Barta24

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ঈদ উপলক্ষে শিবগঞ্জে দুস্থদের মাঝে চাল বিতরণ

ঈদ উপলক্ষে শিবগঞ্জে দুস্থদের মাঝে চাল বিতরণ
দুস্থদের মাঝে চাল বিতরণ কার্যক্রম চলছে, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
চাঁপাইনবাবগঞ্জ


  • Font increase
  • Font Decrease

পবিত্র ঈদ উল ফিতর উদযাপন উপলক্ষে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় হতে বরাদ্দকৃত চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের ৪১ হাজার ২৫৫ অসহায় দুস্থ পরিবারের মাঝে সোয়া ৬ লাখ কেজি চাল বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ মে) দুপুরে নয়ালাভাঙা ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে চাল বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নয়ালাভাঙা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নয়ালাভাঙা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাকুল ইসলাম পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান এডু, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম ও রানীহাটি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আবুল বাসারসহ অন্যরা। 

জানাগেছে, শিবগঞ্জ পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নে ৪ হাজার ৫২টি, দাইপুখুরিয়ায় ৩ হাজার ১৮টি,  মোবারকপুরে ২ হাজার ৩০৫টি, চককীর্তি ইউনিয়নে ২ হাজার ৮১৯টি, কানসাটে ৩ হাজার ৪২টি, শ্যামপুরে ৩ হাজার ১১১টি, বিনোদপুরে ৩ হাজার ১৬৩টি, মনাকষায় ৪ হাজার ৫০টি, দূর্লভপুরে ৪ হাজার ২৩৯টি, উজিরপুরে ৭৩৫টি, পাঁকায় ১ হাজার ৬৬১টি, ঘোড়াপাখিয়ায় ১ হাজার ৩০৫টি, ধাইনগরে ২ হাজার ৯৮৫টি, নয়ালাভাঙায় ৩ হাজার ২১২টি ও ছত্রাজিতপুরে ১ হাজার ৫৫৮টি কার্ড বরাদ্দ দেয়া হয়।

সেই হিসাবে শিবগঞ্জ উপজেলার  ১৫টি ইউনিয়নের জন্য ৬ লাখ ১৮ হাজার ৮২৫ কেজি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

পঞ্চগড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ বাবার মৃত্যু

পঞ্চগড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ বাবার মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত

পঞ্চগড়ে সদর উপজেলার হাফিজাবাদ এলাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুই ছেলেসহ বাবার মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২০ জুলাই) সন্ধ্যায় হাফিজাবাদ ইউনিয়নে পানিমাছ পুকুরী মাহানপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- পানিমাছ পুকুরী মাহানপাড়া এলাকার আইজুদ্দীনের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৬৩) এবং তার দুই ছেলে নাজিরুল ইসলাম (৩৬) ও আশাদুল (২২)।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বাড়ির পাশে একটি খালে কারেন্ট জাল বসিয়েছিলেন নাজিরুল। কিন্তু বৈদ্যুতিক তার পানিতে পড়ে যাওয়ায় জাল তুলতে গেলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন তিনি। ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে তার বাবা শহিদুল ইসলাম পানিতে নামলে তিনিও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এরপর নাজিরুলের ছোট ভাই আশাদুল তার বড় ভাই ও বাবাকে উদ্ধার করতে পানিতে নামলে তিনিও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আহত হন।

পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় দুই ছেলেসহ বাবাকে আহত অবস্থায় পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের তিন জনকে মৃত ঘোষণা করেন।

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু আক্কাস আহম্মেদ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান' এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।

রায়পুরায় ডাকাতের গুলিতে গরু ব্যবসায়ী নিহত, গুলিবিদ্ধ ২

রায়পুরায় ডাকাতের গুলিতে গরু ব্যবসায়ী নিহত, গুলিবিদ্ধ ২
নিহত গরু ব্যবসায়ীর মরদেহ, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

নরসিংদীর রায়পুরার ডাকাতের গুলিতে মোন্তাজ উদ্দিন ( ৪০) নামে এক গরু ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছের আরও দুই গরু ব্যবসায়ী।

শনিবার (২০ জুলাই) রাতে উপজেলার নিলক্ষা ইউনিয়নে চংপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদেরকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়, পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় পাঠানো হয়।

নিহত মোন্তাজ উদ্দিন রায়পুরার আব্দুল্লাহপুর গ্রামের সাধু মিয়ার ছেলে। আহতরা হলেন চরসুবুদ্ধি গ্রামের আসাদ মিয়া (৩০) ও রায়পুরায় বাহেরচর গ্রামের মানিক (৩৫)।

রায়পুরা থানা পুলিশ জানায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সলিমগঞ্জ বাজারের সাপ্তাহিক গুরুর হাট বসে। হাটে রায়পুরার নিলক্ষাসহ বিভিন্ন উপজেলার গরু ব্যবসায়ীরা গরু নিয়ে সলিমগঞ্জ বাজারে যায়। হাটে বেচাকেনা শেষে শনিবার রাতে গরু ব্যবসায়ীরা নৌকা যোগে নিলক্ষা আসছিলেন।

ব্যবসায়ীদের নৌকাটি নিলক্ষায় চরমধুয়া এলাকায় পৌঁছলে পেছন থেকে একটি স্পিডবোট নিয়ে ডাকাতরা তাদের ধাওয়া করেন। ওই সময় তারা জীবন বাঁচাতে নিলক্ষার চংপাড়া এলাকায় নৌকা ভিড়িয়ে নামার চেষ্টা করে। এ সময় ডাকাতরা ব্যবসায়ীদের লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। ডাকাতের ছোড়া গুলি গরু ব্যবসায়ী মোন্তাজ উদ্দিনের মাথায় বিদ্ধ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

ডাকাতদের ছোড়া গুলিতে চরসুবুদ্ধি গ্রামের আসাদ মিয়া ও রায়পুরায় বাহেরচর গ্রামের মানিক মিয়া নামে আরও দুই গরু ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়। এ সময় তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ডাকাতদের ধাওয়া করে। পরে ডাকাতদল পালিয়ে যায়।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) মহসিনুল কাদির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘ডাকাতদের ছোড়া গুলিতে ঘটনাস্থলেই একজন নিহত হয়। পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ও পরে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় পাঠায়।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র