Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

৫ এলজি অ্যাম্বাসেডর পেলেন ৪ লাখ টাকা

৫ এলজি অ্যাম্বাসেডর পেলেন ৪ লাখ টাকা
বৃত্তিপ্রাপ্তদের সাথে এলজি ইলেক্ট্রনিক বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডি কে সন ও সংশ্লিষ্টরা
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

দেশের বিভিন্ন এলাকায় আর্থ সামাজিক সমস্যা দূর করার লক্ষ্যে তরুনদের পাঁচটি উদ্যোগকে আর্থিক সহায়তা দিয়েছে বহুজাতিক কোরীয় কোম্পানি এলজি ইলেক্ট্রনিক বাংলাদেশ। মানুষের কল্যাণে কাজ করার ইচ্ছাশক্তি ও প্রচেষ্টার জন্য তাদেরকে এলজি অ্যাম্বাসেডর বৃত্তি নামে এ সহায়তা ও স্বকৃতি প্রদান করা হয়।

মঙ্গলবার ( ৪ ডিসেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে এক অনুষ্ঠানে এ স্বকৃতি ও  সহায়তা প্রদান করা হয়। বৃত্তিপ্রাপ্ত সংগঠনগুলো হলো,খুলনার কয়রার ইনিশিয়েটিভ ফর কোস্টাল ডেভেলপমেন্ট’র প্রতিনিধি আশিকুজ্জামান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ব্যাচ ৯৭’র মুখপাত্র আসাদুজ্জামান ভুঁইয়া, যশোরের আমরা বেনাপোল বাসিন্দা’র তাওসিফ আহমদে ,ঢাকার টিডিসি শিক্ষা সহায়তা’র সমন্বয়ক ইরফান হক এবং দিনাজপুরের স্মৃতি বিজ্ঞান ক্লাব’র আবদুল্লাহ আল মুজাহিদ কাছে  ৪ লক্ষ টাকার  আর্থিক সহায়তা ব্যাংক চেক হস্তান্তর করেন এলজি ইলেক্টনিক্স বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডি কে সন ।

অনুষ্ঠানে খুলনার কয়রার ইনিশিয়েটিভ ফর কোস্টাল ডেভেলপমেন্ট এর উদ্যোক্তা আশিকুজ্জামান তার প্রকল্প তুলে ধরেন। সমাজে  বাঘবিধবাদের নিয়ে একটি কুসংস্কার প্রচলিত আছে যে স্ত্রী অভিশপ্ত বলে তার স্বামীকে বাঘে খেয়ে ফেলেছে। তাই এই সব কুসংস্কার এর বিরুদ্ধে ছিলো তার লড়াই। তিনি এমন ৫ জন বাঘবিধবাকে সেলাই প্রশিক্ষণ দেন এবং স্বাবলম্বী গড়ে তুলে তাদের কাপড় ও সেলাই মেশিন দেন তিনি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Dec/04/1543904616383.JPG

 অনুষ্ঠানে বৃত্তিপ্রাপ্তদের উপস্থাপনা শেষে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে এলজি ইলেক্ট্রনিক বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডি কে সন বলেন, সমাজ পরিবর্তনের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার তারুণ্যের শক্তি। বাংলাদেশের তরুণরা অনেক উদ্যমী । দেশের – সমাজে নানা সমস্যা সমাধানে তরুণরা সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে।

তিনি বলেন, প্রযুক্তির উন্নয়ন এবং পণ্যসেবার মানোন্নয়নের মাধ্যমে মানুষের জীবনযাপনকে সহজ ও স্বাচ্ছন্দ্যময় করতে আমরা কাজ করছি। ‘জীবনটা সুন্দর’ স্লোগান ধারণ করে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এলজি।

 

এই পর্যায়ে যারা সিলেক্ট হয়েছে তাদের অভিনন্দন জানিয়ে  এলজি ইলেক্ট্রনিক্স বাংলাদেশ’র হেড অব কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক্স মাহমুদুল হাসান বলে, এই প্রকল্পের সাফ্যল্য নির্ভর করে আপনাদের নিজেদের চেস্টার , যাতে আপনাদের কাজ দেখে অন্যরা অনুপ্রাণিত হয়।

আশা করছি আমদের উদ্যোগ দেখে অন্যান্য কোম্পানি গুলো এগিয়ে আসবে।

 

বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বেসরকারী সংস্থা গুড নেইবারস বাংলাদেশের প্রোগ্রাম সাপোর্ট বিভাগের পরিচালক আনন্দ কুমার দাস বলেন, আমি মনে করি তরুণরা এই দেশের ভবিষ্যৎ , আজকে এলজি বাংলাদেশ আমাদের দেশে শুধু ব্যবসা নয় দ্বায়িত্ব বোধ থেকে যে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য চেস্টা করছে আমরা তাদের চেস্টাকে সাধুবাদ জানাই।

আমি বিশ্বাস করি এই প্রকল্পের মাধ্যমে পাওয়ারফুল একটি পরিবর্তন আনতে সক্ষম হবে।

দেশের নানা প্রান্তে আর্থিক সহায়তার কারণে যে  সকল প্রচেষ্টা থেমে আছে তাদের সাহায্য করতে ২০১৭ সাল থেকে ‘এলজি অ্যাম্বাসেডর প্রকল্প’ গ্রহণ করা হয়। ফেসবুকে ‘এলজি বাংলাদেশ’ পেজে পরিচালিত একটি ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে গত অক্টোবর থেকে নভেম্বরে ১৮১ টি প্রকল্প প্রস্তাব জমা পড়ে। অইর প্রস্তাবগুলো থেকে উপযোগিতা , টেকসই গুণাবলি, এবং বাস্তবায়নের দক্ষতা বিবেচনায় এই পাঁচটি সংগঠন ও ব্যাক্তির প্রকল্প নির্বাচিত করা হয়।

 

 

 

আপনার মতামত লিখুন :

মেয়াদ বাড়ল মটোরোলার কুল অফারের

মেয়াদ বাড়ল মটোরোলার কুল অফারের
ছবি: সংগৃহীত

গ্রাহকদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে বাড়ানো হলো ‘মটো কুল অফার’র মেয়াদ। নির্দিষ্ট অনলাইন স্টোর থেকে আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাংলাদেশের গ্রাহকরা ডিসকাউন্ট মূল্যে কিনতে পারবেন মটোরোলার নির্দিষ্ট মডেলের হ্যান্ডসেট।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বাংলাদেশের মটোরোলার ন্যাশনাল ডিস্ট্রিবিউটর স্মার্ট টেকনোলজিস বিডি লিমিটেডের ডিরেক্টর (টেলিকম বিজনেস) সাকিব আরাফাত জানান, ‘বাংলাদেশে ই-কমার্স সাইটগুলো দিনদিন জনপ্রিয় হচ্ছে। গ্রাহকরাও অনলাইন প্ল্যাটফরম থেকে পণ্য কিনতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করছেন। বিশেষ করে স্মার্টফোনের জন্য এসব প্ল্যাটফরম খুবই জনপ্রিয়। তাই গ্রাহকদের কথা বিবেচনা করে চলমান অফারটির মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

মটোরোলার অনলাইন স্টোর পার্টনার- রবিশপ, গেজেট অ্যান্ড গিয়ার, দারাজ, পিকাবু, ইভ্যালি, এডিসন স্মার্ট প্লাগ ইন ও ডেলিগ্রাম। গ্রাহকরা এসব অনলাইন স্টোর থেকে মটোরোলার অরিজিনাল হ্যান্ডসেট ক্রয় করতে পারবেন।

‘মটো কুল অফার’র আওতায় গ্রাহকরা এখন থেকে মটো ই৪ প্লাস ৯,৯৯০ টাকায়, মটো ই৫ প্লাস ১৪,৯৯০ টাকায়, মটো জি৭ পাওয়ার ১৮,৯৯০ টাকায় এবং মটোরোলা ওয়ান ২০,৯৯০ টাকায় কিনতে পারবেন।

হংকংয়ের বিনিয়োগ পেল ইকুরিয়ার

হংকংয়ের বিনিয়োগ পেল ইকুরিয়ার
ইকুরিয়ার লোগো

প্রবৃদ্ধি অর্জনের ধারাবাহিকতাকে আরও গতিশীল করতে নতুন বিনিয়োগ পেয়েছে বাংলাদেশের ই-কমার্সভিত্তিক অনলাইন কুরিয়ার সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ইকুরিয়ার।

ইকুরিয়ার প্রতিষ্ঠানের বাজারমূল্য তিনশ কোটি টাকা বিবেচনা করে নতুন বিনিয়োগে এগিয়ে এসেছে হংকংভিত্তিক একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। ২০১৫ সালের শুরুর দিকে বিনিয়োগের প্রাথমিক ধাপ শুরু করেছিল ইকুরিয়ার। নতুন এ বিনিয়োগে কতো টাকা পাচ্ছে ইকুরিয়ার তা জানায়নি কোন পক্ষই।

ইকুরিয়ারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিপ্লব ঘোষ রাহুল বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানায়, রাজধানীর বাইরে পণ্য পৌঁছে দেওয়ার নেটওয়ার্ক বিস্তৃত করা হচ্ছে। উন্নত ওয়্যারহাউস সুবিধা বাড়াতে কাজ চলছে। আর তা করা হবে অবকাঠামো ও প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগের মাধ্যমে। এছাড়া আমাদের কার্যক্রমের ভৌগলিক পরিসীমা বাড়ানো, আস্থা অর্জন এবং কাজের দক্ষতায় উন্নয়নে এ বিনিয়োগ ব্যবহার করা হবে। আমাদের গ্রাহক এবং অংশীদাররা নতুন এ বিনিয়োগের সুফল ভোগ করবে। কাজের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে আমরা তা নিশ্চিত করতে চাই।

২০১৫ সালে কার্যক্রম শুরু করা ইকুরিয়ার বর্তমানে ই-কমার্স ব্যবসায় বহুমুখী সেবা দিয়ে আসছে। অনলাইন মাধ্যমে পরিসেবাগুলোকে একত্রীকরণসহ প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি ঢেলে সাজানো হয়েছে। চালান ব্যবস্থাপনা, তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণসহ আন্তঃশহর পণ্য ডেলিভারি সুবিধা, এক্সপ্রেস পণ্য পরিবহন সেবা এবং ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য পণ্য রিটার্ন সুবিধা আছে ইকুরিয়ারে।

বর্তমানে ইকুরিয়ার বাংলাদেশের ৬০টি জেলাসহ এক হাজারেরও বেশি ইউনিয়ন পর্যায়ে সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের সেবা কার্যক্রম নেটওয়ার্কের ব্যাপ্তি এমন পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে যা বাংলাদেশে এখনও কোন কুরিয়ার প্রতিষ্ঠান পোঁছাতে পারিনি। সাড়ে তিনশরও বেশি কর্মী নিয়ে ইকুরিয়ার বর্তমানে সারাদেশে সরাসরি ৫ হাজার স্থানীয় অংশীজনের মাধ্যমে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। গত কয়েক বছরে ইকুরিয়ার পণ্য ডেলিভারির খাতে ধারাবাহিক উন্নতি ধরে রেখেছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র