Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

বাঘাইছড়িতে অস্ত্র ঠেকিয়ে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা, আটক ২

বাঘাইছড়িতে অস্ত্র ঠেকিয়ে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা, আটক ২
অস্ত্র ঠেকিয়ে চাঁদা আদায়কালে আটক দুই ইউপিডিএফ সদস্য/ ছবি: বার্তা২৪
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট রাঙামাটি বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে অস্ত্র দেখিয়ে চাঁদা আদায়ের সময় দুই সন্ত্রাসীকে আটক করেছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। আটককৃতরা পার্বত্য চুক্তি বিরোধী সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) সক্রিয় কর্মী বলে জানিয়েছেন খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের মেজর পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তা।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুর আড়াইটার দিকে উপজেলার শুকনাছড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে দুটি বিদেশি অস্ত্র ও নগদ ২৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- জেলার দীঘিনালা উপজেলার ৩নং কবাখালী ইউনিয়নের ক্ষেত্রপুরের সুদ্দজয় চাকমা (৪০) এবং একই উপজেলার ছোট মেরুং এলাকার রিফেল চাকমা (২৫)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনই শুকনাছড়ি এলাকায় প্রকাশ্য দিবালোকে রাস্তার উপর দাঁড়িয়ে চলাচলকারী ব্যবসায়ী-পর্যটকসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে আসছে ইউপিডিএফ গ্রুপের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। বিষয়টি নিরাপত্তা বাহিনীকে অবহিত করেন স্থানীয় ভূক্তভোগী পাহাড়ি বাসিন্দারা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/25/1556191290616.jpg

এমন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে প্রকাশ্যে চাঁদা আদায়কালে শুকনাছড়ি বাজারে বাঘাইহাট জোনের একদল সেনাসদস্য ইউপিডিএফ’র সদস্যদের চ্যালেঞ্জ করলে তারা সেনা সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে। আত্মরক্ষার্থে সেনা সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে এবং ধাওয়া করে আরও একজনকে আটক করে। তাদের কাছ থেকে একটি অত্যাধুনিক বিদেশি পিস্তল ও দেশীয় একটি এলজিসহ ২৬ হাজার নগদ টাকা উদ্ধার করে।

আটককৃতদের সংশ্লিষ্ট্য থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কর্তৃপক্ষ।

আপনার মতামত লিখুন :

ঘুরে আসুন সাগরের তলদেশ থেকে!

ঘুরে আসুন সাগরের তলদেশ থেকে!
পটকা জাতীয় সামুদ্রিক মাছ, ছবি: বার্তা২৪

চলার পথে চারপাশে ঘুরছে নানা প্রজাতির মাছ। যার মধ্যে হাঙর ও পিরানহাও আছে। এর মধ্য দিয়েই হেঁটে চলেছেন পর্যটকরা। পর্যটকদের অ্যাডভেঞ্চার ভ্রমণ বিনোদন দিতে সাগরের তলদেশের আদলে দেশে প্রথমবারের মতো গড়ে উঠেছে রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ড, যা কক্সবাজারের পর্যটন শিল্পে সংযোজন করেছে নতুন মাত্রা। ফলে ছুটিতে যে কেউ ঘুরে আসতে পারেন এই কৃত্রিম সাগর তলদেশ থেকে।

জানা গেছে, মালয়েশিয়ার প্রকৌশলীদের সহায়তায় কক্সবাজারে নির্মাণ করা হয়েছে আন্তর্জাতিক মানের এই অ্যাকুরিয়াম। নির্মাণে সময় লেগেছে দুই বছর। ২০১৭ সালে এই অ্যাকুরিয়াম উদ্বোধন করা হয়। এটি শুধু কক্সবাজারের জন্য নয়, বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পে বড় ভূমিকা রাখছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555737557.JPG

অ্যাকুরিয়ামে বঙ্গোপসাগর থেকে নানান প্রজাতির সামুদ্রিক মাছ সংরক্ষণ করা হয়েছে। যাদের মধ্যে অচেনা ও বিলুপ্তপ্রায় অনেক মাছও রয়েছে। সাগরের বিলুপ্ত মাছ বিভিন্ন প্রাণী সংরক্ষণে একটি জাদুঘরও করা হচ্ছে। এটা শুধু বিনোদনের জন্য নয়, সাগরের জীববৈচিত্র ও প্রাণী সম্পর্কে জানার শিক্ষাকেন্দ্র বলেও মনে করেন পর্যটকরা।

