Alexa

ধূর্ত অঞ্জনা, ভাতের হাঁড়ির নিচে ফেনসিডিল

ধূর্ত অঞ্জনা, ভাতের হাঁড়ির নিচে ফেনসিডিল

গ্রেফতারকৃত অঞ্জনা। ছবি: বার্তা২৪.কম

পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ফেনসিডিল ব্যবসা করে আসছিল তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী অঞ্জনা বেগম। তবে অঞ্জনা এতটাই ধূর্ত যে পুলিশ তাকে হাতেনাতে ফেনসিডিলসহ ধরতে পারছিল না। বাড়ি-ঘর তল্লাশি করেও পাওয়া যায়নি ফেনসিডিল।

তবে পুলিশ কিন্তু হাল ছাড়েনি। এক পর্যায়ে পুলিশ সন্ধান পায় ভাত-তরকারি রাখার মিটসেফ এবং টেলিভিশন রাখার টেবিলে বিশেষ কায়দায় বক্স বানিয়ে তাতে রাখা হয়েছে ফেনসিডিলের বোতল। আর সেখান থেকেই খুচরা ক্রেতাদের কাছে ফেনসিডিল বিক্রি করে আসছিল অঞ্জনা।

বগুড়া শহরের আটাপাড়া এলাকায় একটি বিল্ডিংয়ের ৩য় তলায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে অঞ্জনা ও তার স্বামী রবিউল ইসলাম। রোববার (১৯ মে) রাত ১২টার পর ফুলবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে তার বাসায় অভিযান চালানো হয়। ওই সময় পুরো বাড়ি তছনছ করে ফেনসিডিলের সন্ধান পাচ্ছিল না পুলিশ।

ফিরে আসার আগ মুহূর্তে ভাত-তরকারি রাখার মিটসেফ খুলে দেখতে পায় নিচের দিকে একটি বক্স। ভাতের হাঁড়ি সরাতেই তার নিচে বক্স থেকে বেরিয়ে আসে একের পর এক ফেনসিডিলের বোতল। এরপর টেবিল থেকে টেলিভিশন সরিয়ে সেখানেও সন্ধান পাওয়া যায় বিশেষ বক্সের। সেই বক্স থেকেও পাওয়া যায় ফেনসিডিল। পরে পুলিশ অঞ্জনাকে গ্রেফতার করে এবং তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে ৪৫ বোতল ফেনসিডিল।

পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম বার্তা২৪.কমকে জানান, অঞ্জনা ও তার স্বামী দু’জনেই মাদক ব্যবসায়ী। এর আগেও তারা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছিল। রোববার রাতে অভিযানের সময় অঞ্জনার স্বামী রবিউল বাসায় ছিল না।

তিনি আরও জানান, একজন ফেনসিডিলসেবীর কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের সূত্র ধরে অঞ্জনার বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ ব্যাপারে বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :