Barta24

শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

English

আগুনে নাটোরের গুদাম, দোকান ও বাড়ি পুড়ে ছাই

আগুনে নাটোরের গুদাম, দোকান ও বাড়ি পুড়ে ছাই
আগুনে পুড়ে গেছে নাটোরে গুদাম, দোকান ও বাড়ি, ছবি: বার্তা২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
নাটোর


  • Font increase
  • Font Decrease

নাটোরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৪টি গুদাম, ৩টি দোকান ও ৬টি বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার (১৬ মে) দিবাগত রাত আড়াইটায় শহরের স্টেশন বাজার রেলগেট এলাকায় এ আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। প্রায় দুই ঘন্টা চেষ্টার পর ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

অগ্নিকাণ্ডে স্থানীয় ব্যবসায়ী শামসুর রহমান ও জুয়েল হোসেনের ১টি, নাসির উদ্দীনের ২টি ও কালু মিয়ার ১টি গুদাম সম্পূর্ণ ভষ্মীভূত হয়েছে। এসব গুদামে আম বাজারজাতকরণের জন্য প্লাস্টিকের ক্যারেট (ঝুড়ি) ও কাগজের কার্টুন মজুদ ছিল। এছাড়া গুদাম সংলগ্ন ৬টি বাড়ি ও ৩টি দোকান সম্পূর্ণ ভষ্মীভূত হয়েছে।

নাটোর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী উপ-পরিচালক আসাদুজ্জামান জানান, রেলস্টেশন সংলগ্ন ওই এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে ৪টি গুদামে রাখা কার্টুন ও গুদামসংলগ্ন ৬টি বাড়িত ও ৩টি দোকানে ভষ্মীভূত হয়েছে। তবে আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি।

ক্ষতিগ্রস্ত গুদাম মালিক জুয়েল রানা ও কালু মিয়া জানান, গুদামগুলোতে আম বাজারজাতকরণের উপকরণ রাখা ছিল যা সম্পূর্ণ ভষ্মীভূত হয়েছে। এতে প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তদের হাতে যুবক খুন

নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তদের হাতে যুবক খুন
নারায়ণগঞ্জ জেলার ম্যাপ, ছবি: সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় সোলেমান হোসেন অপু (২৮) নামের এক যুবক খুন হয়েছেন। দুর্বৃত্তরা তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) রাত ৮টায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহত অপু বাবুরাইল এলাকার আজিজ মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া রমজান মিয়ার ছেলে।

পরিবারের লোকজন জানান, অপু বাবুরাইল এলাকার একটি ডেকোরেটরের দোকানে বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি হিসেবে কাজ করতেন। শুক্রবার রাতে বাসা থেকে বের হয়ে তাতীপাড়া এলাকায় গেলে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে ছুরিকাঘাত করে বলে জানায় প্রত্যক্ষদর্শীরা। পরে তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তার মৃত্যু ঘটে।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, কী কারণে কারা তাকে হত্যা করেছে সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে পরিবারের লোকজন কোনো ক্লু জানাতে পারেনি। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।

কৃষকের গুপ্তধন 'বইকচু'

কৃষকের গুপ্তধন 'বইকচু'
বইকচু চাষি, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার সবজি ভাণ্ডার হিসেবে পরিচিত ধাপেরহাট এলাকা। এই এলাকার ফসলি জমিতে বিভিন্ন সবজির পাশাপাশি চাষ করা হয় 'বইকচু'। এবার বইকচুর অধিক ফলন ও আশানারূপ দাম পাওয়ায় এ কচু যেন গুপ্তধনে পরিণত হয়েছে। কৃষকের মাঝে দেখা গেছে হাসির ঝিলিক।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট)  সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার ধাপেরহাট ইউনিয়নের ইসলামপুরস্থ গাছতলায় বসে ছকিনা বেওয়া, আজিরণ বিবি ও মরিয়ম বেগমসহ অনেকেই কচু পরিষ্কার করছেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566571246512.jpg

 

তারা বলেন, আমরা সবাই শ্রমিক হিসেবে কাজ করছি। এক মণ কচু পরিষ্কার করলে ১৫০ টাকা মজুরি পাওয়া যায়। প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই মণ কচু পরিষ্কার করে সন্তোষজনক হারে আয় করা যায়। তবে কচুর দাম কম হলে মজুরির দামও কম হয় বলে জানান তারা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566571271611.jpg

 

ছত্রগাছা গ্রামের কৃষক আকবর আলী জানায়, ধাপেরহাট এলাকায় আলু, পটল, করল্লা ও হলুদসহ বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলে চাষ করা হয়েছে বইকচু। গত বছরের তুলনা এবার কচুর চাষাবাদ অনেকটাই বেড়েছে। ফলনও হয়েছে বাম্পার। বাজারে বেড়ে গেছে কচুর কদর। এর ফলে কচু আবাদ করে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়া সম্ভব হচ্ছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566571349829.jpg

 

আলীনগর গ্রামের আরেক কচু চাষি ফরিদুল ইসলাম জানান, একবিঘা (৩৩ শতক) জমিতে কচু আবাদে খরচ হয় প্রায় ১০-১২ হাজার টাকা। যা থেকে প্রায় ৬০-৬৫ মণ কচু উৎপাদন করা যায়। এবারে উৎপাদিত কচু পাইকারি বিক্রি হচ্ছে প্রায় ১ হাজার টাকা মণ দামে। আশানারূপ দাম পাওয়ায় অনেকটাই লাভবান হচ্ছি।

সাদুল্লাপুর উপজেলা কৃষি অফিসার খাজানুর রহমান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, কচুর মধ্যে রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। তাই কচু চাষ করার জন্য কৃষকদের উৎসাহিত করা হয়। এবার কচুর দাম ভাল থাকায় কৃষকরা বেশ লাভবান হচ্ছেন। 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র