সিলেট থেকে আসা আরিফুল ইসলাম বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘আগে অনেকের মুখে এ অ্যাকুরিয়ামের কথা শুনেছি। কিন্তু আজ বাস্তবে দেখলাম। এখান থেকে জীববৈচিত্র ও নানান প্রজাতীর প্রাণি সম্পর্কে অনেক কিছু শেখার আছে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555757095.JPG

নড়াইল থেকে আসা মুরাদ হোসেন বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘অ্যাকুরিয়ামে প্রবেশের সময়ই মনে হয়েছে গুহায় প্রবেশ করছি। কিন্তু ভেতরে আসার পর সেটা অনেকটা সাগরের তলদেশের মতো। উপরে নিচে পানি আর পানি। আর সেই পানিতে খেলা করছে নানান প্রজাতির মাছ।’

ঢাকা থেকে আসা আরিফা ইসলাম রাখি বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘এক সঙ্গে এতো প্রজাতীর মাছ আমরা আগে কখনো দেখিনি। অ্যাকুরিয়ামটা আসলে খুবই সুন্দর। সাগরের তলদেশের আদলে তৈরি করায় সেখানে পাহাড় ও উঁচু-নিচু পথ আছে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555773332.JPG

অ্যাকুরিয়ামে রাখা হয়েছে সামুদ্রিক শৈল মাছ, হাঙর, পিতম্বরী, আউস, শাপলা, পাতা, সাগর কুচিয়া, বোল, পানপাতা, পাংগাস, চেওয়া, কাছিম, কাঁকড়া, জেলি ফিসসহ অর্ধশতাধিক প্রজাতির মাছ। কিছু বিরল প্রজাতির মাছও এখানে রয়েছে।

কক্সবাজার রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) শফিকুর রহমান চৌধুরী বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘ধীরে ধীরে পরিচিতি লাভ করছে রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ড। মাছও যে একটা বিনোদন উপাদন হতে পারে সেটা আমাদের দেশের মানুষের আগে জানা ছিল না। আশা করছি, সামনে দেশের পর্যটন শিল্পে এটা বড় অবদান রাখতে পারবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561555797532.jpg

তিনি আরও বলেন, ‘কক্সবাজারে প্রতি বছর লাখ লাখ পর্যটক আসেন। তবে যারা রেডিয়েন্ট ফিস ওয়ার্ল্ডের কথা জানেন তারা এখানে আসেন। এখানে নিরাপত্তাসহ গাড়ি পার্কিংয়ের সু-ব্যবস্থা আছে।’

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় চালক নিহত

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় চালক নিহত
ছবি: বার্তা২৪.কম

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে সিএনজি চালিত অটোরিকশা ও ব্যাটারি চালিত অটো রিকশার সংঘর্ষে এক চালক নিহত হ‌য়ে‌ছেন। এ ঘটনায় আহত হ‌য়ে‌ছেন আরও পাঁচজন। নিহত চালক আব্দুর রাজ্জাক (৩৫) গোপালপুর উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বর্শিলা গ্রামের ভাজন আলীর ছেলে।

বুধবার (২৬ জুন) দুপুরে টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর সড়কের উপজেলার ফুলতলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গে‌ছে, দুর্ঘটনায় নিহত চালকের মুখ থেঁতলে যাওয়ায় লাশের পরিচয় শনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়ে।

জানা যায়, নিহত ব্যক্তি উপজেলার নারান্দিয়া গ্রা‌মের বারু মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক সাগর। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সাগরের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে আসে। পড়ে স্থানীয়রা জানতে পারেন এটি সাগর নয় রাজ্জাকের মরদেহ।

কালিহাতী থানার উপপ‌রিদর্শক (এসআই) ওহাব মিয়া বলেন, 'লাশের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর নিহত চালক আব্দুর রাজ্জাকের পরিবারের সদস্যরা সাগরদের বাড়ি থেকে লাশটি নিয়ে গে‌ছে।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র