Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

কৃষকের স্বপ্ন চিটায় পরিণত

কৃষকের স্বপ্ন চিটায় পরিণত
নেক ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত ধান ক্ষেত। ছবি: বার্তা২৪.কম
গনেশ দাস
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বগুড়া
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ায় মাঠের পর মাঠ সোনালি ধানের শীষ বাতাসে দোল খাচ্ছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় কৃষক এবার বাম্পার ফলনের আশা করেছিল। স্বপ্ন দেখেছিল ধান বিক্রির টাকায় রমজান মাস এবং ঈদের খরচ চালাবে। কিন্তু কৃষকের সেই স্বপ্ন চিটায় পরিণত হয়েছে।

শত শত বিঘা জমির ধান চিটায় পরিণত হওয়ায় কৃষকের সব স্বপ্ন মাটিতে মিশে গেছে। তবে অন্য জাতের ধান নয়, শুধু মাত্র বিআর-২৮ জাতের ধান যারা চাষ করেছে তাদেরই এই সর্বনাশ হয়েছে।

কৃষি বিভাগ বলছে, নেক ব্লাস্ট নামের ছত্রাকের কারণে ধান গাছ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে।

আর কৃষক বলছে, শত শত কৃষকের সর্বনাশ হলেও কৃষি বিভাগ তাদেরকে কোনো ধরনের সহযোগিতা করেননি। মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তাদের বোরো মৌসুমে দেখাই পাওয়া যায়নি।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, পূর্ব বগুড়ার গাবতলী, সোনাতলা ও বগুড়া সদর উপজেলার কিছু অংশে কৃষকের সর্বনাশ সবচেয়ে বেশি হয়েছে। বিআর-২৮ ধানের চাল ভালো হওয়ায় এবং চারা রোপণের ১০০ দিনের মধ্যে ধান পেকে যাওয়ায় এই অঞ্চলের কৃষক বিআর-২৮ ধানের চাষ বেশি করে থাকে। আর এ কারণেই এই অঞ্চলে ক্ষতির পরিমাণটাও বেশি।

গাবতলী উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের নতুর পাড়া গ্রামের প্রবাল রায়, নারায়ণ চন্দ্র রায় বার্তা২৪.কমকে জানান, তাদের গ্রামে মাঠের পর মাঠ ধান গাছ চিটায় পরিণত হয়েছে।

সোনাতলা উপজেলার নওদাবগা গ্রামের প্রবাসী সোনা মিয়ার স্ত্রী রাজিয়া বেগম স্বামীর অনুপস্থিতিতে নিজেই পাঁচ বিঘা জমিতে বিআর-২৮ ধান চাষ করেছেন। পুরো জমির ধান চিটায় পরিণত হওয়ায় আগাম ধান কেটে ঘরে তুলছেন।

সোনাতলা উপজেলার উত্তর করমজা গ্রামের সেকেন্দার আলী জানান, তিনি নিজের ৪ বিঘাসহ বর্গা নিয়ে আরও ২২ বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছেন।

তিনি জানান, তার যে সর্বনাশ হয়েছে, তাতে বিঘা প্রতি দুই মণ ধানও পাওয়া যাবে না। গো-খাদ্য হিসেবে খড় বিক্রি করার জন্য ধান কাটা-মাড়াই শুরু করেছেন।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) সোনাতলা উপজেলার পদ্মপাড়া, মিলনের পাড়া, উত্তর করমজা, দড়িহাঁসরাজ, হুয়াকুয়া, মোনার পটল, সাতবেকী, হরিখালী, নামাজ খালী, গজারিয়া, শালিখা গ্রাম ঘুরে একই চিত্র দেখা গেছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কৃষি কর্মকর্তা বার্তা২৪.কমকে জানান, কৃষি বিভাগের অবহেলার কারণেই কৃষকদের এই সর্বনাশ হয়েছে।

