতি এর আরও খবর