Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডসে সেরা লেডি গাগা

ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডসে সেরা লেডি গাগা
গ্লেন ক্লোজ ও লেডি গাগা
বৃষ্টি শেখ খাদিজা
নিউজরুম এডিটর


  • Font increase
  • Font Decrease

ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডসের ২৪তম আসরে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার ভাগাভাগি করলেন দুই প্রজন্মের দুই তারকা গ্লেন ক্লোজ ও লেডি গাগা। ‘দ্য ওয়াইফ’ ছবির জন্য গোল্ডেন গ্লোব জেতার পর এবার ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস পেলেন গ্লেন। তার কাছে গোল্ডেন গ্লোবে হারলেও ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডসে পুরস্কার জিতলেন গাগা। ‘অ্যা স্টার ইজ বর্ন’ ছবিতে দারুণ অভিনয়ের সুবাদে এই স্বীকৃতি উঠলো তার হাতে।

যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে রবিবার (১৩ জানুয়ারি) এবারের ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণী করা হয়। সেরা মৌলিক গান বিভাগে সেরা হয়েছে ‘অ্যা স্টার ইজ বর্ন’ ছবিতে ৩২ বছর বয়সী গাগার গাওয়া ‘শ্যালো’।

ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস জিতলে অস্কারের দৌড়ে এগিয়ে যাওয়া যায় বলে ধারণা করা হয়ে থাকে। সেই হিসেবে গ্লেন ক্লোজ ও লেডি গাগার মধ্যে এবারের অস্কারে তুমুল লড়াই হতে পারে।

২৪তম ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডসে সেরা চলচ্চিত্রসহ সর্বোচ্চ চারটি পুরস্কার জিতেছে ‘রোমা’। ছবিটির জন্য আলফনসো কুয়ারন সেরা পরিচালক ও সেরা চিত্রগ্রাহক বিভাগে পুরস্কৃত হয়েছেন। সেরা বিদেশি ভাষার ছবি বিভাগের স্বীকৃতিও গেছে তার হাতে।

‘ভাইস’ ছবিতে আমেরিকার সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিক চেনি চরিত্রের সুবাদে সেরা অভিনেতা বিভাগের পুরস্কার জিতেছেন ক্রিশ্চিয়ান বেল। সেরা কমেডি অভিনেতার স্বীকৃতি এসেছে ব্রিটিশ এই তারকার হাতে। সেরা কমেডি অভিনেত্রী বিভাগে পুরস্কার পেয়েছেন আরেক ব্রিটিশ তারকা অলিভিয়া কোলম্যান (দ্য ফেভারিট)। তার ছবিটি সম্মিলিত অভিনয় বিভাগে সেরা হয়েছে।

গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ডসের মতো ক্রিটিকস চয়েসেও মাহেরশালা আলি (গ্রিন বুক) সেরা পার্শ্ব অভিনেতা ও রেজিনা কিং (ইফ বিয়েল স্ট্রিট কুড টক) সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী হয়েছেন।

হলিউড হার্টথ্রব টম ক্রুজের ‘মিশন: ইমপসিবল-ফলআউট’ সেরা অ্যাকশন ছবি নির্বাচিত হয়েছে। গত বছর বক্স অফিসে সাড়া ফেলে দেওয়া ‘ব্ল্যাক প্যান্থার’ ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস বিভাগে সেরার স্বীকৃতি পেয়েছে।

ক্রিটিকস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস বিজয়ী তালিকা
সেরা চলচ্চিত্র: রোমা
সেরা অভিনেত্রী: গ্লেন ক্লোজ (দ্য ওয়াইফ) ও লেডি গাগা (অ্যা স্টার ইজ বর্ন)
সেরা অভিনেতা: ক্রিশ্চিয়ান বেল (ভাইস)
সেরা অভিনেত্রী (কমেডি): অলিভিয়া কোলম্যান (দ্য ফেভারিট)
সেরা অভিনেতা (কমেডি): ক্রিশ্চিয়ান বেল (ভাইস)
সেরা পার্শ্ব অভিনেতা: মাহেরশালা আলি (গ্রিন বুক)
সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী: রেজিনা কিং (ইফ বিয়েল স্ট্রিট কুড টক)
সেরা নবীন অভিনয়শিল্পী: এলসি ফিশার (এইথ গ্রেড)
সেরা সম্মিলিত অভিনয়: দ্য ফেভারিট
সেরা সাই-ফাই/ভৌতিক ছবি: অ্যা কোয়াইট প্লেস
সেরা অ্যাকশন ছবি: মিশন: ইমপসিবল-ফলআউট
সেরা কমেডি ছবি: ক্রেজি রিচ এশিয়ানস
সেরা বিদেশি ভাষার ছবি: রোমা (মেক্সিকো)
সেরা অ্যানিমেটেড ছবি: স্পাইডার-ম্যান: ইন্টু দ্য স্পাইডার-ভার্স
সেরা পরিচালক: আলফনসো কুয়ারন (রোমা)
সেরা মৌলিক সুর: ফার্স্ট ম্যান (জাস্টিন হারউইৎজ)
সেরা মৌলিক গান: শ্যালো (অ্যা স্টার ইজ বর্ন)
সেরা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস: ব্ল্যাক প্যান্থার
সেরা চিত্রগ্রহণ: আলফনসো কুয়ারন (রোমা)
অ্যাডাপ্টেড চিত্রনাট্য: ইফ বিয়েল স্ট্রিট কুড টক (ব্যারি জেনকিন্স)
মৌলিক চিত্রনাট্য: ফার্স্ট রিফর্মড (পল শ্রেডার)

