Barta24

মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

মা-ছেলে হত্যা : স্বামী ও তৃতীয় স্ত্রী ফের রিমান্ডে

মা-ছেলে হত্যা : স্বামী ও তৃতীয় স্ত্রী ফের রিমান্ডে
সেন্ট্রাল ডেস্ক ২


  • Font increase
  • Font Decrease
রাজধানীর কাকরাইলে মা ও ছেলেকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ব্যবসায়ী স্বামী আবদুল করিম ও তার তৃতীয় স্ত্রী শারমীন মুক্তাকে জিজ্ঞাসাবাদে আবারও তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ছয়দিনের রিমান্ড শেষে শুক্রবার ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে তাদের হাজির করে পুলিশ। এ সময় মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আবারও সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রমনা থানার পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) আলী হোসেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আমিরুল হায়দার চৌধুরী প্রত্যেককে তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে ৩ নভেম্বর ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম খুরশীদ আলম তাদের ছয়দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। উল্লেখ্য, গত ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় কাকরাইলের পাইওনিয়ার রোডের ৭৯/এ বাড়িতে মা ও ছেলেকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নিহতরা হলেন শামসুন্নাহার (৪৫) ও তার ছেলে ও লেভেল শিক্ষার্থী শাওন। গ্রেফতার আবদুল করিম নিহত শামুসন্নাহারের স্বামী। তিনি পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় ২ নভেম্বর নিহত শামসুন্নাহারের ভাই আশরাফ আলী বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলায় আসামি করা হয়েছে নিহতের স্বামী আব্দুল করিম, তার তৃতীয় স্ত্রী শারমীন মুক্তা, মুক্তার ভাই জনিসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে। মামলা দায়েরের পর নিহতের স্বামী আব্দুল করিম, তার তৃতীয় স্ত্রী শারমীন মুক্তা ও শ্যালক জনিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।
আপনার মতামত লিখুন :

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত এএসআই’র মৃত্যু

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত এএসআই’র মৃত্যু
সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত পুলিশ কর্মকর্তা, ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুল হাই মারা গেছেন। সোমবার (২২ জুলাই) রাত ১০টার দিকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

তিনি ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানায় কর্মরত ছিলেন। তার তিন ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

হালুয়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, এএসআই আব্দুল হাই বিকেলে স্ত্রীকে সাথে নিয়ে মোটরসাইকেলে হালুয়াঘাট থেকে ময়মনসিংহ শহরে আসছিলেন। এসময় তারাকান্দা থানার রুপচন্দ্রপুর নামক স্থানে একটি ট্রাক তাদের চাপা দেয়। এতে স্ত্রীসহ এএসআই আব্দুল হাই গুরুতর আহত হন।

পরে তাদের দু’জনকে উদ্ধার করে প্রথমে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় পরে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

উল্লেখ্য, নিহত এএসআই কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার টেওরিয়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহমান ঠাকুরের ছেলে। তিনি ২০০১ সালে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। প্রথমে কনস্টেবল ও পরে পদোন্নতি পেয়ে সহকারী উপ-পরিদর্শক হিসেবে নেত্রকোনার কেন্দুয়া থাকায় দায়িত্ব পালন করেন। সম্প্রতি তিনি ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানায় যোগদান করেছিলেন।

বিমানবন্দর এলাকা থেকে নারীকে গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধার!

বিমানবন্দর এলাকা থেকে নারীকে গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধার!
ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর বিমানবন্দর থানা এলাকা থেকে অজ্ঞাত এক নারীকে গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। গুরুতর আহত ওই নারীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিমানবন্দর থানার পরিদর্শক মুক্তারুজ্জামান জানান, সোমবার (২২ জুলাই) রাত সোয়া ৯টার দিকে পদ্মা ওয়েলের সামনে থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। তার বয়স আনুমানিক ৩০ বছর। তবে তার পরিচয় জানা যায়নি।

তিনি বলেন, ঢামেকে ওই নারীর চিকিৎসা চলছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র