তবে সোনাতলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুদ আহম্মেদ বার্তা২৪.কমকে জানান, গত ২-৩ বছর ধরে বিআর-২৮ ধানে নেক ব্লাস্ট দেখা দেয়ায় এবার কৃষকদেরকে এই ধান চাষে নিরুৎসাহিত করা হয়েছিল। এছাড়াও ব্লাস্ট রোগ দেখা দেয়ায় কৃষকদের করণীয় সম্পর্কে মাঠ পর্যায়ে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি জানান, সোনাতলা উপজেলায় তিন হেক্টর জমিতে নেক ব্লাস্ট দেখা দিয়েছে।

তবে কৃষকদের মতে, আরও অনেক বেশি জমির ধান ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হয়েছে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের একটি সূত্র জানিয়েছে, জেলার ১৭ হেক্টর জমিতে ব্লাস্ট রোগ দেখা দিয়েছে মর্মে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন

গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা ও পৌরশাখা ছাত্রলীগের সদ্য ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে পৌর শহরের কৃষ্ণচূড়া চত্বরে ঘণ্টাব্যাপী এই কর্মসূচি পালন করেন সদ্য সাবেক কমিটির নেতাকর্মীরা।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান, সাবেক সহ-সভাপতি নাজিমুল ইসলাম শুভ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম জিল্লুর রহমান, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ রিগান, গৌরীপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওয়াসিকুল ইসলাম রবিন, সহনাটী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি এস আলামিন পিন্টু, রামগোপালপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মুনসুর, গৌরীপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ফারুক আহমেদ, অচিন্তপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা প্রমুখ।

বক্তরা বলেন, গঠনতন্ত্র অমান্য করে বয়ষোর্ধ্ব, বিবাহিত, ইউনিয়নের বাসিন্দাকে পৌর কমিটিতে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া হত্যা মামলার আসামি দিয়ে ছাত্রলীগের উপজেলা ও পৌর শাখার দু’টি কমিটি গঠন করা হয়েছে। অচিরেই এই দুই কমিটি বাতিল না করলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৯ জুলাই গৌরীপুর উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল মুক্তাদির ও সাধারণ সম্পাদক পদে ইমতিয়াজ সুলতান জনি এবং পৌরশাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদে আল হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক পদে মোফাজ্জল হোসেনকে মনোনীত করে কমিটি ঘোষণা করে জেলা ছাত্রলীগ। তারপর থেকেই কমিটিকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছে সদ্য সাবেক হওয়া নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন: গৌরীপুরে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবিতে একাংশের অবস্থান

সম্পত্তির দাবিতে আদিবাসীদের অবস্থান কর্মসূচী

সম্পত্তির দাবিতে আদিবাসীদের অবস্থান কর্মসূচী
রংপুরে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে আদিবাসীরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্ম এর রিকুইজিশন করা এক হাজার ৮৫০ একর সম্পত্তি আদিবাসীদের ফেরত দেয়া সহ ৭ দফা দাবিতে রংপুরে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে আদিবাসীরা।

বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ের সামনে এই অবস্থান কর্মসূচী পালিত হয়। এ সময় দোষীদের দ্রুত বিচারের দাবিতে ডিআইজিকে স্মারকলিপিও দেন তারা।

সাহেবগঞ্জ-বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির আয়োজনে অবস্থান কর্মসূচীতে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, 'প্রায় ৩ বছর ধরে পিবিআই মামলার তদন্ত করলেও এখনও চার্জশিট প্রদান করেনি। দ্রুত আদিবাসী সাঁওতাল হত্যা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় সুষ্ঠু ও দ্রুত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দাবি জানান তারা।

অবস্থান কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন, সাহেবগঞ্জ- বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক ফিলিমন বাসফে, আদিবাসী নেতা রাফায়েল হাসদা, আদিবাসী-বাঙালী সংহতি পরিষদের আহবায়ক অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু প্রমুখ।

২০১৬ সালে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ বাগদাফার্মে বসবাসরত আদিবাসীদের ওপর উচ্ছেদের নামে হামলা চালায় প্রশাসন ও প্রভাবশালীরা। হামলার ঘটনায় তিন আদিবাসী সহ অনেকে গুরুতর আহত হয়েছিলেন। 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র