Barta24

রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

English

উত্তরপত্র সঠিক মূল্যায়নের ফলে কমেছে পাসের হার: শিক্ষামন্ত্রী

উত্তরপত্র সঠিক মূল্যায়নের ফলে কমেছে পাসের হার: শিক্ষামন্ত্রী
সেন্ট্রাল ডেস্ক ২


  • Font increase
  • Font Decrease

এবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার কিছুটা কমেছে। উত্তরপত্রের সঠিক মূল্যায়নের ফলেই গেলবারের তুলনায় পাসের হার কমেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। রোববার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল হস্তান্তর করে একথা জানান মন্ত্রী। তবে আস্তে আস্তে এটার উন্নতি হবে। সাধারণভাবে একটা কথা প্রচলিত হয়ে গেছে ওজন করে খাতার মূল্যায়ন করা হয়, এখন সেই সুযোগটা আর নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ফলাফল বিশ্পালেষণে দেখা যায়, এবার গড় পাসের হার ৬৮ দশমিক নয় এক শতাংশ। গত বছরের চেয়ে পাসের হার কমেছে পাঁচ দশমিক সাত নয় শতাংশ। সারাদেশে জিপিএ ফাইভ পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৭২৬ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ-ফাইভ পাওয়ার সংখ্যাও কমেছে ২০ হাজার ৫৫০। পাসের হারে এবারো ছেলেদের তুলনায় এগিয়ে মেয়েরা। রোববার সকালে ফলাফল প্রকাশের পর পরই খুদেবার্তা ও নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান থেকে ফলাফল সংগ্রহ করেন শিক্ষার্থীরা। এবছর মোট পরীক্ষার্থী ১১ লাখ তেষট্টি হাজার ৩৭০ জন। পাস করেছেন, ৮ লাখ ১ হাজার ৭১১ জন। ৮টি সাধারণ বোর্ডে পাসের হার ৬৬ দশমিক আট চার শতাংশ। কারিগরি বোর্ডে পাসের হার ৮১ দশমিক তিন তিন শতাংশ। বোর্ড ভিত্তিক ফলাফলে দেখা যায় রাজশাহীতে পাসের হার ৭১ দশমিক তিন শূন্য শতাংশ। দিনাজপুরে পাসের হার ৬৫ দশমিক চার চার শতাংশ। বরিশালে পাসের হার ৭০ দশমিক দুই আট শতাংশ। সিলেটে ৭২ দশমিক শূন্য শতাংশ। যশোর বোর্ডে পাসের হার ৭০ দশমিক শূন্য ০২ শতাংশ। রাজশাহীতে ৫,২৯৪ জন। দিনাজপুরে ২,৯৮৭ জন, বরিশালে ৮১৫ জন, সিলেটে ৭শ’ জন জিপিএ-৫ পেয়েছেন। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৭৭ দশমিক দুই শূণ্য শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১,৮১৫জন। কারিগরি বোর্ডে পাসের হার ৮১ দশমিক তিন তিন শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২,৬৬৯ জন। রোববার সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এসময়, সেখানে সব শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :

এএসপির বাড়িতে পুলিশের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলি!

এএসপির বাড়িতে পুলিশের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলি!
খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার, ছবি: সংগৃহীত

খুলনায় পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের ফায়ারিংয়ের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলি পার্শ্ববর্তী এক এএসপির বাসার সিলিং ফ্যানে আঘাত করেছে।

রোববার (১৮ আগস্ট) দুপুরে খুলনার ফুলবাড়িগেট কেডিএ আবাসিকের ৬৫ নম্বর বাড়ির দ্বিতীয় তলায় এএসপি’র বাসাতে এ ঘটনা ঘটে। খুলনার পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার (পিটিসি) থেকে গুলিটি আসে। লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলিটি এএসপির বাসার রান্না ঘরের জানালায় ওপর দিয়ে গ্লাস ভেঙে ডাইনিং রুমের সিলিং ফ্যানে লাগে।

খুলনা জেলা পুলিশের এএসপি আনিসুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে বার্তাটোয়েন্টিফোর. কম কে বলেন বলেন, 'খুলনা পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার থেকে আমার বাসার দূরত্ব এক কিলোমিটার। দুপুরের দিকে বিকট শব্দে একটি গুলি আমার বাসার রান্না ঘরের জানালায় মাথার ঠিক ওপর দিয়ে গ্লাস ভেঙে ডাইনিং রুমের সিলিং ফ্যানে লাগে। তখন ডাইনিংয়ে আমার দুই সন্তান ছিল। গুলির শব্দে বাসার সবাই আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে আমি বাসায় ছুটে যাই। এরপর খানজাহান আলী থানা পুলিশ বাসায় এসে গুলিটি জব্দ করে নিয়ে যায়।'

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মহানগরীর খানজাহান আলী থানা সংলগ্ন পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে ফায়ারিং রেঞ্জে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) ফায়ারিং ট্রেনিং ছিল। ওই ট্রেনিং থেকেই রাইফেলের গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে ফুলবাড়িগেট কেডিএ আবাসিকের ৬৫ নম্বর বাড়ির দ্বিতীয় তলায় এএসপি’র বাসাতে আঘাত হানে।

মমেক হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত যুবকের মৃত্যু

মমেক হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত যুবকের মৃত্যু
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রাসেল (৩৫) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলায় চরনিকি এলাকায়।

রোববার (১৮ আগস্ট) রাত সাড়ে ৭ টার দিকে তিনি মারা যান। হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. এ.বি.এম. শামসুজ্জামান সেলিম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ওই যুবক ঢাকায় থাকতেন। সেখানেই তিনি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়েছিলেন। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে যাওয়ার পর তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চারদিন সেখানে চিকিৎসাধীন থাকার পর রোববার বেলা ৩টার দিকে তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে এসে ভর্তি হন। পরে এখানে চিকিৎসাধীন অবস্থান রাত সাড়ে ৭ টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

এ নিয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুইজনের মৃত্যু হল। এর আগে গত ১১ আগস্ট কিশোরগঞ্জের ইটনা ডিগ্রি কলেজের ছাত্র ফরহাদ মারা যান।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র