Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

নাটোরে বিলের টাকা পেতে রাস্তা গর্ত করলেন ইউপি সদস্য

নাটোরে বিলের টাকা পেতে রাস্তা গর্ত করলেন ইউপি সদস্য
অর্থ পেতে রাস্তায় গর্ত করে রাখলেন ইউপি সদস্য, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
নাটোর


  • Font increase
  • Font Decrease

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার পাকা ইউনিয়নের চকগোয়াশ এলাকায় ৬০ মিটার খানাখন্দে পূর্ণ রাস্তার কাজ শেষ। এখন অপেক্ষা বিল আদায় পূর্ববর্তী চূড়ান্ত পরিদর্শনের। কর্তৃপক্ষ সন্তুষ্ট হলেই মিলবে বিলের টাকা। তবে পরিদর্শনের অপেক্ষায় থেমে থাকছে না ওই রাস্তায় যানবাহন চলাচল। ফলে সদ্য সংস্কার করা ওই রাস্তাটি একটু একটু করে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া শুরু হয়েছে।

পরিদর্শনে বিলম্ব হলেও রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যেন বিল আদায় আটকে না যায় সেজন্য রাস্তার মাঝখানে গর্ত করে যান চলাচলই বন্ধ করে দিয়েছেন কাজের ঠিকাদার ও স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া।

মঙ্গলবার (১১ জুন) সন্ধ্যার পর সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের চারজন শ্রমিক দিয়ে রাস্তা খুঁড়ে প্রায় ৩ ফুট গর্ত করেন তিনি। আর এতেই থেমে যায় যান চলাচল। একজন ইউপি সদস্যের এমন কর্মকাণ্ডের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও ছড়িয়ে পড়েছে।

হঠাৎ রাস্তায় এমন গর্ত তৈরি হওয়ায় পায়ে হাঁটা ছাড়া কোনো যানবাহন নিয়ে চলাচলের অবস্থা না থাকায় দুর্ভোগে পড়েছেন আশেপাশের কয়েক গ্রামের মানুষ।

জানা যায়, সম্প্রতি এলজিএসপি প্রকল্পের আওতায় চকগোয়াশ কুলপাড়ায় ৬০ মিটার রাস্তার কাজ শেষ করেন ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া। রাস্তার কাজ শেষ হলেও চূড়ান্ত পরিদর্শনের অপেক্ষায় আছে রাস্তাটি। বিধি অনুযায়ী, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর কর্তৃপক্ষ চূড়ান্ত পরিদর্শন শেষ করে কাজ সন্তোষজনক ও শিডিউল মোতাবেক হয়েছে উল্লেখ করে রিপোর্ট দিলেই বিলের অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন ওই ইউপি সদস্য।

এদিকে, রাস্তা সংস্কারের পর খুলে দেয়া হলে যান চলাচল শুরু হয়। ফলে ভারী মালামাল বহনকারী গাড়িগুলোর কারণে রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে কর্তৃপক্ষ পরিদর্শনে এসে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা দেখে অসন্তুষ্ট হলে বিল উত্তোলন করতে পারবেন না এমন দাবি ওই ইউপি সদস্যের।

আর এমন ধারণা থেকেই নতুন রাস্তার শেষ দিকে যান চলাচল বন্ধ করতে প্রকল্পের চারজন শ্রমিককে দিয়ে রাস্তা খুঁড়ে প্রায় তিন ফুট গভীর গর্তের সৃষ্টি করেন ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া।

ইউপি সদস্য বাদশা মিয়া এমন কাণ্ডের কথা অকপটে স্বীকার করেছেন। বিল পেতে রাস্তার ব্যবহার বন্ধ নিয়ে দুঃখ প্রকাশও করেন তিনি।

এ ব্যাপারে ১নং পাঁকা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

আপনার মতামত লিখুন :

বগুড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুইজন নিহত

বগুড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুইজন নিহত
নিহত দুই ব্যক্তি, ছবি: সংগৃহীত

বগুড়ার দুপচাঁচিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুইজন ইলেক্ট্রিশিয়ান নিহত হয়েছেন।

বুধবার (২৬ জুন) সন্ধ্যা ৭টার দিকে দুপচাঁচিয়া উপজেলার মোস্তফাপুর বাজার এলাকায় এঘটনা ঘটে।

নিহতরা হচ্ছেন মোস্তফাপুর গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে আমিনুর রহমান (৩৮) ও একই এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে ইয়াছিন আলী (২৮)।

জানাগেছে, দুপচাঁচিয়া উপজেলার বড়কোল গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে এনামুলের বাসায় বৈদ্যুতিক মিটার স্থানান্তর করতে গিয়ে পল্লী বিদ্যুতের তারের সঙ্গে জড়িয়ে দুইজন গুরুতর আহত হয়। স্থানীরা তাদের উদ্ধার করে দুপচাঁচিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

দুপচাঁচিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। যার বাড়িতে কাজ করতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটেছে তিনি পলাতক রয়েছেন।’

বগুড়া পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি  উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) মনোয়ারুল  ইসলাম বার্তা ২৪.কমকে বলেন, ‘নিহত দুইজন পল্লীবিদ্যুতের কর্মী না। তারা কী কাজ করতে গিয়ে মারা গেছেন সে বিষয়ে তার জানা নেই।’

সাতক্ষীরায় পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগে ১১ লাখ টাকাসহ আটক ২

সাতক্ষীরায় পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগে ১১ লাখ টাকাসহ আটক ২
সাতক্ষীরা জেলার মানচিত্র, ছবি: সংগৃহীত

ঘুষ দিয়ে পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ লাভের চেষ্টা করার সময় সাতক্ষীরায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ জুন) রাতে অর্থ লেনদেনের সময় গোয়েন্দা পুলিশের একটি বিশেষ টিম ১১ লাখ টাকাসহ তাদের আটক করে। আটককৃতরা হলেন সাতক্ষীরা বল্লী এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে আসাদুজ্জামান, (ব্যবসায়ী) নারায়নপুর এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (পরীক্ষার্থী)।

সাতক্ষীরা সদরের বকচরা এলাকার মৎস্য অফিসের সামনে থেকে তাদের আটক করেছে বলে জানায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। 

পুলিশ সুপার সাজ্জাদুর রহমান জানান, পুলিশের নিয়োগ অনিয়মে সাতক্ষীরা জেলার সকলস্থানে মাইকিংসহ বিভিন্নভাবে জনসাধারণকে অবহিত করা হয়েছে। তার ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অবৈধ লেনদেনের সময় গোয়েন্দা পুলিশের একটি বিশেষ টিম বকচরা এলাকার মৎস্য অফিসের সামনে থেকে ১১ লাখ টাকাসহ পরীক্ষার্থী ও দালালসহ দুইজনকে আটক করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র