Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে রোলারচাপায় চালক নিহত

খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে রোলারচাপায় চালক নিহত
প্রতীকী
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
খুলনা


  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে চলন্ত রোলারের নিচে চাপা পড়ে মো. জাহাঙ্গীর আলম (৪৩) নামে রোলারচালক নিজেই মারা গেছেন। নিহত জাহাঙ্গীর চুকনগর এলজিআরডিতে মাস্টার রোলে কর্মরত ছিলেন।

সোমবার (২৪ জুন) সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত জাহাঙ্গীর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোজাহার এন্টারপ্রাইজের চলমান খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের সংস্কার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি নগরীর নাজিরঘাট এলাকার মৃত ছবেদ আলীর ছেলে।

সোনাডাঙ্গা মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) উজ্জ্বল সরকার জানান, সন্ধ্যায় ডুমুরিয়া মিকশিমিল এলাকায় রোলারচালক জাহাঙ্গীর রোলারটি পেছনের দিকে নেওয়ার সময় হঠাৎ করে পড়ে যান। এ সময় চলন্ত রোলার তার ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করেন।

এরপর তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। নিহতের মরদেহ খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার
উদ্ধারকৃত বোমা সদৃশ বস্তু, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কাছাকাছি দুই জায়গা থেকে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধারকৃত বোমা নিষ্ক্রিয় করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বোমা ডিসপোজাল ইউনিট।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দিবাগত রাতে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তেজগাঁও থানার ওসি শামীম উর রশিদ।

শামীম উর রশিদ বলেন, 'খামার বাড়ির রাস্তায় বঙ্গবন্ধু চত্বরের কাছাকাছি দুই জায়গায় দুটি বোমা সাদৃশ্য বস্তু শনাক্ত করা গেছে। প্রাথমিকভাবে আমার নিশ্চিত হয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। ঘটনাস্থলে বোমা নিষ্ক্রিয় করার জন্য বোম ডিসপোজাল ইউনিট এসেছে।' 

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

তিনি বলেন, 'শনাক্ত করা বোমা সদৃশ্য এ দুটি বস্তু আদৌ বোমা কিনা এ বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে কাজ করছে বোমা ডিসপোজাল ইউনিট।'

তবে বোমা ডিসপোজাল ইউনিটের একটি সূত্রে জানা গেছে, একটি কার্টুনের ভেতর দুটি বোমা উদ্ধার করা গেছে। তবে সেগুলোর কার্যকারিতা সম্পর্কে এখনো জানা সম্ভব হয়নি। মনে হচ্ছে তরল কোনো কিছুর ভেতরে কালো স্কচ টেপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখা হয়েছে। পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে।

ফের কর্মবিরতিতে মংলা বন্দরসহ সারাদেশের নৌযান শ্রমিকরা

ফের কর্মবিরতিতে মংলা বন্দরসহ সারাদেশের নৌযান শ্রমিকরা
মংলা বন্দরে অপেক্ষারত জাহাজ, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

নৌপথে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, ডাকাতি বন্ধ, ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিং পাস প্রদান ও হয়রানি বন্ধ, নদীর নাব্যতা রক্ষা, নদীতে প্রয়োজনীয় মার্কা, বয়া ও বাতি স্থাপনসহ ১১ দফা দাবিতে কর্মবিরতি পালন করছেন মংলা বন্দরসহ সারাদেশের নৌযান শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে মংলা বন্দরসহ সারাদেশে যাত্রী, পণ্য ও তেলবাহী সকল নৌযান চলাচল বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন।

বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আশিকুল আলম পটল বলেন, 'এর আগে গত ১৫ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে একই দাবিতে সারাদেশে নৌযান শ্রমিকেরা কর্মবিরতি পালন শুরু করে। এরপর ১৭ এপ্রিল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীসহ নৌযান মালিক পক্ষ ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দদের উপস্থিতিতে যে বৈঠক হয় তাতে যে সকল সিদ্ধান্ত হয়েছিল তা পরবর্তী ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে কার্যকর করার কথা ছিল। কিন্তু দাবি বাস্তবায়নের নির্দিষ্ট সময় ছাড়াও প্রায় তিন মাস অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পরও সেই সকল দাবি কার্যকর করা হয়নি। ফলে বাধ্য হয়েই পুনরায় এ কর্মবিরতি পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।'

ফের কর্মবিরতিতে মংলা বন্দরসহ সারাদেশের নৌযান শ্রমিকরা

তিনি আরও বলেন, 'সারাদেশের প্রায় দুই লাখ নৌযান শ্রমিক মঙ্গলবার রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে দাবি আদায়ের জন্য এ কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে।'

এদিকে নৌযান শ্রমিকদের এ কর্মবিরতি শুরু হলে মংলা বন্দরে অবস্থানরত সকল বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজের পণ্য বোঝাই-খালাস ও পরিবহন কাজ বন্ধ হয়ে যাবে। এতে মংলা বন্দরের সাথে নদী পথে বিভিন্ন নৌ বন্দরসহ সারাদেশের যোগাযোগও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। ফলে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে যাচ্ছে মংলা বন্দরের আমদানি-রফতানিকারকেরা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র