Alexa

ঠাকুরগাঁওয়ে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা

ঠাকুরগাঁওয়ে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা

চলছে ঈদের কেনাকাটা, ছবি: বার্তা২৪.কম

আর কয়েকদিন পরেই পবিত্র ঈদুল ফিতর। রোজার মাঝা-মাঝিতে এসে ঠাকুরগাঁওয়ে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা।

সারাদিনের কাজ শেষে রাতে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মার্কেটে যাচ্ছেন ক্রেতারা। ক্রেতার চাপ থাকায় দম ফেলার সময় নেই যেন বিক্রেতাদের।

শনিবার (২৫ মে) রাতে শহরের চৌরাস্তায় গেলে এমন দৃশ্যই চোখে পড়ে। এদিকে, ঈদকে সামনে রেখে ছিনতাইসহ অন্যান্য অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড ঠেকাতে মার্কেটগুলোতে সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে পুলিশের বিশেষ টিম, নারী পুলিশ টিম প্রতিনিয়ত দিচ্ছে টহল।

অপরদিকে, এখনও ঈদের বেশ কয়েকদিন বাকি থাকায় সামনের দিকে ব্যবসায় আরো লাভ হবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ীরা।

ছেলেকে নিয়ে চৌড়াস্তায় ঈদের কেনাকাটা করতে এসেছেন আঁখি বেগম। তিনি বার্তা২৪.কমকে জানান, এখনও মার্কেটে খুব একটা ভিড় নেই। রোজার প্রথম দিকেই শপিং শুরু করেছি। আজ বাচ্চার জন্য প্যান্ট আর শার্ট নিলাম। দাম খুব একটা বেশি না।

আরেক ক্রেতা রফিকুল বলেন, সারাদিন ব্যস্ত থাকি, তাই রাতেই এসেছি পরিবার নিয়ে এসেছি শপিং করতে। একটু আগে থেকেই এবারে কেনাকাটা শুরু করেছি। কাপড়ের দাম খুব একটা বেশি না।

শহরের মাসুদ হাইটস মার্কেটে পাঞ্জাবি নিতে এসেছেন সৈয়দ সিহাব নামে এক ক্রেতা। তিনি জানান, এবার পাঞ্জাবিগুলো ভালোই এসেছে। একটি পাঞ্জাবি নিলাম। আরো ঘুরে ঘুরে দেখছি।

কথা হয় কাপড় ব্যবসায়সী ঘোমটার প্রোপ্রাইটর জনির সঙ্গে। তিনি বার্তা২৪.কমকে বলেন, বাজারে অনেক ক্রেতাই আসছেন। বেচা কেনা হচ্ছে ভালো। তবে ঈদের এখনও কিছুদিন বাকি রয়েছে। আশা করছি, এবার ব্যবসা ভালো হবে।

shopping
চলছে ঈদের কেনাকাটা, ছবি: বার্তা২৪.কম

 

আরেক ব্যবসায়ী শাহিন বার্তা২৪.কমকে জানান, ঈদ উপলক্ষে এবার ছেলেদের জন্য শার্ট, প্যান্ট, টি-শার্ট, পাঞ্জাবিসহ বিভিন্ন ধরনের পোশাক ওঠানো হয়েছে। বেচাকেনাও ভালো হচ্ছে। আশা করি, ঈদ আসার আগে আমাদের বেচাকেনা আরো বাড়বে।

ঠাকুরগাঁওয়ের পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান জানান, নিরাপত্তার স্বার্থে শপিং সেন্টাগুলোতে পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। ক্রেতা-বিক্রেতারা যাতে কোনো সমস্যায় না পড়েন, সে জন্য পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সিভিল পুলিশের টিম মোতায়ন করেছি। তারা মার্কেটগুলোতে টহল দিচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :