Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

এন্ট্রি লেভেল ফোনে নতুন অভিজ্ঞতা দিতে নোকিয়া ১ প্লাস

এন্ট্রি লেভেল ফোনে নতুন অভিজ্ঞতা দিতে নোকিয়া ১ প্লাস
ছবিঃ সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪ডটকম


  • Font increase
  • Font Decrease

এইচএমডি গ্লোবাল  বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে এলো অ্যান্ড্রয়েড (গো সংস্করণ) নকিয়া ১ প্লাস । নকিয়া ১ প্লাস এন্ট্রি লেভেলের  গ্লোবাল অ্যান্ড্রয়েড ৯ (গো সংস্করণ) স্মার্টফোনগুলির মধ্যে অন্যতম, যাতে থাকছে একটি বড় স্ক্রীনসহ উচ্চমান সম্পন্ন ডিজাইন ও সলিড ইমেজিং। ব্যবহারকারীরা এখন তাদের প্রিয় অ্যাপ্লিকেশন, গেমসহ সর্বশেষ অ্যান্ড্রয়েড (গো সংস্করণ) বৈশিষ্ট্যসমূহ- যেমন গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট গো উপভোগ করতে পারবেন।

৬৯৯৯ টাকার অবিশাস্য সাশ্রয়ী মূল্যের এই ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে লাল নীল এবং কালো এই তিনটি রঙে। বড় ডিসপ্লে, সর্বশেষ এন্ড্রয়েড এবং সর্বাধুনিক ডিসাইন এর সমন্বয়ে ব্যতিক্রমী মান উপভোগ করার সুযোগ করে দিবে নকিয়ার নতুন এই ফোনটি

নকিয়া ১ প্লাসের ৫.৪৫ আইপিএস ১৮:৯ ফুল স্ক্রীন ডিসপ্লেতে গ্রাহকদের ওয়েব ব্রাউজিং, পছন্দের কন্টেন্ট স্ট্রিমিং এবং গেইমিং অভিজ্ঞতাকে আরও অনবদ্য করে তুলবে। নকিয়া ১ প্লাস এ অটো ফোকাস রিয়ার ক্যামেরা এবং নতুন ফ্রন্ট ক্যামেরা টির সাহায্যে তোলা যাবে দুর্দান্ত ডিটেলস এর ছবি যা গ্রাহকদের সেলফি তোলার অভিজ্ঞতাতে নতুন আঙ্গিকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করবে। নকিয়া ১ প্লাসে থাকছে ৮ মেগাপিক্সেল অটো ফোকাস রেয়ার ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশ এবং ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা যা গল্পধারণ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার গ্রাহকদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে সক্ষম ।

এছাডাও গ্রাহকরা পাবেন গুগল ফটোস এর আনলিমিটেড স্টোরেজ ব্যবহারের সুযোগ যার মাধম্যে বিনামূল্যে যত খুশি তত ছবি এবং ভিডিও সংরক্ষণ করতে পারবেন। অ্যান্ড্রয়েডে ৯ পাই ( গো সংস্করণ) অ্যাপ্লিকেশন দ্রুত চালানো এবং কম ডেটা খরচের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। গ্রাহকরা যেকোনো তথ্য অনুসন্ধানের সহজতার জন্য এন্ড্রয়েড এর অপটিমাইজড এপ্লিকেশন ব্যবহারে গুগল প্লে স্টোরের সম্পূর্ণ এক্সেস পাবেন। নকিয়া ১ প্লাস সুরক্ষিত এবং আপ-টু-ডেট অঙ্গীকার নিয়ে এসেছে যাতে থাকছে না কোন ব্লোটওয়্যার, স্কিনস বা ইউআই পরিবর্তন এবং অপ্রয়োজনীয় প্রি-ইনস্টল হওয়া অ্যাপ্লিকেশন বা হিডেন প্রসেস, যা ব্যাটারির ক্ষমতা বিগ্নিত করে। নকিয়া ১ প্লাস ইউজার দের তথ্য নিরাপদ রাখার লক্ষ্যে ডেটা ব্যবহারের ট্র্যাকিং এবং পর্যবেক্ষণের জন্য যাচাইযোগ্য বুট এবং অ্যাক্সেসযোগ্য ড্যাশবোর্ডের মতো শীর্ষ-অফ-লাইন সুরক্ষা ফিচারগুলো নিয়ে এসেছে ।