টেলিভিশনে সেরা
সেরা ড্রামা সিরিজ: দ্য আমেরিকানস (এফএক্স)
সেরা অভিনেত্রী (ড্রামা সিরিজ): সান্ড্রা ওহ (কিলিং ইভ)
সেরা অভিনেতা (ড্রামা সিরিজ): ম্যাথু রাইস (দ্য আমেরিকানস)
সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী (ড্রামা সিরিজ): থ্যান্ডি নিউটন (ওয়েস্ট ওয়ার্ল্ড)
সেরা পার্শ্ব অভিনেতা (ড্রামা সিরিজ): নোয়া এমারিচ (দ্য আমেরিকানস)
সেরা কমেডি সিরিজ: দ্য মার্ভেলাস মিসেস মেইসেল
সেরা অভিনেত্রী (কমেডি সিরিজ): র‌্যাচেল ব্রসনাহান (দ্য মার্ভেলাস মিসেস মেইসেল)
সেরা অভিনেতা (কমেডি সিরিজ): বিল হেডার (ব্যারি)
সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী (কমেডি সিরিজ): অ্যালেক্স বোর্স্টেইন (দ্য মার্ভেলাস মিসেস মেইসেল)
সেরা পার্শ্ব অভিনেতা (কমেডি সিরিজ): হেনরি উইঙ্কলার (ব্যারি)
সেরা অভিনেত্রী (টিভি মুভি/মিনি সিরিজ): প্যাট্রিসিয়া আর্কেট (এস্কেপ অ্যাট ড্যানমোরা) ও অ্যামি অ্যাডামস (শার্প অবজেক্টস)
সেরা অভিনেতা (টিভি মুভি/মিনি সিরিজ): ড্যারেন ক্রিস (দ্য অ্যাসাসিনেশন অব জান্নি ভারসাচে: আমেরিকান ক্রাইম স্টোরি)
সেরা পার্শ্ব অভিনেতা (টিভি মুভি/মিনি সিরিজ): বেন হুইশো (অ্যা ভেরি ইংলিশ স্ক্যান্ডাল)
সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী (টিভি মুভি/মিনি সিরিজ): প্যাট্রিসিয়া ক্লার্কসন (শার্প অবজেক্টস)
সেরা টেলিভিশন মুভি: জেসাস ক্রাইস্ট সুপারস্টার লাইভ ইন কনসার্ট

আপনার মতামত লিখুন :

শুটিং ফাঁসানো নিয়ে পরিচালক-নায়িকার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

শুটিং ফাঁসানো নিয়ে পরিচালক-নায়িকার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ
ইউসুফ চৌধুরী ও তাসনিয়া ফারিন

শুটিং ডেট দিয়েও চরিত্র পছন্দ না হওয়ার দোহাই দিয়ে একটি নাটকের অভিনয় থেকে সরে গেছেন তাসনিয়া ফারিন। ছোটপর্দার এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে এমনটাই অভিযোগ তুললেন পরিচালক ইউসুফ চৌধুরী।

