Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

কালাইয়ে প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১

কালাইয়ে প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগে আটক ১
আটক মেহেদী/ছবি: বার্তা২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জয়পুরহাট: জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার ভুগইল গ্রামে আট বছরের এক প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মেহেদী হাসান নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) রাতে তাকে আটক করা হয়। মেহেদী একই গ্রামের মকবুল হোসেনর ছেলে।

কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ খান জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাক প্রতিবন্ধী শিশুটিকে নিজের বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধষণ করেন মেহেদী। পরে শিশুটির মা রক্তাক্ত অবস্থায় মেয়েকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় রাতেই মেয়েটির বাবা থানায় অভিযোগ করলে মেহেদীকে আটক করা হয়। এ ব্যপারে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

 

আপনার মতামত লিখুন :

চুলার ভেতর থেকে অস্ত্র উদ্ধার, যুবক আটক

চুলার ভেতর থেকে অস্ত্র উদ্ধার, যুবক আটক
ছবি: প্রতীকী

যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে অস্ত্রসহ শিমুল (২৮) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে বেনাপোলের বড়আঁচড়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক শিমুল ওই গ্রামের আলী হোসেন মধুর ছেলে।

যশোর র‌্যাব-৬ এর এএসপি সমীর সরকার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শিমুলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাড়ির রান্না ঘরের চুলার ভেতর থেকে ৩টি বিদেশি পিস্তল, ৬৬ রাউন্ড গুলি, তিনটি ম্যাগজিন ও ১ কেজি গান পাউডার উদ্ধার করা হয়। তদন্তের স্বার্থে তাকে যশোর র‌্যাব সদর দপ্তরে রাখা হয়েছে।

এদিকে আটক শিমুলের মা সুফিয়া বেগম বলেন, ‘আমার ছেলেকে ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে ফাঁসানো হয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্র আমার ছেলের না। আমার বাড়িতে আগে যশোর শহরের তপন নামে এক ব্যক্তি তার স্ত্রী ছনিয়াকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন। এই অস্ত্র তাদের হতে পারে।’

ভারতে পাচার হওয়া ৯ নারী-শিশুকে বেনাপোলে হস্তান্তর

ভারতে পাচার হওয়া ৯ নারী-শিশুকে বেনাপোলে হস্তান্তর
ভারতে পাচার হওয়া ৯ নারী-শিশুকে বেনাপোলে হস্তান্ত, ছবি: সংগৃহীত

অবৈধ পথে ভারতে পাচার হওয়া নয় বাংলাদেশি নারী ও শিশুকে ফেরত পাঠিয়েছে ভারত সরকার।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বিকেল ৫টায় কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ও বিএসএফ তাদেরকে যৌথভাবে বেনাপোল চেকপোস্ট বিজিবি ও ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়। রাইটস যশোর নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে পরিবারের কাছে পৌঁছে দিতে নিজেদের জিম্মায় নিয়েছে।

ফেরত আসা নারীরা হলেন- ঠাকুরগাওয়ের মিম আক্তার (১৭), মনি আক্তার (১৯) রুবিনা খাতুন (১৮), রিনা বেগম(১৬), মুক্তা আক্তার (১৯ ), বরিশালের মুন্নি আক্তার (২২), ইতি খাতুন (২১) ও রেক্সোনা আক্তার (১৭)।

জানা গেছে, ভালো কাজের প্রলোভনে দেশের বিভিন্ন সীমান্ত পথে তারা দালালের খপ্পরে পড়ে ভারতে পাচারের শিকার হয়। দালালরা তাদের সেখানে কাজ না দিয়ে ফেলে পালিয়ে যায়। পরে ভারতীয় পুলিশ তাদেরকে আটক করে জেল হাজতে পাঠায়। সেখান থেকে কলকাতার হাওড়ায় অবস্থিত লিলুয়া সেল্টার হোম নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে ছাড়িয়ে নিজেদের আশ্রয়ে রাখে। পরে দুই দেশের সরকারের অনুমতিতে স্বদেশ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় তারা ফেরত আসে।

বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আতিয়ার রহমান জানান, কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে পোর্টথানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

এনজিও সংস্থা রাইটস যশোরের প্রতিনিধি তৌফিকুজ্জামান জানান, ফেরত আসা নারীরা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে মামলা করতে চায়, তবে তাদের আইনি সহায়তা দেওয়া হবে জানান তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র