Barta24

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বিমসটেক দিবস

আঞ্চলিক আর্থসামাজিক উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করার প্রত্যয়

আঞ্চলিক আর্থসামাজিক উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করার প্রত্যয়
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

আজ ২৫ জুন বিমসটেক (বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি সেক্টর‍াল টেকনিক্যাল এ্যান্ড ইকোনমিক্যাল কোপারেশন) -এর ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। বাংলাদেশ, ভূটান, ভারত,, মিয়ানমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ড এর মধ্যকার আঞ্চলিক সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বর্ণাঢ্য আয়োজনের  মধ্য দিয়ে পালনের  উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ উপলক্ষে সদস্যদেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানগণ পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। এতে আঞ্চলিক অখণ্ডতা, আর্থসামাজিক উন্নয়ন, সন্ত্রাস দমন, পরিবেশ রক্ষায় একযোগে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়েছে। ঢাকার গুলশানস্থ বিমসটেক সচিবালয় সন্ধ্যায় এক সংবর্ধনা ও নৈশভোজের আয়োজন করেছে। এতে সদস্য দেশগুলোর কূটনীতিকসহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন এমপি প্রধান অতিথি, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

দিবসটি উপলক্ষে প্র্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণীতে বলেছেন, বিগত ২২ বছরে বিমসটেক এর  উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। বিমসটেক এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য দেশ হিসেবে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নয়ন, জ্বালানি সহযোগিতা, সন্ত্রাস ও পরিবেশের বিরূপ প্রভাবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করে আসছে। ২০১৪ সালে ঢাকায় বিমসটেক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা বিমসটেক প্রক্রিয়ায় তার সরকারের একটি অঙ্গীকার বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দিবসটি উপলক্ষে এক বাণীতে বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিমসটেক সদস্য দেশগুলো আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধি, অর্থনৈতিক বন্ধন সুদৃঢ় করা এবং আঞ্চলিক নিরাপত্তা অর্জনে নিজ নিজ চেষ্টা জোরদার করেছে। তিনি বলেন, আমাদের পররাষ্ট্রনীতির অন্যতম অগ্রাধিকার হচ্ছে ‘প্রতিবেশী প্রথম’, আর এই প্রক্রিয়ায় ভারতের কাছে বিমসটেক একটি প্রাকৃতিক প্লাটফর্ম।

এ উপলক্ষে নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা, শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, ভূটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে সেরিং, মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সূচি শুভেচ্ছা বানী দিয়েছেন। পৃথক পৃথক বাণীতে তারা বিমসটেকের সাফল্য কামনা করেন এবং এর সদস্যভুক্ত ৮টি দেশের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

বিমসটেক সেক্রেটারি জেনারেল এ্যাম্বাসাডর এম শহিদুল ইসলাম বলেছেন, ৬ জুন ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর বিগত দুই দশকে বিমসটেক এ অঞ্চলের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে উল্লেখযোগ্য পরিপক্কতা দেখিয়েছে।

১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণাপত্র গ্রহণের মাধ্যমে বিমসটেক-এর যাত্রা শুরু হয়। প্রতি বছর ৬ জুন বিমসটেক দিবস পালন করা হয়। এ বছর এ অঞ্চলে একইসময় ঈদের দীর্ঘ ছুটির কারণে আজ ২৫ জুন বিমসটেক দিবস পালিত হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :

বন্দরের কারণে চট্টগ্রামে যানজট নয়: বন্দর চেয়ার‌ম্যান

বন্দরের কারণে চট্টগ্রামে যানজট নয়: বন্দর চেয়ার‌ম্যান
সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল জুলফিকার আজিজ/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম বন্দরে আসা কন্টেইনার ও কার্গো সার্ভিস ঘণ্টা পর ঘণ্টা রাস্তায় অপেক্ষায় থাকে। একইসাথে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় ঐ রুটে চলাচলকারী গণপরিবহনকে পোহাতে হয় চরম ভোগান্তি। তবে সৃষ্ট এ যানজট কোনোভাবেই বন্দরের কারণে নয় বলে দাবি করছেন বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল জুলফিকার আজিজ।

তিনি বলেছেন, গত ১০ থেকে ১২ দিন ধরে মুষলধারে বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম বন্দরের বাইরে বিভিন্ন রাস্তায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। বিশেষ করে পোর্ট কানেকটিং সড়কের সংস্কার, বারিং বিল্ডিং থেকে ফকিরহাট পর্যন্ত ওয়াসার পইপ লাইন ও সিমেন্টে ক্রসিং এলাকায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসের কাজের কারণে অধিকাংশ সড়কের প্রশস্ততা কমে এসেছে।’

শনিবার (২০ জুলাই) দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি যানজট নিয়ে বেশকিছু গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বন্দরের অবস্থান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

