Alexa

তফসিল ঘোষণা পেছানোর দাবি নিয়ে ইসিতে ঐক্যফ্রন্ট

তফসিল ঘোষণা পেছানোর দাবি নিয়ে ইসিতে ঐক্যফ্রন্ট

নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক /ছবি: বার্তা২৪

জাতীয় নির্বাচন নিয়ে সংলাপের মাধ্যমে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর পূর্বে তফসিল ঘোষণা না করার দাবি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে বৈঠকে বসেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

সোমবার (৫ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ৩টায় আ স ম আব্দুর রবের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সাক্ষা করতে ইসিতে পৌঁছেছেন।

প্রতিনিধি দলে আরও রয়েছেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মোহাম্মদ মনসুর, নাগরিকৈ ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, জেএসডির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন, বিএনপি’র সহ-সভাপতি বরকত উল্লাহ বুলু, বিএনপি নেতা নঈম জাহাঙ্গীর, শাইরুল কবির প্রমুখ।

বৈঠকে কমিশনের পক্ষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, বেগম কবিতা খানম, অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদত হোসেন চৌধুরী ও নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দিন আহমেদ উপস্থিত আছেন।

বৈঠকের বিষয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘এখনই তফসিল ঘোষণা না করতে বলব কমিশনকে। তফসিল আরো পেছানোর দাবি করব।’

সংলাপের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হওয়ার পরই তফসিল ঘোষণা করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সংলাপে আমাদের দাবি হল সংসদ ভেঙে দেওয়া। ফলে সংলাপের সিদ্ধান্ত আসার পরেই তারা (ইসি) তফসিল ঘোষাণা করবে। সেটা যদি ৭ তারিখে হয় তাহলে ৮ তারিখ তফসিল ঘোষণা করবে।’

এর আগে গত ৩ নভেম্বর ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম পথিকের নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল ইসিতে আসে। এ সময় ইসির কাছে তারা দাবি করেন, সংলাপ শেষ না হওয়া পর্যন্ত যেন একাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা না হয়।

এমতাবস্থায় গতকাল রোববার একাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ৮ নভেম্বর ঘোষণা করা হবে বলে কমিশনের ৩৯তম সভায় সিদ্ধান্ত হয়।

আপনার মতামত লিখুন :