Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

চোরাবালিতে তলিয়ে যাওয়া শিশুর লাশ উদ্ধার

চোরাবালিতে তলিয়ে যাওয়া শিশুর লাশ উদ্ধার
ছবি: প্রতীকী
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
নেত্রকোনা


  • Font increase
  • Font Decrease

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় সোমেশ্বরী নদীতে নেমে নিখোঁজ হওয়া শিশু সাকিবুল হাসান সাকিবের (৫) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) সকালে নিখোঁজ হয় সাকিব। বিকেলে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

সাকিব দুর্গাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের মুজিবনগর আবাসন গ্রামের সুজন মিয়ার ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, সকাল ১০টার দিকে পানি কম থাকায় সোমেশ্বরী নদীতে নামে শিশু সাকিব। এ সময় নদীর প্রবল স্রোতে চোরাবালিতে তলিয়ে যায় সে। পরে শিশুটিকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যাচ্ছিল না। এরপর বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ময়মনসিংহ থেকে আসা ডুবুরি প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে সাকিবের লাশ উদ্ধার করে।

দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

২০০ যাত্রী নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বনলতা এক্সপ্রেসের প্রথম যাত্রা

২০০ যাত্রী নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বনলতা এক্সপ্রেসের প্রথম যাত্রা
চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বনলতা এক্সপ্রেসের যাত্রার প্রথম দিনে যাত্রীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসি ইসলাম জেসি/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

 

২০০ জন যাত্রী নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে প্রথম যাত্রা করেছে বিরতিহীন ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেস। ভোর ৫ টা ৫০ মিনিটে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে যায় ট্রেনটি।

বনলতা এক্সপ্রেসের মাধ্যমে চালু হলো প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে সরাসরি ট্রেন যোগাযোগ। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) ট্রেনটি ছাড়ার আগে স্টেশনে গিয়ে যাত্রীদের ফুলের শুভেচ্ছা জানান সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসি ইসলাম জেসি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/18/1563431043305.jpg

চাঁপাইনবাবগঞ্জের স্টেশন মাস্টার মনিরুজ্জামান মনির জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের জন্য বনলতা এক্সপ্রেসে আসন বরাদ্দ ২৬৪ টি। প্রথম যাত্রায় এসি, নন এসি মিলিয়ে যাত্রী ছিলেন ২০০। ট্রেনটি রাজশাহীতে বিরতি নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে।

তবে বেশ কয়েকজন যাত্রী অভিযোগ করে বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশন হতে ৮০টি টিকিটি বরাদ্দ থাকলেও কাউকে এসি টিকিট দেয়া হয়নি।  বেলা ১ টা ৩০ মিনিটে আবারো ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে ট্রেনটি।

শুক্রবার বন্ধ দিয়ে সপ্তাহে ছয়দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকা রুটে চলবে বনলতা এক্সপ্রেস।

ম্যাসাজ পারলারের আড়ালে অবৈধ কর্মকাণ্ড

ম্যাসাজ পারলারের আড়ালে অবৈধ কর্মকাণ্ড
অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলার। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

পর্যটন নগরী কক্সবাজারে ক্রমেই বেড়ে চলেছে ম্যাসাজ পারলার। এসব পারলারের আড়ালে চলছে অনৈতিক ও অসামাজিক কর্মকাণ্ড। অভিযোগ আছে এই ধরনের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সুযোগ দিয়ে মোটা অংকের অর্থ মাসোহারা তুলছে এক শ্রেণির প্রভাবশালী।

কক্সবাজার হোটেল-মোটেল জোনের হুয়াইট বিচ হোটেলের তৃতীয় তলায় গড়ে উঠেছে অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলার। এছাড়া ওশান প্যারাডাইজ হোটেলের বিপরীত দিকে গড়ে উঠেছে আরও একটি ম্যাসাজ পারলার। কিন্তু এসব পারলারের ভেতরে ম্যাসাজের বদলে চলছে অবৈধ কর্মকাণ্ড।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, এসব পারলারে অনুমোদনের জন্য আবেদন করলেও তাদের পরিবেশ ভালো না থাকায় অনুমতি দেয়া হয়নি। তারপরও তারা স্থানীয় প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের হাত করে এসব পারলারে অবৈধ কর্মকাণ্ড চলমান রেখেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাইরে থেকে ভেতরের পরিবেশ অনুমান করা খুবই কঠিন। ভেতরে প্রবেশ করলেই চোখে পড়বে ছিমছাম পরিপাটি সেলুন। অথচ এর মধ্যে চলছে ভয়ংকর অনৈতিক কর্মকাণ্ড। স্কুল-কলেজের উঠতি বয়সী ছেলেরাসহ যুব-সমাজের একটি বড় অংশ এদের কাস্টমার। সেখানে দেখা মিলে ম্যাসাজের দায়িত্বে থাকা সুন্দরী রমণীদের। যাদের দেখে বোঝার উপায় নেই তারা কী পতিতা নাকি অন্যকিছু।

একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র বলছে, শুধু স্কুল-কলেজ পড়ুয়ারাই নয়, আড়ালে এ ম্যাসাজ পারলারে আসে ইয়াবা গডফাদাররাও। তারা এখানে এসে আত্মগোপনে থাকে। আর এসব ম্যাসাজ পারলারের মালিকরা মোটা অংকের টাকার লাভে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এ কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে।

অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলারের কাস্টমার রাশেদ জানান, তিনি একজন ছাত্র। কক্সবাজারের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন। মাঝে মধ্যে এখানে আসেন শরীর ম্যাসাজ করাতে।

অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলারে কাজ করেন এমন একজনের নাম মিষ্টি (ছদ্মনাম)। তিনি জানান, মাসিক ১৫ হাজার টাকা বেতনে চাকরি করেন তিনি। তবে তিনি কী ধরনের ম্যাসাজ করেন সে ব্যাপারে প্রতিবেদকের প্রশ্নের উত্তরে চুপ হয়ে যান।

অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলারের পাশের ফ্ল্যাটের একজন জানান, এখানে অনৈতিক কাজ হয়, তা সবাই জানে। কিন্তু প্রশাসন তাদের কিছু বলে না। অসামাজিক এসব পারলার থেকে প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা মোটা অংকের মাসোহারা নিয়ে তাদের সুযোগ করে দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজারের সাবেক এনডিসি লুৎফর রহমান সোহাগ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘আমি দায়িত্বে থাকতে অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ কর্তৃপক্ষ অনুমোদনের জন্য আবেদন করে। কিন্তু তাদের পরিবেশ ভালো না থাকায় এবং অবৈধ কর্মকাণ্ডের অভিযোগে অনুমোদন দেয়া হয়নি।’

মোবাইলে এসব বিষয়ে অ্যাঞ্জেল টাস ম্যাসাজ পারলারের ম্যানেজার সাজু বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘আমাদের জেলা প্রশাসনের সব অনুমোদন রয়েছে। আপনি এসে দেখে যান।’ পরে সেখানে গেলে কিছুই দেখাতে পারেননি তিনি। বরং আর্থিকভাবে এ প্রতিবেদককে ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন।

এ বিষয়ে কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. আশরাফুল আবছার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত নই। খোঁজ-খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র