Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

ঈশ্বরগঞ্জে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনের মুখে অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি

ঈশ্বরগঞ্জে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনের মুখে অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি
ঈশ্বরগঞ্জে নদী ভাঙনে দুর্ভোগে মানুষ/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
রাকিবুল ইসলাম রাকিব
উপজেলা করেসপন্ডেন্ট
গৌরীপুর (ময়মনসিংহ)
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের উচাখিলা ইউনিয়নের মরিচারচরের নতুন চর গ্রামে ব্র‏‏‏হ্মপুত্র নদের ভাঙন ও পানি বৃদ্ধিতে দুর্ভোগে পড়ছেন গ্রামবাসী। পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন তিন শতাধিক পরিবার। গত কয়েকদিনে ১৪টি পরিবারের বসতবাড়ি নদের গর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙনের হুমকিতে রয়েছে আরও অর্ধশতাধিক বসতবাড়ি।

অপরদিকে নদে বিলীন হওয়ায় ভিটেমাটি ছেড়ে দুর্গত মানুষ নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য ছুটছেন। অনেকে পানির মধ্যে কষ্টে জীবনযাপন করলেও ভিটে ছাড়তে চাইছেন না। এলাকাবাসী জানান, ব্রহ্মপুত্র নদ ভাঙতে ভাঙতে ঈশ্বরগঞ্জ ও গৌরীপুর উপজেলা সীমানালগ্ন এলাকায় এসে গতিপথ পরিবর্তন করে মরিচাররের নতুন চর এলাকায় ঢুকে পড়েছে। অচিরেই ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নদ খনন করে গতিপথ মূলধারায় মিলিয়ে না দিলে নতুন এলাকায় ভাঙন ঠেকানো যাবে না। আর ভাঙন ঠেকানো না গেলে গ্রামটি বিলীন হয়ে যাবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/28/1564336132618.jpg

জানা গেছে, উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের মরিচারচর নতুনচর গ্রামটি ব্রহ্মপুত্র নদঘেঁষা। প্রতিবছর নদের ভাঙন ও বন্যার পানির সাথে লড়াই করে এখানে প্রায় সাড়ে তিনশ পরিবারের তিন হাজারের মতো মানুষ বসবাস করছেন।

রোববার মরিচারচরের নতুন চর এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, ব্রহ্মপুত্র নদ ভাঙতে ভাঙতে গ্রামবাসীর ঘরের দুয়ারের সামনে চলে এসেছে। ইতোমধ্যে নদের গর্ভে বিলীন হয়েছে গ্রামের শহীদুল্লাহ, আজিজুল হক, শাহীন মিয়া, আমান উল্লাহসহ অন্তত ১৪ জনের বসতভিটা। ভাঙনের আশঙ্কায় ঘরবাড়ি ও গাছপালা ও গবাদি পশু অনত্র সরিয়ে নিচ্ছেন এলাকাবাসী। নদে বড় নৌকা দেখলেই ত্রাণের আশায় পানি ভেঙে ছুটছেন তারা।

অপরদিকে নদে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন নদঘেঁষা গ্রামের নিম্নাঞ্চলের বাসিন্দারা। অনেকেই ভিটেমাটি হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিয়েছেন। ভাঙনের হুমকিতে থাকা মরিচারচর-উচাখিলা সড়কটিতে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে রক্ষার কাজ করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/28/1564336155941.jpg

বর্না কবলিত পরিবার সদস্যরা জানান, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান সুমন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে রুমানা তুয়া ভাঙন কবলিত এলাকা পরদির্শন করে পৃথকভাবে ত্রাণ বিতরণ করেছেন। কিন্তু সেটা চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল।

মরিচারচর নতুনচর গ্রামের বাসিন্দা আবুল কাশেম বলেন, ‘গত ১১ দিন ধরে পানিবন্দী হয়ে আছি। অনেকের ঘরবাড়ি পানির নিচে তলিয়ে গেছে। বিলিন হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে অনেক পরিবার।’

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান সুমন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘ইতোমধ্যে নদে ড্রেজিং করার প্রকল্প অনুমোদন করা হয়েছে। নদটি ড্রেজিং করে মূল স্রোতে ফিরিয়ে নিলে মানুষের দুর্ভোগ কমবে। এছাড়া যাদের ঘরবাড়ি নদে বিলিন হচ্ছে তাদের বিষয়েও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিশু ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি গ্রেফতার

চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিশু ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি গ্রেফতার
গ্রেফতারকৃত ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি, ছবি: সংগৃহীত

চাঁপাইনবাবগঞ্জে চার বছরের শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার মামলায় জয়দেব (৪৫) নামে অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নয়াগোলা মহল্লার তাহেরপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। জয়দেব শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের শ্রী চমৎকারের ছেলে।

নবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জিয়াউর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপপরিদর্শক (এসআই) জিন্নাতের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার নয়াগোলা মহল্লার তাহেরপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে জয়দেবকে গ্রেফতার করে। তিনি এ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।


এদিকে, এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে সোমবার রাতেই জয়দেবকে আসামী করে নবাবগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

শিশুটির মা জানান, সোমবার (১৯ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ২টার দিকে শিশুটিকে ফুসলিয়ে জয়দেব নয়াগোলার মোমিনপাড়া এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে শিশুটি চিৎকার দিলে ধর্ষক পালিয়ে যায়। পরে, শিশুটি তার মাকে ঘটনাটি বললে তার মা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে শিশুটি হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ৮৮জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ৮৮জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত
চুয়াডাঙ্গা মানচিত্র, ছবি: সংগৃহীত

চুয়াডাঙ্গায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঈদের ছুটিতে ডেঙ্গু রোগীর চাপ কমলেও আবারও হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ৩২ ঘণ্টায় হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন ১১ জন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের জন্য খোলা হয়েছে আলাদা ৩টি ডেঙ্গু কর্নার।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার শামীম কবীর জানান রোগীরা রাজধানী ঢাকা থেকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। সদর হাসপাতালে গত মাসের ২৭ জুলাই থেকে চলতি সপ্তাহের মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) পর্যন্ত ৮৮ জন ডেঙ্গু রোগীকে শনাক্ত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। অনেক ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী এরই মাঝে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

আক্রান্ত রোগীদের জন্য হাসপাতালে পর্যাপ্ত চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে বলেও জানান হাসপাতালের সিভিল সার্জন এ এস এম মারুফ হাসান।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র