এতে লিখিত বক্তব্যে বন্দরের অবস্থান তুলে ধরেন এডমিরাল জুলফিকার আজিজ। তিনি জানান, ঘূর্ণিঝড় ফণীর সময়েও সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার টিইইউএস পণ্যের পাশাপাশি কার্গো ও ডেলিভারি প্রদান করা হয়েছে। গত রমজান মাসেও চার হাজার ৮০০ টিইইউএস কন্টেইনার পণ্য ও কার্গো ডেলিভারি করা সম্ভব হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/20/1563618895066.gif

মাঝখানে এমনও দিন গেছে সাড়ে ৯ থেকে ১০ হাজার কার্গো ও ডেলিভারি দেওয়া হয়েছে। তখন কেউ এমন যানজট অনুভব করেনি। অথচ টানা বর্ষণে বন্দর থেকে পণ্য ভেলিভারি চার হাজার টিইউএস কম ছিল। মূলত প্রাকতিক দুর্যোগ, বন্দরের যানবাহন ও গণপরিবহনের একই রাস্তায় হওয়ায় হওয়ার এমন অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।

বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, ‘চট্টগ্রাম শহরের যানজট নিরসনে বিকল্প হিসেবে প্রস্তাবিত দুইট রিং রোড আগ্রাবাদ এক্সেস রোড-বড়পুল সড়ক, আনন্দবাজার ইপিজেড সড়ক ও জিইসি- সাগরিকা বেড়িবাঁধ সড়ক দ্রুততার সময়েও বাস্তবায়ন করতে হবে। যা একইসাথে বন্দরের কার্গো ও কন্টেইনার হ্যান্ডিলিং কার্যক্রমে প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি করবে।’

এ সময় হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী দ্রুত সময়ে কর্ণফুলী নদীর উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু করার আশ্বাস দেন বন্দর চেয়ারম্যান। মতবিনিময় সভায় বন্দরের অন্যান্য কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

মানুষকে অসত্য তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করবেন না: অধ্যাপক ফারুক

মানুষকে অসত্য তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করবেন না: অধ্যাপক ফারুক
সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন অধ্যাপক আ ব ম ফারুক হোসেন

মানুষকে অসত্য তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত না করে সত্য দিয়েই তর্ক-বিতর্কের মাধ্যমে সমাধানের পথ খোঁজার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল রিসার্চ সেন্টার ও ফার্মেসি অনুষদের  অধ্যাপক  আ ব ম ফারুক হোসেন।

শনিবার (২০ জুলাই) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, সত্যে আসেন, বিজ্ঞান হলো সত্য। আমরা এমন কিছু বলব না যেকারণে বিভ্রান্তি ছড়ায়। সত্য কখনো আমাদের বঞ্চনা করে না। এই সত্যকে অবলম্বন করেই আমাদের মুক্তির দিকে যেতে হবে। সমস্যা দূর করতে হবে।

তরল পদার্থ নিয়ে যে উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে তা অত্যন্ত সহজভাবে সমাধান করা যায় উল্লেখ করে অধ্যাপক ফারুক বলেন, পাস্তুরাইজেশন ইউনিটে যারা কাজ করে তাদের আরেকটু মোটিভেট করা। গরু রোগে আক্রান্ত হবেই। তারা জীবন্ত প্রাণি। তাই তাদের চিকিৎসাও করাতে হবে। নিয়ম হচ্ছে অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়ার পর একটা উইথড্রো পিরিয়ড আছে। ততদিন পর্যন্ত গরুর দুধ পান করা যাবে না। এটা খুবই জরুরি। কম পক্ষে ২১ দিন গরুর দুধ নেওয়া যাবে না।

গরুকে চিকিৎসার সময় হিউমান অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া যাবে না। গরুর খাবারে অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া থাকে সেগুলো বিবেচনা করলেই এসব সমস্যার সমাধান হওয়া কঠিন কিছু না।

উকিল নোটিশের ব্যাপারে তিনি বলেন, আমার কাছে একটি উকিল নোটিশ পাঠানো হয়েছে যাকে লিগ্যাল নোটিশও বলা যায়। আমি এতো বড় লোক নই বলে কোনো আইনজীবী দিয়ে নোটিশ পাঠায়নি। আমি সময়মত সেটার উত্তর দিয়েছি। আমি আমার বিবেকমত যতটুকু বলার আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য ততটুকুই বলেছি।

গবেষণার ব্যাপারে সবাই ইতিবাচক দাবি করে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের গবেষণার ব্যাপারে সবার ইতিবাচক সাড়া দেখতে পাচ্ছি। যারা  দু’ একটা কথা বলে তারা আমাদের সামনে বলেন না।

গবেষণার উদ্দেশ্য সম্পর্কে তিনি বলেন, আমাদের গবেষণা কোনো কোম্পানির বিরুদ্ধে না। বরং আমরা দুধ সেক্টরটাকে উন্নত হিসাবে দেখতে চাই এবং  উন্নতমানের দুধ সরবরাহ করা হোক। আমরা যেন মানসম্মত, নিরাপদ দুধ খেতে পারি এটিই আমাদের লক্ষ্য।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আহবায়ক আ ক ম জামাল উদ্দীন, ঢাবি শাখার সভাপতি আল মামুন, সেক্রেটারি আমিনুল ইসলাম বুলবুল প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র