Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

কোয়ান্টিটি না কোয়ালিটিতে বিশ্বাস করি: তিশা

কোয়ান্টিটি না কোয়ালিটিতে বিশ্বাস করি: তিশা
নুসরাত ইমরোজ তিশা
মাহবুবর রহমান সুমন
বিনোদন
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

শুটিং এর মাঝে লাঞ্চ ব্রেক। শুটিং ইউনিট রাজধানীর ৩০০ ফিট থেকে যাবে উত্তরা ১৪ নম্বর সেক্টর। নিজের গাড়িতে উঠতে যাচ্ছেন সিনেমা ও ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। গাড়ির দরজাও খুলে ফেলেছেন। পেছন থেকে ডাক দিতেই শুনলেন, কি অবস্থা? বললাম ইন্টারভিউ আর ফটোশুট করতে চাই। জবাব আসল- এখন যে মেকআপে আছি তাতে তো ফটোশুট করা যাবে না তবে কথা বলা যাবে।

গাড়িতে বসবে নাকি বাইরে? উত্তর দেওয়ার আগেই বললেন চলেন রাস্তার পাশের ওই বসার জায়গাটায় বসি, বাতাস আছে ঠাণ্ডা মাথায় কথাও বলা যাবে। তারপরই বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমের সঙ্গে শুরু হলো নুসরাত ইমরোজ তিশার ৮ মিনিটের আলাপ।

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: শোনা যাচ্ছে ইফরান খানের পর নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকীর সঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন?
নুসরাত ইমরোজ তিশা: ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’ সিনেমার অন্যতম একজন প্রযোজক আমি। তবে সিনেমাটিতে অভিনয় করছি কিনা সে ব্যাপারটি এখনও নিশ্চিত না। বলতে গেলে অভিনয়ের এখনও কোন প্ল্যান বা পরিকল্পনা যাই বলেন কিছুই হয়নি। তবে যদি কাজ করি সেক্ষেত্রে অবশ্যই ভাল লাগবে। আর প্রযোজক হিসেবে যদি নিজের দায়িত্বটা ভালোভাবে পালন করতে পারি সেক্ষেত্রে আরও ভালো লাগবে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562850647890.jpgবার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: বিদেশে প্রশংসিত ‘শনিবার বিকেল’ দেশে মুক্তিতে এত বাঁধা। কারণটা কি?
তিশা: এই প্রশ্নের উত্তর আমার থেকে সিনেমাটির পরিচালক ও প্রযোজকই ভাল দিতে পারবেন। সিনেমাটির একজন অভিনেত্রী হিসেবে আপনারা যতটুকু জানেন আমিও ঠিক ততটুকুই জানি। আমিও আসলে পরিচালক ও প্রযোজকের দিকে তাকিয়ে আছি সিনেমাটি দেশে কবে মুক্তি পাবে এ ব্যাপারে। তবে একটি বিষয় বলতে পারি সিনেমাটিতে বাংলাদেশকে ছোট করে এমন কোন কিছুই করা হয়নি। কারণ বাংলাদেশকে ছোট করলে আমরাও তো ছোট হয়ে যাব। আর বাংলাদেশের মানুষ হিসেবে নিজের দেশকে অন্যের কাছে বড় করে উপস্থাপন করা ছাড়া দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় এমন বিষয়ে আমরা যুক্ত হবো তার প্রশ্নই আসে না।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562851446553.jpgবার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: বাংলা নাটকের ভবিষ্যৎ কি? টেলিভিশন, ইউটিউব নাকি ওয়েব সিরিজ?
তিশা: আমাদের দেশে আপনি যে ৩টি মাধ্যমের নাম বলেছেন সব মাধ্যমেরই আলাদা আলাদা দর্শক আছে। তাই যে কোন মাধম্যের জন্যই আমাদের নাটকের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল বলে আমি মনে করি। আর টেলিভিশন নাটকের ক্ষেত্রে বিজ্ঞাপনসহ বেশ কিছু বাধ্যবাধকতা থাকে। সে কারণে প্রত্যকটি চ্যানেলের কিন্তু নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল আছে। এখন ওয়েব সিরিজ শুরু হয়েছে সেখানেও ভাল করছে। তাই যখন যে মাধ্যম আসছে সে মাধ্যমই ভাল করছে। টেলিভিশন চ্যানেলগুলো যদি নিজেদের আরও বেশি সমৃদ্ধ করে তাহলে তারাও আরও ভাল করবে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562850669071.jpgবার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: বাংলা নাটকের গল্প, সংলাপ ও ভাষা নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে, আপনি কিভাবে ভাবছেন?
তিশা: আমি আমার নিজের গল্প, সংলাপ কাজ নিয়ে আলোচনা করতে ইচ্ছুক। এ ব্যাপারে কথা বলতে আগ্রহী নই।

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: তৌকীর আহমেদ নাকি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালক হিসেবে কাকে বেশি পছন্দ?
তিশা: আমি দু’জনকেই পছন্দ করি। আর পছন্দ করি বলেই দু’জনের সঙ্গে আমার বেশি কাজ করা। আমি তাদের সঙ্গেই কাজ করি যাদের আমি পছন্দ করি, যাদের কাজ পছন্দ করি। যারা আমাকে দিয়ে ভাল অভিনয় করিয়ে নিতে পারেন ও অভিনয়ের জায়গায় আমার উপর ভরসা করেন। তৌকীর ভাইয়ের কাজ ও গল্প আমার ভাল লাগে সে কারণে তার সঙ্গে আমার কাজ করা। সরয়ারের ক্ষেত্রেও তাই। এখানে কাকে বেশি ভাল লাগে এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া আসলে কঠিন।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562851519588.jpg

