Barta24

শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

English

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে নদীতীর রক্ষা প্রকল্প উদ্বোধন

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে নদীতীর রক্ষা প্রকল্প উদ্বোধন
ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বরিশাল
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

মেঘনার ভাঙন ঠেকাতে বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া-গোবিন্দপুর এলাকায় নদীর তীর রক্ষা প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামিম।

শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) বিকালে উলানিয়া করনেশন মাধ্যমিক বিদ্যালয় চত্বরে এই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তিনি। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল-৪ আসনের সংসদ সদস্য পংকজ নাথ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী (দক্ষিণ) জুলফিকার আলী হাওলাদার, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী রমজান আলী, উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মুনসুর আহম্মেদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার রায়, সহকারী পুলিশ সুপার (মেহেন্দিগঞ্জ সার্কেল) শুকুমার রায়, নির্বাহী হাকিম মো. রাসেল ইকবাল প্রমুখ।

৩৮৬ কোটি টাকার এই প্রকল্পটি গত সরকারের শেষ সময়ে একনেকের সভায় অনুমোদিত হয়। প্রকল্পের মোট বাজেটের ২০০ কোটি টাকা বাঁধ নির্মাণে ও ১৮৬ কোটি টাকা নদী ড্রেজিংয়ে ব্যয় হবে।

এর আগে মেহেন্দিগঞ্জের ভাঙ্গন কবলিত শ্রীপুর, জাঙ্গালিয়া, চরগোপালপুর, রুকুন্দি, সাদেকপুর, চানপুর এলাকা পরিদর্শন করেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামিম।

আপনার মতামত লিখুন :

‘রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করাই উত্তম পন্থা’

‘রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করাই উত্তম পন্থা’
সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন করাই উত্তম পন্থা। এ জন্য জাতিসংঘসহ বাংলাদেশ সরকার কাজ করে চলছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

শনিবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে হবিগঞ্জ সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘ডেঙ্গু নিয়ে জাতির জন্য দায়বদ্ধদের অপমান অপদস্ত না করে কাজ করার সুযোগ দিতে হবে। সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।’

এর আগে মন্ত্রী হবিগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে নির্মিত কিচেন মার্কেট উদ্বোধন করেন।

এ সময় আরও মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহির, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল মজিদ খান এমপি ও গাজী মোহাম্মদ শাহ নেওয়াজ, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা ও পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সরকারের বিএমডিএফ ও হবিগঞ্জ পৌরসভার যৌথ অর্থায়নে ২ কোটি ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে এ কিচেন মার্কেট নির্মাণ করে হবিগঞ্জ পৌরসভা।

বগুড়ায় বাল্যবিয়ে বিরোধী অভিযানে ১৪ জন গ্রেফতার

বগুড়ায় বাল্যবিয়ে বিরোধী অভিযানে ১৪ জন গ্রেফতার
বগুড়া জেলার মানচিত্র, ছবি: সংগৃহীত

বাল্যবিয়ে বিরোধী অভিযান চালিয়ে বর-কনে, কাজীসহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করেছে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ। পরে তাদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) রাতভর অভিযান চালিয়ে পুলিশ এদেরকে গ্রেফতার করে। শনিবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শিবগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) নান্নু খান।

জানাগেছে, শুক্রবার রাতে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ বিহার, জামগ্রাম, কানুপুর, ধাওয়াগীর ও শংকরপুর গ্রামে বাল্য বিয়ে বিরোধী অভিযান চালায়। এ সময় ধাওয়াগীর গ্রামে চান মিয়ার ১৩ বছর বয়সী মেয়ের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে পুলিশ অভিযান চালালে মেয়ে আত্মগোপনে চলে যায়। এসময় পুলিশ বর শংকরপুর গ্রামের মজনু মিয়ার ছেলে মিলন (২৩), মেয়ের বাবা চান মিয়া কাজী আব্দুল আজিজ (৩৫) ছাড়াও তিনজন বরযাত্রীকে গ্রেফতার করে।

একই সময় পুলিশের আরেকটি দল কানুপুর গ্রামে আয়োজন করা বাল্যবিয়ের অনুষ্ঠানে অভিযান চালায়। সেখানে বর পালিয়ে গেলেও বরযাত্রীসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করে।

শিবগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) নান্নু খান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘বাল্যবিয়ে বিরোধী ব্যাপক প্রচার প্রচারনা সত্বেও শুক্রবার রাতে এক সাথে কয়েকটি গ্রামে বাল্যবিয়ের আয়োজন করা হয়। রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে ১৪ জনকে গ্রেফতারের পর ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হলে তাদেরকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়।

উল্লেখ্য,গত ১৩ আগস্ট শিবগঞ্জ থানা প্রাঙ্গণে উপজেলার সকল জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে বাল্যবিয়ে বিরোধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। বাল্য বিয়ের দিক থেকে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা ২য় স্থানে রয়েছে বলে জানান বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা বিপিএম। তিনি বলেন, বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ করার উদ্দেশ্যেই জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সমাবেশ করা হয়। 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র