আপনার মতামত লিখুন :

নিজেকে বুড়ো বানাতে গিয়ে খোয়াতে পারেন ফেসবুক আইডি

নিজেকে বুড়ো বানাতে গিয়ে খোয়াতে পারেন ফেসবুক আইডি
ফেসঅ্যাপের ইন্টারফেস

কয়েকদিন থেকেই অ্যাপ্স ব্যবহার করে বুড়ো বয়সে নিজেকে কেমন দেখাবে তা বের করার ট্রেন্ড চলছে। আর সেসব ছবি ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ব্যাপক সারা ফেলা অ্যাপ্সটি অল্প সময়ের মধ্যেই ব্যবহারকারীদের নজরে চলে এসেছে। আসবে না-ই বা কেন? কে না চায় নিজের ভবিষ্যৎ আগাম দেখতে?

কিন্তু নিজের বিনোদনের জন্য যে কাজ করে যাচ্ছেন তা কি আসলেই আপনার জন্য নিরাপদ? একবার কি ভেবে দেখেছেন এর মাধ্যমে নিজেই নিজের তথ্য অন্যের হাতে তুলে দিচ্ছেন!

মনে হতে পারে একটি অ্যাপ্স কিভাবে তথ্য কিভাবে হাতিয়ে নেবে? একটু খেয়াল করলেই এর জবাব খুঁজে পাবেন। এসব অ্যাপ্স ব্যবহার করতে হলে প্রায় সময় বিভিন্ন ব্যক্তিগত জিনিসের একসেস দিতে হয়। ছবি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে অ্যাপ্সগুলো আপনার গ্যালারির একসেস চায়। আর এভাবেই এসব অ্যাপ্স আপনার গ্যালারিতে কী কী আছে সব জেনে নিতে পারে।

এর আগেও বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অ্যাপ্স ভাইরাল হয়েছে। যেমন নিজেকে দেখতে কোন নায়ক বা নায়িকার মতো দেখতে কিংবা ছেলে না হয়ে মেয়ে হলে কেমন দেখাত ইত্যাদি। এসব নিয়েও একসময় কম মাতামাতি হয়নি। কিন্তু লক্ষ করলে দেখা যায়, যখনই এমন কোনো অ্যাপ্স ভাইরাল হয় তার পরপরই অনেকের আইডি হারিয়ে যেতে থাকে। সাম্প্রতিক সময়ে অনেক আইডি ডিজেবল কিংবা ফেসবুক কর্তৃক সাময়িক নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হয়েছে।

তাই বলে কি এসব অ্যাপ্স ব্যবহার করব না? হ্যাঁ, করবেন। মানুষের জীবনে বিনোদনের দরকার আছে। তবে বিনোদন যেন দুশ্চিন্তার কারণ না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকা জরুরি।

কিভাবে নিজেকে নিরাপদ রাখা যায়?

এসব অ্যাপ্সের কবল থেকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে ব্যবহার শেষে অ্যাপ্সটি আনইন্সটল করে দিতে পারেন। অন্তত ফোর্স স্টপ করে রাখতে পারেন যেন সেটি আপনার অগোচরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার কোনো তথ্য হাতিয়ে নিতে না পারে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/16/1563263095036.jpg
সেটিংস এন্ড প্রাইভেসি সেকশনে থাকা অ্যাপ্স অপশন থেকে নির্দিষ্ট অ্যাপস রিমুভ করা যায় ◢

 

আর যেসব অ্যাপ্সের ক্ষেত্রে ফেসবুকের কানেকশন দরকার হয় সেসব ব্যবহারের পরে ফেসবুকের সেটিংস এন্ড প্রাইভেসি সেকশনে থাকা অ্যাপ্স অপশন থেকে নির্দিষ্ট অ্যাপ্সটি রিমুভ করে দিতে পারেন। এ সাবধানতা অবলম্বনের ফলে অ্যাপ্সটি পরবর্তী সময়ে আপনার কোনো তথ্য হাতিয়ে নিতে পারবে না।

