Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

লক্ষ্মীপুরে ১০ গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপন

লক্ষ্মীপুরে ১০ গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপন
লক্ষ্মীপুরে ১০ গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপন
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
লক্ষ্মীপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ৪০ বছর ধরে আগাম ঈদ উদপযাপন করছে লক্ষ্মীপুরের ১০টি গ্রামের হাজারো মানুষ।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল ১০ টায় জেলার রামগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ-পূর্ব নোয়াগাঁও ঈদগাহ ময়দানে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ইমামতি করেন মাওলানা আমিনুল ইসলাম খাঁন।

জানা গেছে, জেলার রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও, জয়পুরা, বিঘা, বারো ঘরিয়া, হোটাটিয়া, শরশোই, কাঞ্চনপুর ও রায়পুর উপজেলার কলাকোপাসহ ১০টি গ্রামের হাজারো মানুষ ঈদ আনন্দে মেতে উঠেছে। তারা পৃথকভাবে স্ব স্ব ঈদগাঁহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেন। সৌদির সঙ্গে মিল রেখে রোজাও রেখেছেন তারা। এখন আবার সৌদির সঙ্গে মিল রেখেই ঈদ করছে।

জানতে চাইলে মাওলানা আমিনুল ইসলাম জানান, এসব এলাকার মানুষ মাওলানা ইসহাক (রাঃ) এর অনুসারি। এজন্য পবিত্র ভূমি মক্কা ও মদিনার সঙ্গে মিল রেখে ঈদসহ সকল ধর্মীয় উৎসব পালন করেন তারা। গত ৪০ বছর ধরেই তারা সৌদিও সঙ্গে মিল রেখে সকল ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

আশ্রয়ের সন্ধানে ছুটছে বানভাসি মানুষ

আশ্রয়ের সন্ধানে ছুটছে বানভাসি মানুষ
আশ্রয়ের সন্ধানে ছুটছে বানভাসি মানুষ। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

গত এক সপ্তাহ ধরে গাইবান্ধার নদ-নদীগুলোতে হু হু করে বাড়ছে পানি। এতে প্রতিদিন প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। পানিতে ভাসছে ঘরবাড়ি। এ কারণে বানভাসি মানুষরা আশ্রয়ের সন্ধানে নানা দিকে ছুটছে।

বন্যার সার্বিক পরিস্থিতির অবনতি থাকায় ব্রহ্মপুত্র, ঘাঘট, যমুনা ও তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে সুন্দরগঞ্জ, সাঘাটা, ফুলছড়ি, সাদুল্লাপুর উপজেলা প্লাবিত হয়েছে। বন্যার পানিতে সেখানে স্থানীয়দের সহায় সম্বল ভেসে যাচ্ছে। নানা দুর্ভোগে পড়ে তাদের মধ্যে আহাজারি শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল পর্যন্ত গাইবান্ধা জেলার কয়েক লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। তারা ঘরবাড়ি হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/18/1563422497047.jpg

এদিকে পানিবন্দী এসব মানুষ পশুপাখি ও আসবাবপত্র নিয়ে একটু নিরাপদে থাকার উদ্দেশে বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে ছুটছে। অনেকে উঁচু রাস্তায় অস্থায়ী ঘর তুলে বসবাস করছে। এসব জায়গায় অনেকে স্থান না পেয়ে তাদের আত্মীয়-স্বজনের বাড়িসহ নৌকা বা কলাগাছের ভেলায় দিন-রাত কাটাচ্ছে।

ইতোমধ্যে বন্যা কবলিত মানুষদের স্বাস্থ্য, খাদ্য ও বাসস্থানসহ বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। সেই সঙ্গে প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ফসলহানি হয়েছে।

সাঘাটার ভরতখালি এলাকার আবুল হোসেন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, যমুনা নদীর পানিতে ঘরবাড়ি ডুবে গেছে। ঘরে থাকা কিছু আসবাবপত্র নিয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে যাচ্ছেন তিনি।

মোরশেদা বেগম নামে আরেক বানভাসি জানান, ঘরবাড়ি হারিয়ে এখন অন্যত্র আশ্রয় নেয়ার জন্য বের হয়েছেন।

গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক (রুটিন দায়িত্ব) রোখসানা বেগম জানান, পানিবন্দী মানুষদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র গড়ে তোলাসহ বিভিন্ন ধরনের সহায়তা করা হচ্ছে। দুর্গতদের ত্রাণ সামগ্রী মজুদ রয়েছে। যা বিতরণ চলমান থাকবে।

বন্যায় জামালপুরে সড়ক-রেল যোগাযোগ বন্ধ

বন্যায় জামালপুরে সড়ক-রেল যোগাযোগ বন্ধ
জামালপুরে বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়া সড়ক

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা ভারী বর্ষণে জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। যমুনার পানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বিপদসীমার ১৬৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

জেলার সাত উপজেলায় ৫৯টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে, বন্ধ হয়ে গেছে সড়ক ও রেল যোগাযোগ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ৫ সেন্টিমিটার বেড়ে বুধবার (১৮ জুলাই) সকালে বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে বিপদসীমার ১৬৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/18/1563421454478.jpg
জেলার ৫৯টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। সড়কগুলো পানিতে ডুবে যাওয়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর ও দুরমুট ,মেলান্দহ, তারাকান্দি রেলস্টেশন লাইনে পানি ওঠায় ট্রেন চলাচলও সাময়িক বন্ধ রয়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে বন্যা কবলিত এলাকার ৫৭০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বন্যা কবলিত অসহায় মানুষদের জন্য ৭শ’ ৫০ মে. টন চাল, ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার ও নগদ ১০ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। জেলায় ১৪টি মেডিকেল টিম নিয়োজিত আছে।

স্থানীয় যুব সমাজের উদ্যোগে রুকরাই এলাকায় খোলা হয়েছে লঙ্গরখানা। প্রতিদিন সেখানে বন্যা কবলিতদের এক বেলা করে খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র