Alexa

পাহাড়ে আ'লীগের দুই নেতাকর্মীকে হত্যা: বিরাজ করছে আতঙ্ক

পাহাড়ে আ'লীগের দুই নেতাকর্মীকে হত্যা: বিরাজ করছে আতঙ্ক

ছবি: প্রতীকী

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে ক্ষমতাসীন দলের এক নেতার ভাইকে গুলি করে হত্যার পর ২৪ ঘন্টা না পেরোতেই রাঙামাটিতে যুবলীগ নেতাকে ঘরে ঢুকে গুলিতে হত্যা করেছে জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সন্ত্রাসীরা।

রোববার (১৯ মে) দিবাগত রাতে রাঙামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলাধীন বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে আঞ্চলিক দলীয় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ক্রে হলা চিং মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে।

পার্শ্ববর্তী দুটি জেলায় ক্ষমতাসীন দলের দুই নেতাকর্মীকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় আওয়ামী লীগের উপজাতীয় নেতাকর্মীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ঞোমং মারমা হত্যাকাণ্ডের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ধারণা করা হচ্ছে জেএসএস এর সদস্যরাই তাকে হত্যা করেছে।

আরও পড়ুন: রাঙামাটিতে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

তিনি জানান, নিহত যুবলীগ নেতা নিজ ঘরেই অবস্থান করছিলো। সন্ত্রাসীরা সশস্ত্র অবস্থায় এসে গুলি করে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে চলে যায়। পরবর্তীতে ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী ও পুলিশের টিম গেছে বলেও জানান তিনি।

স্থানীয়রা সূত্রে জানা গেছে, নিহত যুবলীগ নেতাকে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় থেকেই মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিল আঞ্চলিক সংগঠন জেএসএস নামধারী একদল সন্ত্রাসী। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় তাকে একবার একবার অপহরণ করে নিয়ে গেছিলো বলেও জানিয়েছে স্থানীয় একটি সূত্র।

চন্দ্রঘোনা থানার অফিসার ইনচার্জ আশরাফ জানিয়েছেন, আমরা ঘটনাটি শুনেই ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিমকে পাঠিয়েছি। তারা ফিরে আসলে ঘটনার বিস্তারিত জানানো যাবে।

এর আগে মাত্র ২৩ ঘণ্টা আগে পার্বত্য জেলা বান্দরবানে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে একজনকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। শনিবার রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে সদর উপজেলার রাজবিলা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ৮নং রাবার বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম ক্য চিং থোয়াই (২৬)। সে রাজবিলা ইউনিয়নের আ'লীগের সহ-সভাপতি চাই পা অং এর ভাই।

প্রসঙ্গত, গত ৯ মে ওই এলাকায় সন্ত্রাসীরা জনসংহতি সমিতির সমর্থক জয় মনি তঞ্চঙ্গ্যাকে গুলি করে হত্যা করে। এর আগে গত ৭ মে সন্ত্রাসীরা জনসংহতি সমিতির কর্মী বিনয় তঞ্চঙ্গ্যাকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ছাড়া অপহরণ করা হয় পুরাধন তঞ্চঙ্গ্যা নামের অপর এক কর্মীকে, এখনও তার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। এদিকে সম্প্রতি ঐ এলাকায় একের পর এক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক ও উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

আপনার মতামত লিখুন :