Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

এনবিআরের কাছে প্রযুক্তিখাত সংশ্লিষ্টদের বাজেট প্রস্তাব

এনবিআরের কাছে  প্রযুক্তিখাত সংশ্লিষ্টদের বাজেট প্রস্তাব
ছবিঃ সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪ডটকম


  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছে  তথ্যপ্রযুক্তি খাতে  কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সহ খাত সংশ্লিষ্ট  নানা প্রস্তাবনা দিয়েছে  বেসিসসহ সংশ্লিষ্ট খাতের সংগঠনগুলো।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) এনবিআর এবং তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠনের প্রতিনিধিরা একটি প্রাক বাজেট  আলোচনা করেছে। সেখানেই এই প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

সভার সভাপতিত্ব করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

বেসিসের পক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে বাজেট প্রস্তাব পেশ করেন বেসিসের সহ-সভাপতি মুশফিকুর রহমান। প্রস্তাবনা পেশ করার শুরুতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে, ভ্যাট অটোমেশন প্রকল্পে দেশীয় ১১টি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য ধন্যবাদ জানান।

বাজেট প্রস্তাবে বেসিসের সহ-সভাপতি বলেন, আইটি ও আইটিইএস-এর জন্য ২০২৪ সাল পর্যন্ত কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ রয়েছে। কিন্তু জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছ থেকে এই কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সনদ পেতে পেতে ২-৩ মাস সময় লেগে যায়। এতে বেশ ঝামেলায় পোহাতে হয়।

এজন্য বেসিস থেকে একেবারে আইটি ও আইটিইএস প্রতিষ্ঠানকে ২০২৪ পর্যন্ত কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সনদ দেয়ার প্রস্তাব করা হয়। সেক্ষেত্রে প্রতিবছর আইটি ও আইটিইএস প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যক্রম সচল রয়েছে কিনা তা যাচাই করে বেসিস প্রত্যয়নপত্র প্রদান করবে।

অগ্রসরমান তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নিত্যনতুন সেবা ও নতুন নতুন উদ্ভাবন যুক্ত হচ্ছে। এজন্য তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সেবার পরিসর বাড়ছে। এজন্যে আইটিএস এর নতুন খাতসমূহ যেমন, সিস্টেম ইন্ট্রিগ্রেশন, প্লাটফর্ম অ্যাজ এ সার্ভিস, সফটওয়্যার অ্যাজ এ সার্ভিস, আইটি ট্রেনিং, এএমসি, ইনফরমেশন সিস্টেম, ইত্যাদি খাত আইটিএসের সংজ্ঞায় যুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়। পাশাপাশি সফটওয়্যার ইম্পোর্ট দো ই-ডেলিভারির জন্য নতুন এইচএস কোড প্রবর্তনের জন্য বেসিস থেকে প্রস্তাব করা হয়।

বেসিস থেকে প্রস্তাব করা হয়, ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে ব্যাংক এবং পেমেন্ট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে পুরো পেমেন্ট সিস্টেমকে আরও সহজ ও রেগুলার মনিটরিং এর আওতায় আনতে হবে। এতে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব (বাৎসরিক প্রায় ৩০০-৪০০ কোটি টাকা) আয় করতে পারবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান বেসিসের প্রস্তাবনাগুলো শোনেন। আলোচনা শুরুতে, ভ্যাট অটোমেশন প্রকল্পকে আরও প্রতিষ্ঠান যাতে অংশ নেয় সেজন্য সেসব প্রতিষ্ঠানকে উৎসাহিত করতে বেসিসকে অনুরোধ করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান।

বেসিসের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, আইটি ও আইটিইএসের এক বছর মেয়াদকালীন কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সনদ ৩ বছর মেয়াদকাল পর্যন্ত বর্ধিত করা হবে।

পাশাপাশি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, বেসিস কর্তৃক সুপারিশকৃত আইটিইএসের নতুন সংজ্ঞা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অনুমোদনক্রমে সংযুক্ত করা হবে বলে জানান। বেসিস কর্তৃক প্রস্তাবিত ডিজিটাল মার্কেটিং পেম্যান্ট পলিসি মূল্যায়নক্রমে অতিস্বত্বর প্রণয়ন করা হবে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

পিএসসি, বিটিভি ও সোনালী ব্যাংকের সেবা আদান প্রদানে চুক্তি স্বাক্ষর

পিএসসি, বিটিভি ও সোনালী ব্যাংকের সেবা আদান প্রদানে চুক্তি  স্বাক্ষর
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে মোস্তাফা জব্বার ও সজিব ওয়াজেদ জয়, ছবি: সংগৃহীত

