Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

গাড়ি ভাড়া না থাকায় গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

গাড়ি ভাড়া না থাকায় গণধর্ষণের শিকার কিশোরী
ধর্ষক লেগুনা চালক, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
বরিশাল


  • Font increase
  • Font Decrease

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় লেগুনা গাড়িতে যাতায়ত ভাড়া না দিতে পারায় রাতভর পালাবদল গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক কিশোরী (১৫)।

এ ঘটনায় প্রথম ধর্ষক লেগুনার চালক রাজ্জাককে (৩৫) স্থানীয়রা আটক করে পুলিশ দিয়েছে। ধর্ষিতাকে বুধবার (৭ আগস্ট) সকালে স্থানীয়রা উদ্ধার করলেও আরেক লেগুনার চালকসহ দুই ধর্ষককে আটক করতে পারেনি স্থানীয় থানা পুলিশ।

রাজ্জাক বানারীপাড়ার ইলুহার ইউনিয়নের মলুহার গ্রামের আফসার উদ্দিনের ছেলে। আর ওই কিশোরী পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার গাঁওখালী গ্রামের নৌকায় ভাসমান সবজি বিক্রেতা প্রতিবন্ধী আবদুল বারেকের মেয়ে।

পুরো ঘটনার বিবরণী দিয়ে ধর্ষিতা কিশোরী জানান, সে পয়সারহাটের খালা বাড়িতে দু’দিন বেড়ানো শেষে মঙ্গলবার (৬ আগস্ট)সন্ধ্যায় ওই উপজেলার বিশারকান্দি থেকে লেগুনা গাড়িতে চড়ে। তার কাছে গাড়ি ভাড়া না থাকায় সে বিশারকান্দি লেগুনা স্ট্যান্ডে চালক রাজ্জাককে মামা ডেকে তার কাছে ভাড়া না থাকার বিষয়টি তাকে জানায়।

রাজ্জাক বিনা ভাড়ায় তাকে বৈঠাঘাটা তালুকদার উলা খেয়াঘাটে নামিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে গাড়িতে তুলে গন্তব্যে না নামিয়ে পার্শ্ববর্তী বানারীপাড়ার ইলুহার ইউনিয়নের জনতা বাজার সংলগ্ন তার চাচাতো ভাই রশিদের বাড়ির পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে তাকে ধর্ষণ করে। পরে রাত ১০টার দিকে জনতা বাজার থেকে অপর লেগুনা গাড়ির চালক মাসুমের গাড়িতে তাকে তুলে দেয় রাজ্জাক।

বিশারকান্দি গ্রামের মাসুম ওই কিশোরীকে বৈঠাঘাটা তালুকদার উলা খেয়াঘাটে না নামিয়ে বিশারকান্দি লেগুনা স্ট্যান্ডের একটি কক্ষে নিয়ে অপর এক সহযোগী সহ রাতভর ধর্ষণ করে। ভোররাতে মাসুম গণধর্ষিতা ওই কিশোরীকে বৈঠাঘাটা তালুকদার উলা খেয়াঘাটে গাড়ি থেকে নামিয়ে দিয়ে চলে যায়।

ওই কিশোরীকে খেয়াঘাটে দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন তার কাছ থেকে গণধর্ষণের বিষয়টি জানতে পারেন। বুধবার ভোরে ওই কিশোরীর প্রথম ধর্ষক রাজ্জাক ওই স্থান থেকে যাত্রী সহ গাড়ি নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করেন।

বিষয়টি তদন্তে কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক সুজিত কুমার বিশ্বাসকে ঘটনাস্থলে আসেন। তিনি ধর্ষক রাজ্জাক ও ধর্ষিতা কিশোরীকে থানায় নিয়ে আসেন।

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে লেগুনা চালক রাজ্জাক ওই কিশোরীকে ধর্ষণের কথা অকপটে স্বীকার করেছেন।

এ প্রসঙ্গে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খলিলুর রহমান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। একই সঙ্গে বাকি অভিযুক্ত লেগুনা চালক মাসুমসহ অপর দুই জনকে গ্রেফতারেরও চেষ্টা চলছে।

আপনার মতামত লিখুন :

কুষ্টিয়ায় পিস্তল, গুলি, ম্যাগাজিন ইয়াবাসহ আটক ৫

কুষ্টিয়ায় পিস্তল, গুলি, ম্যাগাজিন ইয়াবাসহ আটক ৫
আটক হওয়া ৫ আসামি, ছবি: সংগৃহীত

কুষ্টিয়ায় ১টি পিস্তল, পিস্তলের ২ রাউন্ড গুলি, ১টি ম্যাগাজিন এবং ২০০ পিস ইয়াবাসহ ৫ জনকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়া ঈদগা মাঠের মিনারের সামনে থেকে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাতের সার্বিক দিক নির্দেশনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই মোঃ সাহেব আলীর নেতৃত্বে কুষ্টিয়া মডেল থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া মন্ডলপাড়া এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে মোঃ আবু সাইদ (৪০), আড়ুয়াপাড়া ১নং মসজিদ বাড়ি লেনের মৃত মোশারফ হোসেনের ছেলে মোঃ কাউছার বাবু ওরফে করিয়া বাবু (৪৫),

সাংউত্তর চর আমলাপাড়া এলাকার মুন্সি ফয়েজুল ইসলামের ছেলে মোঃ শফিউল ইসলাম লিটু (৪২), হাউজিং বি ব্লক,সম্প্রসারণ-১৬ এলাকার মৃত সদর উদ্দিনের ছেলে মোঃ শফিকুল ইসলাম রানা (৩৯), রাজবাড়ী জেলার পশ্চিম ভবানীপুর রেল কলোনী ৮নং ওয়ার্ড এলাকার মৃত হাজী আব্দুস সাত্তারের ছেলে মোঃ ইমরুল হাসান মধু (৩৮)।

এ ঘটনায় আসামিদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি শিশু মুরসালিন, গ্রেফতার ২

১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি শিশু মুরসালিন, গ্রেফতার ২
শিশু মুরসালিন সরদার। ছবি: সংগৃহীত

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মুরসালিন সরদার (৬) নামে এক শিশু অপহরণ মামলায় ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে ১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি শিশুটি। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কাশিয়ানী উপজেলার সাজাইল ইউনিয়নের আমডাকুয়া গ্রামের আসাদ মুন্সী (৬০) ও হারুন সরদার (৫৭)।

রোববার (১৮ আগস্ট) নিখোঁজ মুরসালিনের বাবা বাচ্চু সরদার বাদী হয়ে কাশিয়ানী থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে সোমবার (১৯ আগস্ট) জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২ আগস্ট দুপুরে শিশু মুরসালিন পাশের মসজিদে নামাজ আদায় শেষে বাড়ি ফিরছিল। পথে সাজাইল পুরানো ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের কাছে পৌঁছালে অজ্ঞাত ৫-৬ লোক একটি সাদা মাইক্রোবাসে মুরসালিনকে জোর করে তুলে নিয়ে দ্রুত ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দিকে যায়।

মুরসালিন গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর সাজাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির ছাত্র ও আমডাকুয়া গ্রামের বাচ্চু সরদারের ছেলে।

কাশিয়ানী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুর রহমার জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র