Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

‘লালজমিন’ নাটকের ২০০তম মঞ্চায়ন আজ

‘লালজমিন’ নাটকের ২০০তম মঞ্চায়ন আজ
মোমেনা চৌধুরী
বিনোদন ডেস্ক


  • Font increase
  • Font Decrease

মোমেনা চৌধুরীর একক অভিনয়ের নাটক ‘লালজমিন’-এর ২০০তম মঞ্চায়ন হচ্ছে আজ (১৯ মার্চ)। বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্সের উদ্যোগে রাজধানীর বিএটিসি অডিটরিয়ামে সন্ধ্যায় ‘লালজমিন’ নাটকটির ২০০তম মঞ্চায়ন হবে।

শুন্যন রোপার্টরি থিয়েটারের প্রথম প্রযোজনা ‘লালজমিন’ নাটকটি রচনা করেছেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত নাট্যকার মান্নান হীরা। এর নির্দেশনা দিয়েছেন তরুণ প্রতিভাবান নির্দেশক সুদীপ চক্রবর্তী। এই নাটকে অভিনয়গুণে বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেছেন মোমেনা চৌধুরী।

মোমেনা চৌধুরী বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্সে দীর্ঘ ২৫বছর কর্মরত ছিলেন। তাই মোমেনা চৌধুরীর এই বিশাল অর্জনকে উদযাপন করতে বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্স ‘লালজমিন’ নাটকের ২০০তম মঞ্চায়নের উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানা গেছে।

‘লালজমিন’ নাটকের ২০০তম মঞ্চায়নের অনুভূতিতে অভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরী বলেন, “আমার জীবনের অনেক বড় পাওয়া ‘লালজমিন’। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে আমার অভিনীত নাটক ‘লালজমিন’ ২০০তম প্রদর্শনী আমার কাছে অপার্থিব আনন্দের। এজন্য কৃতজ্ঞতা জানাই নাট্যকার মান্নান হীরা, নির্দেশক সুদীপ চক্রবর্তী, মঞ্চায়ন সহযোগিতার জন্য জুলফিকার চঞ্চল, রাজু নভেরা, নীলা, আতিক, জয়, সাকিব, জুয়েল, সানি, মেহেদী, নিথর মাহবুব, মামুন, জিহাদ, সাজিদ, বাসার, মাহবুবকে। যাদের সহযোগিতায় ‘লালজমিন’ ২০০তম প্রদর্শনীর দ্বারপ্রান্তে তাদের প্রতি আমার অনেক অনেক ভালবাসা। ২০০তম মঞ্চায়নের এ আয়োজনে যারা পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছেন, সহযোগিতা করেছেন সবাইকে জানাই রক্তিম শুভেচ্ছা।”

‘লালজমিন’ নাটকটির গল্প মুক্তিযুদ্ধের একটি খণ্ডচিত্রের বয়ান। মহান মুক্তিযুদ্ধে একজন কিশোরীর অংশগ্রহণ, গল্পের অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে যুদ্ধের ভয়াবহতা, মেয়েটির ত্যাগ- সবশেষে স্বাধীনতা অর্জন দর্শকদের এক নতুন অভিজ্ঞতার সম্মুখে দাঁড় করিয়ে দেয় ‘লালজমিন’।

‘লালজমিন’ কিশোরীর রক্তরাঙা অভিজ্ঞতার মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধোত্তর এক নারীর সংগ্রামী জীবনের নাট্য প্রকাশ। ‘লালজমিন’ নাটকের গল্প তেরো পেরিয়ে চৌদ্দ বছর ছুঁই ছুঁই এক কিশোরী কন্যার। কিশোরীর দু’চোখ জুড়ে মানিক বিলের আটক লাল পদ্মের জন্য প্রেম। সে কৈশোরেই শোনে বাবা-মায়ের মধ্যরাতের গুঞ্জন। শুধু দুটি শব্দ কিশোরীর মস্তকে আর মনে জেগে রয়, মুক্তি-স্বাধীনতা। ওই বয়সে কিশোরী এক ছায়ার কাছ থেকে প্রেম পায়। বাবা যুদ্ধে চলে যায়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/19/1552993865619.jpg
মান্নান হীরা ও সুদীপ চক্রবর্তী

