Alexa

খালেদাকে ছোট করতে নোংরা প্রহসন চলছে: নজরুল

খালেদাকে ছোট করতে নোংরা প্রহসন চলছে: নজরুল

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান , ছবি: সংগৃহীত

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘খালেদা জিয়াকে হেয় করতেই এতিমের টাকা মেরে খেয়েছে বলে মিথ্যা বলা হচ্ছে। মিথ্যা বলে তাকে হেয় করার কৌশল নিয়েছে সরকার। তাকে ছোট করতে বাংলাদেশে নোংরা প্রহসন চলছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।’

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় শ্রমিকদলের নেতা মরহুম আবুল কাশেম চৌধুরী, মরহুম শহীদুল ইসলাম চৌধুরী দুলাল, মরহুম মোহাম্মাদ উল্লাহ ভুঁইয়ার স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপির অঙ্গ সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদল এ সভার আয়োজন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘একটা মিথ্যা মামলা, যাতে খালেদা জিয়ার সংশ্লিষ্টতা প্রমাণ করা যায়নি, সেই মামলায় তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। মামলার রায়ে কোথাও বলা নাই যে তিনি এতিমের টাকা চুরি করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এতিমের টাকা তসরুপের কথা বলা হয়েছে। সে টাকা ব্যাংকে জমা আছে এবং সেটা কয়েক গুণ বেড়েছে। ওই টাকা কেউ তসরুপ করেনি। তাই এর জন্য তার সাজা হয়েছে এই তথ্য সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট। যারা এ কথা হলে তারা মিথ্যা কথা বলে। কেনো বলে এই কথা, কারণ খালেদা জিয়াকে হেয় করার জন্য।’ 

তিনি বলেন, কেনো তাকে হেয় করা দরকার? কারণ তার থেকে বড় হওয়ার ক্ষমতা বাংলাদেশের কারো নাই। কিন্তু তাকে ছোট করতে হবে। কিভাবে?

‘তার পা টা কেটে দেন যাতে ছোট হয়ে যায়। এই যে নোংরা রাজনীতি, কৌশল, যে আমি আপনার চেয়ে বড় হওয়ার চেষ্টা করবো না। কিন্তু আপনার পা টা কেটে আপনাকে ছোট করে ফেলবো! এই নোংরা প্রহসন বাংলাদেশে চলছে। আমরা এগুলো দেখতে চাই না। আমরা চাই দেশে গণতান্ত্রিক রাজনীতি বিরাজ করুক।’ 

সরকারের সমালোচনা করে শ্রমিকদলের সাবেক এই নেতা বলেন, আমাদের দেশে এখন গণতান্ত্রিক সরকার নেই। তাই তারা নোংরা কৌশল করবেই। কারণ ভাল কৌশলে তাদের বিজয়ী হওয়ার সামর্থ্য তাদের (আওয়ামী লীগের) নেই। আমরা চ্যালেঞ্জ করতে চাই, খালেদা জিয়াকে জেলে রেখে যদি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন দেওয়া হয় তাহলে এই সরকারের বিজয়ী হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নাই।

খালেদা জিয়ার গৃহকর্মী ফাতেমাকে নিয়ে মিথ্যাচার করা হচ্ছে মন্তব্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘একটি টিভি চ্যানেলে ম্যাডামের সঙ্গে যে মেয়েটি (ফাতেমা) থাকে, স্বেচ্ছায় কারাবরণ করেছে, তার বাবাকে দিয়ে একটি সাক্ষাৎকার প্রচার করেছে। এ চ্যানেলটিকে আমরা চিনি। তাদের প্রতিদিনের খবর দেখলে বুঝা যায়, তারা কাদের জন্য কাজ করে। আমি মহাসচিব (মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে) কে জিজ্ঞেস করেছিলাম যে একটা ব্যাপার শোনা গেলো এটা কি?

মহাসচিব বললেন, একশ ভাগ মিথ্যা একটা রিপোর্ট করা হয়েছে। সম্ভবত বেচারা গরীব মানুষ তাকে ম্যানেজ করে রিপোর্টটা চালানো হয়েছে। মাত্র কয়েকদিন আগে তাকে তার প্রাপ্য টাকা দিয়েছি। যা পাবেন তার চেয়ে বেশি দেওয়া হয়েছে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, শ্রমিক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম খান নাসিম প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :