Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

হারিয়ে গেছে নদী, বদলেছে পাটনিদের পেশা

হারিয়ে গেছে নদী, বদলেছে পাটনিদের পেশা
বাড়ির উঠানে গৃহস্থালির জিনিস বানাচ্ছেন পাটনিরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
রাকিবুল ইসলাম রাকিব
উপজেলা করেসপন্ডেন্ট
গৌরীপুর (ময়মনসিংহ)


  • Font increase
  • Font Decrease

নদী তীরে ছিল তাদের বসবাস। নদী ছিল তাদের জীবন ধারণের উৎস। নদীর বুকে নৌকা চালিয়ে চলত তাদের জীবন-জীবিকা। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে হারিয়ে গেছে নদী। বদলে গেছে তাদের পেশা।

বলা হচ্ছে, ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার পাটনি সম্প্রদায়ের কথা। যে পাটনিদের রক্তের বিনিময়ে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার নামকরণ হয়েছে, সেই পাটনি সম্প্রদায়ের মানুষগুলোই এখন নানা বৈষম্যের শিকার। নদী ও নৌকার পরিবর্তে এখন পাটনিরা বাঁশের বেত বুনে গৃহস্থালির বিভিন্ন উপকরণ তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করছে।

ব্রিটিশ শাসনামলে ময়মনসিংহের পিতলগঞ্জে কাঁচামাটিয়া নদীতে নৌকা চালাতেন ঈশ্বরপাটনি নামে এক মাঝি। ওই সময় পিতলগঞ্জ ঘাটে ইংরেজরা কুঠি স্থাপন করে মানুষজনকে অত্যাচার করে নীল চাষ করাতে বাধ্য করত। একদিন ঈশ্বরপাটনি নৌকার বৈঠা নিয়ে ইংরেজ নীলকরদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। পরবর্তীতে পিতলগঞ্জের হাটের নাম পাল্টে মাঝি ঈশ্বরপাটনির নামানুসারে ঈশ্বরগঞ্জ এলাকাটির নামকরণ হয়।

সরজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈশ্বরগঞ্জ পৌর শহরের শিমরাইল মহল্লায় হিন্দু ধর্মাবলম্বী পাটনি সম্প্রদায়ের ৩০টি পরিবার রয়েছে। যে স্থানটিকে ঘিরে পাটনিদের জনপদ গড়ে উঠেছিল তার পাশ দিয়েই প্রবহমান ছিল কটিয়াপুড়ী থেকে কাঁচামাটিয়া পর্যন্ত মাইজাগা নদী। বর্তমানে কাঁচামাটিয়া নদীর অস্তিত্ব থাকলেও মাইজাগা নদীর কোনো অস্তিত্ব নেই।

পাটনিপাড়া ঘুরে দেখা যায়, বাড়ির উঠানে দলবদ্ধ হয়ে নারী ও পুরুষরা বেত বুনছেন। হাতের নিপুণ কৌশলে বেত বুনে তারা কুলা, খুরি, ঢাকি, পাখা, চালুন সহ নানা ধরনের গৃহস্থালি উপকরণ তৈরি করছেন। হাটবাজারের দিন এগুলো বিক্রি করা হবে। পাটনিদের তৈরি কুলার চাহিদা সবচেয়ে বেশি। তবে বাঁশ বেতের ব্যবহার ক্রমশ কমে আসায় ঝুঁকির মুখে পড়তে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।

চাঁন মোহন পাটনি বলেন, 'এনজিও ঋণ ও দাদনের টাকা দিয়ে বেত বুনে বিভিন্ন উপকরণ তৈরি করি। এতে করে লাভের টাকা তাদের হাতে চলে যায়। আমরা যদি সহজ শর্তে ও স্বল্প সুদে ঋণ পেতাম তাহলে আমরা লাভবান হতে পারতাম।'

পাটনিপাড়ার একাধিক বাসিন্দা জানান, কয়েক কাঠা জমিতে ঘনবসতি করে পাটনিরা অভাব-অনটনে জীবনযাপন করছেন। পূজা-অর্চনার জন্য মন্দির নির্মাণের চেষ্টা করলেও অর্থাভাবে কাজ সম্পন্ন করতে পারছেন না। ভোটের সময় অনেকে পাটনিদের মন্দির ও জীবন মান উন্নয়নে পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিলেও পরবর্তীকে কেউ তাদের খোঁজ নেয় না।

পাটনিপাড়ার সবচেয়ে বৃদ্ধ নব্বইঊর্ধ্ব প্রকাশ চন্দ্র পাটনি বলেন, 'ছোট বেলায় বাবাকে নদীতে চালাতে দেখেছি। কিন্তু আজ নদী নেই, তাই আমাদের পেশাও পাল্টে গেছে। মানবেতর জীবনযাপন করলেও কেউ খোঁজ নেয় না। অর্থসংকটে মন্দির হচ্ছে না, শ্মশানের জায়গাও বেহাত হতে চলেছে। সরকারের লোকজনের এদিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন।'

আপনার মতামত লিখুন :

কুষ্টিয়ায় পিস্তল, গুলি, ম্যাগাজিন ইয়াবাসহ আটক ৫

কুষ্টিয়ায় পিস্তল, গুলি, ম্যাগাজিন ইয়াবাসহ আটক ৫
আটক হওয়া ৫ আসামি, ছবি: সংগৃহীত

কুষ্টিয়ায় ১টি পিস্তল, পিস্তলের ২ রাউন্ড গুলি, ১টি ম্যাগাজিন এবং ২০০ পিস ইয়াবাসহ ৫ জনকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়া ঈদগা মাঠের মিনারের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাতের সার্বিক দিক নির্দেশনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই মোঃ সাহেব আলীর নেতৃত্বে কুষ্টিয়া মডেল থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া মন্ডলপাড়া এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে মোঃ আবু সাইদ (৪০), আড়ুয়াপাড়া ১নং মসজিদ বাড়ি লেনের মৃত মোশারফ হোসেনের ছেলে মোঃ কাউছার বাবু ওরফে করিয়া বাবু (৪৫),

সাংউত্তর চর আমলাপাড়া এলাকার মুন্সি ফয়েজুল ইসলামের ছেলে মোঃ শফিউল ইসলাম লিটু (৪২), হাউজিং বি ব্লক,সম্প্রসারণ-১৬ এলাকার মৃত সদর উদ্দিনের ছেলে মোঃ শফিকুল ইসলাম রানা (৩৯), রাজবাড়ী জেলার পশ্চিম ভবানীপুর রেল কলোনী ৮নং ওয়ার্ড এলাকার মৃত হাজী আব্দুস সাত্তারের ছেলে মোঃ ইমরুল হাসান মধু (৩৮)।

এ ঘটনায় আসামিদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি শিশু মুরসালিন, গ্রেফতার ২

১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি শিশু মুরসালিন, গ্রেফতার ২
শিশু মুরসালিন সরদার। ছবি: সংগৃহীত

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মুরসালিন সরদার (৬) নামে এক শিশু অপহরণ মামলায় ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে ১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি শিশুটি। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কাশিয়ানী উপজেলার সাজাইল ইউনিয়নের আমডাকুয়া গ্রামের আসাদ মুন্সী (৬০) ও হারুন সরদার (৫৭)।

রোববার (১৮ আগস্ট) নিখোঁজ মুরসালিনের বাবা বাচ্চু সরদার বাদী হয়ে কাশিয়ানী থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে সোমবার (১৯ আগস্ট) জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২ আগস্ট দুপুরে শিশু মুরসালিন পাশের মসজিদে নামাজ আদায় শেষে বাড়ি ফিরছিল। পথে সাজাইল পুরানো ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের কাছে পৌঁছালে অজ্ঞাত ৫-৬ লোক একটি সাদা মাইক্রোবাসে মুরসালিনকে জোর করে তুলে নিয়ে দ্রুত ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দিকে যায়।

মুরসালিন গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর সাজাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির ছাত্র ও আমডাকুয়া গ্রামের বাচ্চু সরদারের ছেলে।

কাশিয়ানী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুর রহমার জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র