 

অগোচরে কিশোরী নানা কৌশলে যুদ্ধে যাওয়ার আয়োজন করে, সশস্ত্র যুদ্ধ। কিন্তু বয়স তাকে অনুমোদন দেয় না। এক পর্যায়ে কিশোরীর সেই ছায়া প্রেম সম্মুখে দাঁড়ায়। সে তার সেনাপতিকে চিনতে পারে। তারপর যুদ্ধযাত্রা। লক্ষ্যে পৌঁছবার আগেই পুরুষ যোদ্ধারা কেউ শহীদ হোন, কেউ নদীর জলে হারিয়ে যান। পাঁচ যুবতীসহ যুদ্ধযাত্রী এই কিশোরীর জীবনে ঘটে নানা অভিজ্ঞতা। চৌদ্দ বছরের কিশোরীর ধবধবে সাদাজমিন যুদ্ধকালীন নয় মাসে রক্তরাঙা হয়ে ওঠে।

‘লালজমিন’ কিশোরীর রক্তরাঙা অভিজ্ঞতার মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধোত্তর এক নারীর সংগ্রামী জীবনের নাট্য প্রকাশ। দেশের বরেণ্য নাট্যাভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরীর প্রাণবন্ত অভিনয় নাটকটি নিমিষেই দর্শকদের আকৃষ্ট করে। চরিত্রানুযায়ী কণ্ঠের সূক্ষ্ম কাজ যেমন দেখিয়েছেন তেমনি নাচ এবং কোরিওগ্রাফিতে নিজেকে মিলিয়ে দিয়েছেন গল্পের বুনুনিতে। নাটকের পোশাক সেট আলো সবই যেন মোমেনা চৌধুরীকে নিয়ে গেছে মুক্তিযুদ্ধের সেই সময়ে। মঞ্চে মোমেনা চৌধুরী যেন হয়ে ওঠেন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম দলিল।

‘লালজমিন’ নাটকের পোশাক পরিকল্পনা করেছেন ওয়াহিদা মল্লিক। সঙ্গীত পরিকল্পনা করেছেন জুলফিকার চঞ্চল ও রামিজ রাজু। সঙ্গীতে কণ্ঠ দিয়েছেন বারী সিদ্দিকী, রামিজ রাজু ও নীলা সাহা। মঞ্চায়নের নেপথ্য কারিগররা হলেন আতিকুল ইসলাম, আতিকুর রহমান, মীর্জা শাকিব, মোসাম্মৎ মমতাজ, জুয়েল মিজি, তানভীর সানি ও নিথর মাহবুব।

অভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরীর অভিনয়ে যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯৮৭ সালে ‘বগুড়া থিয়েটার’-এ যোগদানের মধ্য দিয়ে। দলের একটি নাটকের রিহার্সেল চলাকালীন সে বছরই তার চাকরী হয়ে যায় গাজীপুরের ‘টাঁকশাল’-এ। চাকরিকালীন সেখানে তিনি ‘অবশিষ্ট মঞ্চায়ন পরিষদ’র সাথে যুক্ত হন। সেই দলের হয়ে ‘প্রত্যাশিত প্রলাপ’ নাটকের তিনটি প্রদর্শনীতে অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হয়েছিলেন। এর পরপরই তিনি ‘আরণ্যক’ নাট্যদলের সাথে যুক্ত হন ১৯৯০ সালে। ‘ইবলিশ’ নাটকে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে শুরু হয় মোমেনার আরন্যক যাত্রা। এরপর থেকে আজ অবধি এই দলেরই হয়ে আছেন। ‘আরণ্যক’র হয়ে মোমেনা অভিনয় করেছেন ‘সংক্রান্তি’, ‘ময়ূর সিংহাসন’, ‘এবং বিদ্যাসাগর’, ‘প্রাকৃত জনকথা’ ইত্যাদি নাটকে। তবে তার অভিনয় জীবনের সেরা অর্জনের একটি ‘লালজমিন’।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটম-লে ২০১১ সালের ১৯ মে শূন্যন রেপার্টরি থিয়েটারের প্রথম প্রযোজনা ‘লালজমিন’ নাটকের প্রথম মঞ্চায়ন হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