নিয়ম মেনে সচেতনতার সাথে প্রযুক্তির ব্যবহার করলে এটি আপনার জন্য অকল্যাণ নয়, বরং কল্যাণই বয়ে আনবে।

ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা নিয়ে যত আশঙ্কা

ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা নিয়ে যত আশঙ্কা
ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা 'লিব্রা' ছবি: সংগৃহীত

ফেসবুকের বহুল প্রতীক্ষিত ডিজিটাল ক্রিপ্টোকারেন্সি লিব্রার ঘোষণার পর থেকেই গ্রাহকদের প্রাইভেসি নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন উঠেছে। অন্যদিকে বিভিন্ন দেশের নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর জন্য বড় বাধা হয়ে দাঁড়াবার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

সোমবার (১৫ জুলাই) যুক্তরাষ্ট্রের কোষাধ্যক্ষের সাধারণ সম্পাদক স্টিভেন ম্যানিউচেন ফেসবুকের ডিজিটাল মুদ্রা দিয়ে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের অপরাধ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করে এর বিরোধিতা করেন।

ম্যানিউচেন সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, এই ডিজিটাল মুদ্রা দিয়ে অর্থ পাচার এবং জঙ্গি তৎপরতার অর্থায়নে ব্যবহৃত হতে পারে। যা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য একটি বড় হুমকি হয়ে দাঁড়াবে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকও ফেসবুকের এই ডিজিটাল কারেন্সি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

লিব্রার তত্ত্বাবধানে থাকা ডেভিড মার্কাস বলেন, সিনেট ব্যাংকিং কমিটির কাছ থেকে অনুমতি না পাওয়া পর্যন্ত ফেসবুক তাদের ডিজিটাল মুদ্রার কাজ শুরু করবে না।

ম্যানিউচেন বলে, ফেসবুককে লিব্রার কার্যক্রম শুরু করতে হলে আর্থিক নিয়ন্ত্রকদের কাছে গ্রাহকদের সর্বোচ্চ গোপনীয়তা রক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। তবে লিব্রার জন্য রেগুলেটরি কমিশনের কী রকম বিধি-নিষেধ থাকতে পারে এবিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

তিনি বলেন, ‘ক্রিপ্টোকারন্সি দিয়ে সাইবার অপরাধ, কর ফাঁকি, চাঁদাবাজি, মাদকজাতদ্রব্য কেনা এবং মানব পাচারের মতো কোটি কোটি ডলারের অবৈধ কার্যকলাপ সংগঠিত হতে পারে। যা কোনোভাবেই আমাদের কাম্য নয়।’

গত সপ্তাহে, ডোনাল্ড ট্রাম্প একটি টুইট পোস্টে লেখেন তিনি ক্রিপ্টোকারেন্সির ভক্ত নন এবং এজন্য ফেসবুককে ব্যাকিং লাইসেন্স গ্রহণ করতে হবে।
ফেডারেল রিজার্ভের প্রধান জেরোম পাওয়েল গত সপ্তাহে বলেছিলেন যে,  এই ক্রিপ্টোকারেন্সি বিভিন্ন মহলে গুরুতর উদ্বেগ এবং উৎকণ্ঠার জন্ম দিয়েছে।

লিব্রা কি
ফেসবুকের নিজস্ব গ্লোবাল ডিজিটাল কারেন্সির লিব্রা। যা লিব্রা অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক পরিচালনা করা হবে। এছাড়া ‘ক্যালিব্রা’ নামের একটি সাবসিডিয়ারি চালু করেছে, যা ডিজিটাল ওয়ালেট হিসেবে কাজ করবে। যেখানে ব্যবহারকারীর ভার্চুয়াল মুদ্রা সংরক্ষণ, আদান-প্রদান ও খরচ করার সুবিধা থাকবে। ২০২০ সালের প্রথমার্ধেই নতুন এ মুদ্রা বাজারে চালু করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছিল ফেসবুক।

সূত্র: বিবিসি

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র