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: তিশা অভিনীত প্রায় সব কয়টি সিনেমাই দেশে ও দেশের বাইরে পুরস্কৃত হচ্ছে...
তিশা: তাই নাকি (হাসি)। আসলে এটি হচ্ছে টিম ওয়ার্ক। টিমের সবাই সেভাবে কাজ করে বলেই সফলতা আসছে। এখানে আমার একার কিছুই নেই।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/11/1562850694359.jpg
স্বামী মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সঙ্গে নুসরাত ইমরোজ তিশা

 

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: নতুন সিনেমার খবর বলুন?
তিশা: দীপংকর দীপনের ‘ঢাকা ২০৪০’ সিনেমায় কাজ করছি সেটি জানেনই। এর বাইরে কাজ করলে তো আপনারা আগেই জানবেন।

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম: ঈদের কয়টি নাটকে কাজ করছেন?
তিশা: আমি জানি না। আসলে আমি গুনে কাজ করি না। আমি কোয়ান্টিটি না কোয়ালিটিতে বিশ্বাস করি। কোয়ালিটি থাকলে যে কয়টি কাজ আমার কাছে আসে আমি সেই কয়টিতে কাজ করি, গুনে কাজ করতে পারি না।

আপনার মতামত লিখুন :

চলচ্চিত্রে অনুদান বাড়ছে দ্বিগুণ

চলচ্চিত্রে অনুদান বাড়ছে দ্বিগুণ
‘পিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯’ -এর উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

চলচ্চিত্রে বর্তমানে যে পরিমাণ অনুদান দেওয়া হয় তার থেকে দ্বিগুণ অর্থ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (২২ জুলাই) সন্ধ্যায় রাজধানীর গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তনে ‘ফিল্মস ফর পিস ফাউন্ডেশন’ আয়োজিত দুই দিনব্যাপী ‘পিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯’ -এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, 'চলচ্চিত্রে অনুদানের টাকা আমরা বৃদ্ধি করছি। আমরা এখন যে পরিমাণ অনুদান দেই এই অর্থ বছর থেকে আমরা তার দ্বিগুণ দেব। প্রতি সিনেমার জন্য অনুদানের যে অঙ্ক সেটিও আমরা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যমাত্রা ও নীতিমালা এরই মধ্যে গ্রহণ করেছি।'

Film Festival

বেলুন ও কবুতর উড়িয়ে উৎসবের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী। এসময় তিনি বলেন, ‘একটি ভালো চলচ্চিত্র সমাজে শান্তি বজায় রাখতে এবং মানবিকতার সুরক্ষায় অনবদ্য ভূমিকা রাখতে পারে।'

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে প্রথমবারের মত আয়োজিত এই উৎসব ২৫টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) বিকাল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই উৎসব চলবে। বিনামূল্য যে কেউ এসব চলচ্চিত্র দেখতে পারবেন।

মঙ্গলবার স্বল্পদৈর্ঘ্য ১০টি চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তনে। সোমবার রাত ৯টা পর্যন্ত স্বল্পদৈর্ঘ্য ১৫টি চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়েছে।

সিনেমা হল মালিকদের দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দেবে সরকার

সিনেমা হল মালিকদের দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দেবে সরকার
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

সরকার সিনেমা হল মালিকদের স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (২২ জুলাই) সন্ধ্যায় রাজধানীর গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তনে দুই দিনব্যাপী পিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান। ফিল্মস ফর পিস ফাউন্ডেশন এ ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিভিন্ন প্রেক্ষাপটে চলচ্চিত্রে অনেক সংকট তৈরি হয়েছে। আমি মনে করি আমাদের দেশে যে সংকট চরম পর্যায়ে পৌঁছেছিল, সেখান থেকে ধীরে ধীরে আমরা বের হয়ে এসেছি। বাংলাদেশের অনেক সিনেমা হল বন্ধ হয়েছে বটে, কিন্তু ইতোমধ্যে অনেকগুলো সিনেপ্লেক্স চালু হয়েছে। এবার আরও সিনেপ্লেক্স চালু হতে যাচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যারা সিনেমা হলগুলো বন্ধ করে দিয়েছিলেন, সেগুলো যাতে আধুনিক করতে পারে সেজন্য আমরা সফট লোডের উদ্যোগ গ্রহণ করার ব্যবস্থা করেছি। অর্থাৎ স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদী লোনের ব্যবস্থা করা হবে।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563813162889.jpg

এর আগে ড. হাছান মাহমুদ বেলুন ও কবুতর উড়িয়ে পিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ২০১৯-এর উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ফিল্মস ফর পিস ফাউন্ডেশনের পরিচালক রোকেয়া প্রাচীর, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের পরিচালক শাহীন আনাম, অধ্যাপক সি আর আবরার, চলচ্চিত্র নির্মাতা কাওসার আহমেদ চৌধুরী এবং সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক পারভেজ সিদ্দিকী।

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত এই পিস ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে শান্তির বার্তায় ২৫টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। আগামী মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে ফেস্টিভ্যালটি।

জানা গেছে, গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান মিলনায়তনে মঙ্গলবারও ১০টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে। সোমবার রাত ৯টা পর্যন্ত প্রায় ১৫টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র