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অধীনে ডাক অধিদফতর, টেলিটক এবং বাংলাদেশ কমিউনিকেশনস স্যাটেলাইট কোম্পানি লি. এর সঙ্গে সেবা আদান-প্রদানের বিষয়ে সোনালী ব্যাংক লি. বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাথে পৃথক তিনটি স্মারক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বাংলাদেশ সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের উপস্থিতিতে এ চুক্তি স্বাক্ষর সম্পন্ন হয়।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব জনাব অশোক কুমার বিশ্বাস, পিএসসির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হারুন-অর-রশিদ উপস্থিত ছিলেন।

ডাক অধিদফতর ও সোনালী ব্যাংকের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী ডাক বিভাগ প্রত্যন্ত অঞ্চলে সুবিধা বঞ্চিত মানুষের মধ্যে ডিজিটাল ব্যাংকিং ব্যবস্থা প্রবর্তনের ব্যবস্থা করবে। এর ফলে সাধারণ মানুষ ব্যাংক হিসাব খোলার সুযোগ লাভ করবে। এছাড়াও ক্যাশলেস সোসাইটি বিনির্মাণে ডাক বিভাগ কাজ করবে। চুক্তিতে ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক এসএস ভদ্র এবং সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে স্বাক্ষর করেন।

টেলিটক ও পিএসসির মধ্যে চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশনের নিয়োগ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে অনলাইনে আবেদন গ্রহণ, স্বয়ংক্রিয় প্রক্রিয়ায় এডমিট কার্ড বিতরণ, সিট প্ল্যানিং, হাজিরা সিট তৈরি এবং অনলাইনে ফলাফল প্রকাশ ইত্যাদি কার্যক্রম টেলিটকের মাধ্যমে পরিচালিত হবে। টেলিটক এমডি মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন এবং পিএসসির সচিব বেগম ও. এন সিদ্দিকা খানম স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং বাংলাদেশ কমিউনিকেশনস স্যাটেলাইট কোম্পানি লি. এর মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী বিটিভি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে সম্প্রচার কার্যক্রম বাণিজ্যিকভাবে শুরু করবে। চুক্তিতে বিটিভির মহাপরিচালক এসএম হারুন-অর-রশিদ এবং বাংলাদেশ কমিউনিকেশনস স্যাটেলাইট কোম্পানি লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচারক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহরিয়ার আহমেদ চৌধুরী নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে স্বাক্ষর করেন।

বুধবার ‘পরিচয়’ গেটওয়ে উদ্বোধন করবেন জয়

বুধবার ‘পরিচয়’ গেটওয়ে উদ্বোধন করবেন জয়
ছবি: সংগৃহীত

সহজে এবং দ্রুত জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাইয়ের গেটওয়ে ‘porichoy.gov.bd’ উদ্বোধন হবে বুধবার (১৭ জুলাই)। এদিন বিকেল ৩টায় তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই সেবা সার্ভিসের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

‘পরিচয়’ হচ্ছে একটি গেটওয়ে সার্ভার, যা নির্বাচন কমিশনের জাতীয় ডাটাবেজের সাথে সংযুক্ত। এটি এমন একটি অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং যা সরকারি, বেসরকারি বা ব্যক্তিগত যে কোনো সংস্থার গ্রাহকদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) যাচাই করে নিমিষেই সেবা দিতে পারবে। এনআইডি যাচাই করার জন্য এখন থেকে আর আগের মতো ৩-৫ কর্মদিবস অপেক্ষা করতে হবে না।

বর্তমান প্রক্রিয়ায়, নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে লগইন করে সংস্থাগুলো জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য ম্যানুয়ালি যাচাই করে থাকে। আবার অনেক সংস্থা এনআইডি যাচাইকরণও করে না, কারণ নির্বাচন কমিশনের এনআইডি ডাটাবেজের অ্যাক্সেস তাদের নেই। যা গ্রাহকদের জাল বা সঠিক আইডি যাচাই করার জন্য অনুমতি দেয়। কিন্তু ‘পরিচয় গেটওয়ে’ ব্যবহার করলে জাতীয় আইডি যাচাই করার জন্য কোন মানুষের প্রয়োজন নেই। যেকোনো প্রতিষ্ঠান সফটওয়্যারের মাধ্যমে ‘পরিচয় গেটওয়ে’ সার্ভারের সাথে সংযোগ স্থাপন করলে জাতীয় আইডি সনাক্তের ফলাফল সাথে সাথেই পাওয়া যাবে।

এর ফলে যারা এখন ব্যাংক একাউন্ট খোলা, ডিজিটাল ওয়ালেট একাউন্ট খোলা বা যে কাজগুলোতে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধনের প্রয়োজন হয় তারা খুব উপকৃত হবে। তাদের জন্য অনেক সহজ ও সময় সাশ্রয় হবে।

‘পরিচয় গেটওয়ে’ গোপনীয়তা ও নিরাপত্তা বজায় রাখবে এবং জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাইয়ের খরচ কমিয়ে কাজকে দ্রুত করবে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র