Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

পাবনায় লাল না থাকায় নীল ক্যাপসুল খাবে শিশুরা

পাবনায় লাল না থাকায় নীল ক্যাপসুল খাবে শিশুরা
ছবি: প্রতীকী
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
পাবনা


  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনে লাল ক্যাপসুল খাওয়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে পাবনার প্রায় সাড়ে তিন লাখ (১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী) শিশু।

প্রথম রাউন্ডে (২২ জুন) শিশুরা নীল ও লাল ক্যাপসুল খাবে এমন প্রচারণা চালানো হয়েছিল। তবে পাবনায় লাল ক্যাপসুল না আসায় শিশুরা তা খেতে পারছে না। লালের বদলে শিশুরা দুইটি করে নীল ক্যাপসুল খাবে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দুপুরে সিভিল সার্জন অফিসের পাবনা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট মো. রবিউল আলম জানান, পরিমাণে কম থাকায় পাবনায় লাল ক্যাপসুল আসছে না। লাল ক্যাপসুলের পরিবর্তে দ্বিগুণ পরিমাণে নীল ক্যাপসুল পাঠানো হচ্ছে।

রবিউল আলম বলেন, ‘জেলার জন্য যে পরিমাণ ক্যাপসুল প্রয়োজন তার চেয়ে ১০ শতাংশ অতিরিক্ত চেয়েছিলাম। কিন্তু অতিরিক্ত ক্যাপসুল পাওয়া যায়নি। তবে যা পাওয়া গেছে, তাতে করে জেলার জন্য চাহিদা পূরণ হয়ে যাবে।’

জেলার নবাগত সিভিল সার্জন ডা. মো. মেহেদী ইকবাল জানান, নীল ক্যাপসুলের ডাবল পাওয়ার রয়েছে লাল ক্যাপসুলের মধ্যে। যে সকল শিশুকে লাল ক্যাপসুল খাওয়ানোর নিয়ম রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে দুইটি করে নীল ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এতে শিশুদের কোনো ধরনের সমস্যা হবে না।

নিউট্রিশন ইন্টারন্যাশনালের পাবনাস্থ কো-অডিনেটর শায়লা সোলায়মান কেয়া জানান, কাঁচামালের সরবরাহ কম থাকায় এবারে লাল ক্যাপসুলের পরিবর্তে শিশুদের নীল ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তবে বয়স ভেদেই শিশুদের জন্য লাল ও নীল ক্যাপসুল তৈরি করা হয়েছে। যার মধ্যে পুষ্টিগুণ একই আছে।

শায়লা সোলায়মান জানান, ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল মূলত অনুদান দিয়ে থাকে নিউট্রিশন ইন্টারন্যাশনাল। প্রতিটি ক্যাপসুলে রয়েছে ১ লাখ আইইউ (ইন্টারন্যাশনাল ইউনিট)।

জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ৬ মাস থেকে ১১ মাস ২৯ দিনের ৪৪ হাজার ৮৫৩ জন শিশুকে খাওয়ানো হবে একটি করে নীল ক্যাপসুল। আর ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস ২৯ দিনের ৩ লাখ ৪১ হাজার ৭১৩ জন শিশুকে খাওয়ানোর কথা ছিল একটি করে লাল ক্যাপসুল। কিন্তু লাল ক্যাপসুল সরবরাহ না থাকায় ওই শিশুদের দুইটি করে নীল ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

সূত্রটি আরও জানায়, ১১টি স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র, অস্থায়ী ১ হাজার ৮০৮টি টিকাদান কেন্দ্রে এই ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এ জন্য ২২৭ জন সুপারভাইজার, ৭৬৩ জন মাঠকর্মী ও ৩ হাজার ৬৩৮ জন স্বেচ্ছাসেবক এই কাজে নিয়োজিত থাকবেন। ক্যাম্পেইনের কেন্দ্রগুলো সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

আপনার মতামত লিখুন :

বগুড়ায় ছেলে ধরা গুজব ছড়ানোর অভিযোগে আটক ৩

বগুড়ায় ছেলে ধরা গুজব ছড়ানোর অভিযোগে আটক ৩
ছবি: সংগৃহীত

স্ত্রী-সন্তানকে ভরণপোষণ না দিয়ে শ্বশুর বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে ভ্যান চালক স্বামী রিবুল হোসেন। শ্বশুর সিফার ফকির অন্ধ মানুষ। ভিক্ষা করে নিজের সংসার চালান।

এরমধ্যে মেয়ে শিরিন ও তার দুই বছরের সন্তান চেপেছে তার ঘাড়ে। রিবুল স্ত্রী-সন্তানের ভরণ পোষণ না দিলেও মাঝে মধ্যে সন্তানকে দেখতে আসেন শ্বশুর বাড়িতে।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সন্ধ্যার আগে রিবুল হোসেন অটো ভ্যান নিয়ে যাত্রীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন সারিয়াকান্দি থানার পার্শ্বে কাঁঠাল তলা এলাকায়। এ সময় পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন তার শ্বশুর শাশুড়ি, স্ত্রী ও সন্তান। রিবুল তাদেরকে থামিয়ে সন্তানকে কোলে নেন। এক পর্যায় সন্তানকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যেতে চাইলে তারা আপত্তি করেন।

এ নিয়ে বাকবিতণ্ডা শুরু হলে ছেলে ধরা বলে চিৎকার দেয় রিবুলের স্ত্রী শিরিন। মুহূর্তের মধ্যে স্থানীয় লোকজন ঘেরাও করে রিবুলকে। গণপিটুনি শুরুর আগেই রিবুল দৌড়ে আশ্রয় নেন সারিয়াকান্দি থানায়। পরে পুলিশ রিবুলের কাছে বিস্তারিত জানার পর আটক করে তিনজনকে।

আটককৃতরা হলেন- রিবুলের শ্বশুর সিফার ফকির (৫০), শাশুড়ি বিউটি বেগম (৪০) এবং স্ত্রী শিরিন আকতার (২০)।

সারিয়াকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'পারিবারিক ঝামেলা নিয়ে ছেলে ধরা গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

ঘরে ঢুকে শিক্ষিকাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

ঘরে ঢুকে শিক্ষিকাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা
ছবি: সংগৃহীত

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নে মুঞ্জুয়ারা বেগম (৪৫) নামের এক স্কুল শিক্ষিকাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) রাত সাড়ে ১১টার দিকে নাজিরপুর ইউনিয়নের গোপিনাথপুরে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মঞ্জুয়ারা বৃ-কাশো সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ছিলেন।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোজাহারুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তিনি জানান, মঙ্গলবার রাতে শিক্ষিকা মুঞ্জুয়ারা নিজ ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। এ সময় দুর্বৃত্তরা তার ঘরে প্রবেশ করে তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তার চিৎকার শুনে এগিয়ে এলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

ওসি আরও জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনার মোটিভ ও হত্যাকারী শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র