বাংলাদেশের সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হলেন সানি লিওনি

বাংলাদেশের সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হলেন সানি লিওনি
বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওনি, ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের 'বিক্ষোভ' সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওনি। সিনেমাটিতে একটি আইটেম গানে মুম্বাইয়ের রাহুল দেবের সঙ্গে নাচবেন এই বলিউড অভিনেত্রী। মুম্বাই থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিনেমাটির পরিচালক শামীম আহমেদ রনি।

শামীম আহমেদ রনি বলেন,'আজ বিকালে সানি লিওনির সঙ্গে আমাদের চুক্তি সম্পাদিত হয়েছে। আগামী ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে মুম্বাইয়ে আইটেম গানটির শুটিং হবে। গানটির নৃত্য পরিচালনা করবেন ভারতের বব ও পাবন। সবকিছু ঠিক থাকলে এবারই প্রথম বাংলাদেশের কোনো সিনেমায় দেখা যাবে সানিকে। সেকারণে আমরা বেশ উত্তেজিত।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566237007350.jpg

 

এদিকে এরই মধ্যে সিনেমাটিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। সিনেমাটি প্রযোজনা করবে স্প্ল্যাশ মিডিয়া। স্প্ল্যাশ মিডিয়ার কর্ণধার হলেন পিংকি খান। তিনি শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খানের কন্যা। এই সিনেমা দিয়ে প্রায় দেড় বছর পর আবারও বাংলাদেশি সিনেমাতে দেখা মিলবে শ্রাবন্তীর। তবে তার বিপরীতে কে থাকবেন সেটি এখনো নিশ্চিত নয়।

প্রযোজনা সূত্রে জানা গেছে আগামী ১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় এই সিনেমার মহরত হবে। সেদিন থেকেই সিনেমাটি শুটিংও শুরু হওয়ার কথা আছে।

ইয়াশের বদলে ‌‘জিন’ সিনেমায় সজল

ইয়াশের বদলে ‌‘জিন’ সিনেমায় সজল
ইয়াশ রোহান ও আব্দুন নূর সজল

২৬ আগস্ট থেকে জাজ মাল্টিমিডিয়ার নতুন সিনেমা ‘জিন’র শুটিং শুরু হতে যাচ্ছে। তবে শুটিং শুরুর মাত্র ৭ দিন আগেই বদলে গেল নায়ক। এতে ইয়াশ রোহানের পরিবর্তে সম্প্রতি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা আব্দুন নূর সজল।

বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে সিনেমাটির পরিচালক নাদের চৌধুরী।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566221668605.jpg

এর আগে চলতি বছরের জুন মাসে এক ফেসবুক লাইভে এসে জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আব্দুল আজিজ ঘোষণা দিয়েছিলেন, ‘জিন’ সিনেমার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন জিয়াউল রোশান, পূজা চেরি, পিয়া বিপাশা ও ইয়াশ রোহান।

যদিও জাজের চুক্তিবদ্ধের সেই অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি ইয়াশ রোশানকে। সেসময় জাজের পক্ষে দাবি করা হয়েছিল ইয়াশ শুটিংয়ের জন্য অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারেনি। তবে সেই অনুষ্ঠানের পরে ইয়াশ রোহান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমের এই প্রতিবেদকে জানিয়েছিলেন তিনি এখনো সিনেমাটির জন্য চুক্তিবদ্ধ হননি।

সিনেমার ৭ দিন আগে সজলকে যুক্ত করা প্রসঙ্গে নাদের চৌধুরী বলেন, “হরর ঘরানার সিনেমা ‘জিন’। এতে অভিনয়ের বিষয়ে অনেকের সঙ্গে কথা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত সজলকে আমরা চূড়ান্ত করেছি।”
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566221679131.jpg

জানা গেছে, আগামী ২৬ আগস্ট থেকে মধুমিতা হাউজিংয়ে শুটিং শুরু হবে সিনেমাটির। চলবে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এরপর দেশের বিভিন্ন স্থানে দৃশ্যধারণের কাজ হবে।

‘জিন’ সিনেমার মাধ্যমে দীর্ঘ পাঁচ বছর পর বড় পর্দায় দেখা যাবে সজলকে। সবশেষ ‘রান আউট’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় পা রাখেন সজল।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র