ইউসুফ চৌধুরী বলেন, “গত ১৯ ও ২০ জুলাই তাসনিয়া ফারিনের ডেট নেওয়া ছিল আমার ‘বাটার বন’ নাটকের জন্য। প্রায় ১৫ দিন আগে নাটকের গল্পটির সারাংশ তাকে পাঠিয়ে ডেট লক করি। তিনি জানতেন তার চরিত্র কোনটি ছিলো। গল্পের সারাংশের সঙ্গে মিল রেখেই চিত্রনাট্য তৈরি করা হয়। চিত্রনাট্যটি তাকে পাঠানোর পর শুটিংয়ের আগের দিন রাত ২টার সময় আমাকে জানান যে, তিনি এই চরিত্রটি করতে পারবেন না। এমনকি তিনি একজন সহশিল্পীকেও কাজটি না করার জন্য অনুরোধ করেন। সবকিছু মিলিয়ে আমি আসলে বেশ ঝামেলায় পড়ে যাই।’

এদিকে পরিচালকের এমন অভিযোগের পর তাসনিয়া ফারিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘আমাকে পরিচালক মৌখিক যে গল্প বলেছিলেন আমি সেই গল্পের নাটকটির জন্য ডেট দিয়েছিলাম। সেসময় আমাকে পরিচালক বলেছেন যে চিত্রনাট্য লেখা হয়নি সে কারণে আমি দেখতেও চাইনি। শুটিং শুরু হওয়ার ৩-৪ দিন আগেও আমি তার কাছে চিত্রনাট্য চেয়েছি। কিন্তু তিনি শুটিং এর আগের দিন রাত ১১টায় আমাকে সেটি দিয়েছেন। আমি পড়ে দেখলাম আমাকে যে গল্পের চরিত্রের কথা বলা হয়েছিল তার সাথে মিলছে না। আমি তখনই তাকে জানাই সেটি।’

তাসনিয়া ফারিন আরও বলেন, ‘পরিচালক যে শুটিং ফাঁসানোর অভিযোগ করছেন তা ভিত্তিহীন। আমি তার দেওয়া ডেটে অন্য কোন কাজ করিনি। আর আমাকে যে গল্প বলা হয়েছিল সেটা রাখলে শুটিং করার কথাও বলি।’

‘বাটার বন’ নাটকটি রচনা করেছেন সৈয়দ ইকবাল। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন মিশু সাব্বির, শাওন, নুসরাত জান্নাত রুহী, ওয়াহিদ ইকবাল মার্শাল, তুরিন ও আজম খান সহ আরো অনেকে।

সন্তানকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন অর্জুন-গ্যাব্রিয়েলা

সন্তানকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন অর্জুন-গ্যাব্রিয়েলা
মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালের সামনে ছেলের সঙ্গে অর্জুন রামপাল ও গ্যাব্রিয়েলা

মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে গত ১৮ জুলাই পুত্র সন্তানকে স্বাগত জানিয়েছেন অভিনেতা অর্জুন রামপাল ও তার প্রেমিকা গ্যাব্রিয়েলা। আজ (২১ জুলাই) নবজাতককে নিয়ে বাড়ি ফিরলেন এই জুটি।

রোববার সকালে হাসপাতাল থেকে নবজাতককে নিয়ে বের হতে দেখা যায় অর্জুন রামপাল ও তার প্রেমিকাকে। এসময় দু’জনে আলোচিত্রীদের সামনে ছবি তোলার জন্য পোজও দিয়েছেন। তবে মজার বিষয় হলো- ছেলের মুখটি দেখাননি।

গত ১৯ জুলাই ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি শেয়ার করেছিলেন গ্যাব্রিয়েলা। যেখানে দেখা গেছে- ছেলেকে কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন বাবা অর্জুন। এসময়ও সন্তানের মুখ দেখাননি।

১৯৯৮ সালে মডেল মেহের জেসিয়ার সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন অর্জুন রামপাল। কিন্তু গত বছরের ২৭ মে এক যৌথ বিবৃতির মাধ্যমে বিচ্ছেদের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন এই দম্পতি। মাহিকা ও মায়রা নামে দুটি মেয়ে রয়েছে তাদের।

স্ত্রী মেহেরের সঙ্গে বিচ্ছেদের পরই গ্যাব্রিয়েলার সঙ্গে বলিউডের এই অভিনেতার প্রেমের সম্পর্কের কথা সামনে আসে।

গ্যাব্রিয়েলা দক্ষিণ আফ্রিকার সুপার মডেল। বলিউডের একটি সৌন্দর্য প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

এফএইচএমের ‘১০০ সেক্সিয়েস্ট উইম্যান ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’ হিসেবেও তার নাম ছিল। ‘মিস আইপিএল বলিউড’ প্রতিযোগিতায় আইপিএলে ডেকান চার্জার্স দলের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন তিনি। এছাড়া একাধিক ছবি ও মিউজিক ভিডিওতে দেখা গিয়েছে তাকে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র