Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

জয়পুরহাটে সেপটিক ট্যাংকে নেমে ৬ শ্রমিকের মৃত্যু

জয়পুরহাটে সেপটিক ট্যাংকে নেমে ৬ শ্রমিকের মৃত্যু
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
জয়পুরহাট


  • Font increase
  • Font Decrease

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলায় সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করতে নেমে ৬ শ্রমিক মারা গেছেন।

বুধবার (৩১ জুলাই) সকাল ১০টায় উপজেলার জাফরপুর হিন্দুপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩ শ্রমিক।

নিহতরা হলেন- শাহীন আকন্দ, শিহাব আকন্দ, মুকুল, সজল, ভুট্টো লাল, প্রিতম লাল।

জানা গেছে, সকালে জাফরপুর হিন্দুপাড়ার একটি বাড়িতে সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করতে নামে কয়েকজন শ্রমিক। এর কিছুক্ষণ পরে হঠাৎ বিষাক্ত গ্যাসে আক্রান্ত হয় ওই শ্রমিকরা। এ ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মারা যায় ৪ শ্রমিক। আর গুরুতর অবস্থায় ৫ জনকে উদ্ধার করে আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। সেখানে ২ শ্রমিককে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

আক্কেলপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কিরণ কুমার রায় এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

রুমায় অস্ত্রের মুখে জিপ গাড়ির ৩ চালককে অপহরণ

রুমায় অস্ত্রের মুখে জিপ গাড়ির ৩ চালককে অপহরণ
ছবি: সংগৃহীত

বান্দরবানের রুমায় অস্ত্রের মুখে জিপ গাড়ির তিনজন চালককে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

অপহৃতরা হলেন-বাসু কর্মকার (৩২), নয়ন জলদাস (২৯) এবং মো: মিজান (৩০)। এদের প্রথম দুজনের বাড়ি রুমা উপজেলার লেমুঝিরি ও বড়ুয়া পাড়ায় এবং তৃতীয় জনের বাড়ি চট্টগ্রামের আমিরাবাদ এলাকায় বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, রুমা উপজেলার সদর ইউনিয়নের মিনজিরি পাড়া মুখ থেকে অস্ত্রের মুখে জিপ গাড়ির তিনজন চালককে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা। খবর পেয়ে অপহৃতদের উদ্ধারে সেনাবাহিনী, পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থল ও আশপাশের এলাকাগুলোতে অভিযানে নেমেছে।

রুমা জিপ পরিবহনের লাইন ম্যান মোহাম্মদ মিজানুর বলেন, ‘সোমবার রুমায় সাপ্তাহিক হাট ছিলো। বাজার থেকে যাত্রী নিয়ে তিনটি জিপ-গাড়ি বেতেলপাড়া, মুন্নুমপাড়া, লাইনঝিড়ি পাড়া সড়কে যায়। যাত্রী নামিয়ে ফেরার পথে মিনজিরি পাড়ামুখ থেকে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা তিনটি গাড়ির তিনজন চালককে অপহরণ করে নিয়ে যায়।’

রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মো. নজরুল ইসলাম জানান, মিনজিরি পাড়া মুখ থেকে তিনটি জিপ গাড়ির তিনজন চালককে (ড্রাইভার) অপহরণের খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে কারা অপহরণ করেছে বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি।‘

চালের ফুটো দিয়ে আকাশের তারা গুনে ঘুমিয়ে পড়েন মোমেনা

চালের ফুটো দিয়ে আকাশের তারা গুনে ঘুমিয়ে পড়েন মোমেনা
মোমেনা বেওয়া

দুর্দশাগ্রস্ত আর ভাগ্য বিড়ম্বিত নারী কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার নদিরকুটি গ্রামের মোমেনা বেওয়া (৬৫)। বৃদ্ধ বয়সে অনেকেই সরকারি-বেসরকারি সাহায্য পেলেও এ পর্যন্ত কিছুই জোটেনি মোমেনার ভাগ্যে।

নিত্য অভাব আর অসুস্থতাকে সাথে নিয়ে খেয়ে না খেয়ে তার দিন কাটে। রাতেও ঘুমাতে পারেন না। বাঁশের বেড়া দিয়ে তৈরি ঘর, আর পলিথিনের ছাউনি। বৃষ্টি এলে ঘরের এক কোণে গুটিসুটি মেরে নির্ঘুম রাত কাটে। দুই সন্তানের জননী মোমেনার স্বামী গত হয়েছেন ২৫ বছর আগে। অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে জমানো টাকায় অনেক কষ্টে মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। একমাত্র ছেলে বিয়ে করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে তার আলাদা জীবন-যাপন। এখন মোমেনাকে দেখার কেউ নেই।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566229998321.jpg

রোববার (১৮ আগস্ট) বিকেলে মোমেনার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, একমাত্র ছেলের ঘরটি তালাবদ্ধ। ভাঙা ঝুঁপরি ঘরের এক কোণে মাটিতে পাতা একটা ময়লা বিছানা। অন্যদিকে রান্নার চুলা। মোমেনা জানান, রাতে ঘরে শুয়ে চালের ফুটো দিয়ে আকাশের তারা গুনে ঘুমিয়ে পড়েন। বৃষ্টি আসলে বিছানার এক কোণে বসে রাত পাড় করেন। পরের দিন কাজ কাম ফেলে বিছানা কাপড় শুকাতে দেন।

মোমেনা বেওয়া কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘বাহে মোর কাইয়ো নাই, কিছুই নাই। বুড়া বয়সে মানুষের বাড়িতে কামাই করি খাং বাহে। আর কদ্দিন বাঁচিম জানাং না। দুইমুঠো খাবার পায়া শুতি থাইকপার পাইলে এ্যাকনা শান্তি পানু হয়’।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566230015893.jpg

তার প্রতিবেশি নুরজাহান বেগম জানান, মোমেনা বেওয়া বড়ই অভাগী। স্বামী মরার পরে ছেলেও দেখাশুনা করে না। অনেক কষ্টে দিন কাটে তার। বিধবা ভাতা ও একটা  ঘর পাওয়ার যোগ্য হলেও তার ভাগ্যে কিছুই জোটেনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাছুমা আরেফিন জানান, নতুন ঘরের বরাদ্দ পাওয়া গেলে তাকে ঘর দেওয়া হবে। সেই সাথে তিনি বিধবা ভাতার আবেদন করলে যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র