Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার বালু বাণিজ্যে ভাঙছে জনপদ

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার বালু বাণিজ্যে ভাঙছে জনপদ
বালু উত্তোলনের কারণে খালের তীর ভেঙে যাচ্ছে। ছবি: বার্তা২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
লক্ষ্মীপুর


  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ওয়াপদা খাল থেকে বালু উত্তোলন করে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বাবুল আনসারীর বিরুদ্ধে। তার এ বালু বাণিজ্যে ভাঙন দেখা দিয়েছে খালের আশপাশের জনপদে। এতে আতঙ্কে রয়েছে স্থানীয়রা।

বালু উত্তোলন বন্ধে আলাউদ্দিন নামে ওই এলাকার এক ব্যক্তি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার চরশাহী ইউনিয়নের স্প্রিং ব্রিজ এলাকার ওয়াপদা খালে ৫টি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে গত ১ মাসে অবৈধভাবে প্রায় ২ লাখ ফুট বালু উত্তোলন করেছেন বাবুল আনসারী। বালু উত্তোলনে তাকে বাধা দিলে তিনি অস্ত্রের মুখে সবাইকে হুমকি দিয়ে আসছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চরশাহী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের স্প্রিং ব্রিজ এলাকার ওয়াপদা খাল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন চন্দ্রগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল আনসারীসহ তার লোকজন। এতে খালের তীর ভেঙে যাচ্ছে। হুমকিতে রয়েছে আশপাশের বাড়ি-ঘর। বালু উত্তোলনে বাধা দিলে অস্ত্রের মুখে স্থানীয়দের মারধরের হুমকি দেওয়া হয়। বিষয়টি চরশাহী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলজার মোহাম্মদকেও জানানো হয়েছে।

এর জের ধরে গত ২১ জুন বাবুল ও তার সহযোগী মিঠুকে নিয়ে এসে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করা হয়। মিঠু সন্ত্রাসী দিদার বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে পরিচিত। দলীয় ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বাবুল এলাকায় চাঁদাবাজি করছে বলেও অভিযোগ করা হয়।

অভিযোগ অস্বীকার করে চন্দ্রগঞ্জ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল আনসারী বলেন, ‘বালু উত্তোলনের বিষয়টি সত্য নয়। আমার বিরুদ্ধে অপ-প্রচার চালানো হচ্ছে। আমাকে হেয় করার লক্ষ্যে পরিকল্পিতভাবে এ অভিযোগ করা হয়েছে।’

চরশাহী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলজার মোহাম্মদ বলেন, ‘বালু উত্তোলনের বিষয়টি আমি জানি না। আমাকে কেউ বলেনি। তবে খোঁজ খবর নিয়ে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল বলেন, ‘অভিযোগটি এখনো আমি পায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা
ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ জানান প্রিয়া সাহা, ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের বিষয়ে মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগে প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ এনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

রোববার (২১ জুলাই) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ পারভেজের আদালতে মো. আসাদ উল্লাহ নামে এক ব্যক্তি বাদী হয়ে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পরে আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, বাংলাদেশ একটি মুসলিম রাষ্ট্র হওয়ার পরেও ধর্মীয় শান্তি ও সম্প্রীতির রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বে পরিচিত লাভ করেছে। অন্যান্য রাষ্ট্রে মুসলমানরা যে সকল সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে তার চেয়ে অনেক গুণ বেশি সুযোগ সুবিধা বাংলাদেশে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ও অন্যান্য ধর্মের লোকজন ভোগ করছে। প্রিয়া সাহা একজন বাংলাদেশি নাগরিক হয়ে দেশের ভাবমূর্তির কথা চিন্তা না করে বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে হেয় করার জন্য ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে তিন কোটি ৭০ লাখ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান গুম হয়ে গেছে, মুসলিম মৌলবাদীরা ঘর-বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে এবং তার জায়গা দখল করেছে বলে বিচার চান। এটি বাংলাদেশের রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার ছাড়া কিছুই না। এটি রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল বলেও এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

মামলার বাদী মো. আসাদ উল্লাহ জানান, বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে হেয় করার জন্য প্রিয়া সাহা মিথ্যাচার করেছেন। এটি আমাকে আহত করেছে। তাই আমি স্বপ্রণোদিত হয়ে মামলাটি দায়ের করেছি।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সারোয়ার-ই-আলম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, আদালত মামলাটি গ্রহণ করেছেন। মামলাটি দেখে পরে আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন।

পদ্মায় গোসল করতে নেমে স্বামী-স্ত্রী নিখোঁজ

পদ্মায় গোসল করতে নেমে স্বামী-স্ত্রী নিখোঁজ
পদ্মা নদী/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ৪নং ফেরি ঘাটে গোসল করতে গিয়ে স্বামী-স্ত্রী নিখোঁজ হয়েছেন। রোববার (২১ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মোঃ আব্দুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তিরা হলেন ইমন শেখ (২৫) ও তার স্ত্রী আঞ্জু আরা (২২)। তাদের বাড়ি খুলনায়।

স্টেশন অফিসার মোঃ আব্দুর রহমান জানান, গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ায় আত্মীয় বাড়ি বেড়াতে এসে পদ্মা নদীর ৪ ও ৫ নং ফেরিঘাটের মাঝে গোসল করতে গিয়ে তারা নিঁখোজ হন।

স্টেশনে ডুবুরি দল না থাকায় ঢাকার ডুবুরি দলকে জানানো হয়েছে এবং তারা রওনা হয়েছে বলে জানান স্টেশন অফিসার। ঢাকার ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছালে উদ্ধার কাজ শুরু হবে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র