Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

কোস্ট গার্ডের কাছে ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল হস্তান্তর

কোস্ট গার্ডের কাছে ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল হস্তান্তর
খুলনা শিপইয়ার্ডে নির্মিত ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
খুলনা


  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড বাহিনীর কাছে ৩টি ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল হস্তান্তর করেছে খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দুপুরে খুলনা শিপইয়ার্ড প্রাঙ্গণে ৩টি ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল হস্তান্তর, ২টি হাইস্পিড বোট (ফেরি) এবং ২টি হাইস্পিড বোট (ডাইভিং) এর কিল লেয়িং অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, প্রাচীনকালে বাংলাদেশ জাহাজ নির্মাণ-দক্ষতায় সমৃদ্ধ দেশ ছিল। ঔপনিবেশিক আমলে এ ধারায় ছেদ পড়ে। এক সময়ের লাভজনক প্রতিষ্ঠান খুলনা শিপইয়ার্ড রুগ্ন শিল্পে পরিণত হয়। ১৯৯৯ সালে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনা শিপইয়ার্ডকে নৌবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেন। দক্ষ ব্যবস্থাপনায় প্রতিষ্ঠানটি আজ মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে ও পুনরায় লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।

মোস্তাফা কামাল উদ্দীন আরো বলেন, দেশে একশোটির অধিক ইপিজেড স্থাপন করে ৫০ লাখের অধিক কর্মসংস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা সরকারের আছে। দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে এসেছে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ভিশন-২০২১, ভিশন-২০৪১ ও ডেল্টা প্ল্যান-২১০০ বাস্তবায়নের পথে অগ্রসর হচ্ছে বাংলাদেশ। খুলনা শিপইয়ার্ড নিজেকে রুগ্ন প্রতিষ্ঠানের অবস্থান থেকে সমৃদ্ধ জায়গায় নিয়ে আসার পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রা দেশে রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখছে। অদূর ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠানটি বিদেশে জাহাজ রপ্তানির সক্ষমতা অর্জন করবে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/20/1561037909702.jpg
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিগত ২৩ মে ২০১৮ তারিখে ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল তিনটির লঞ্চিং অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমান সরকারের সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে প্রতিবেশী দেশ ভারত ও মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমা নির্ধারিত হওয়ায় বাংলাদেশ এক বিশাল সমুদ্র এলাকা অর্জন করেছে। সমুদ্র সম্পদে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় অতন্দ্রপ্রহরী হিসেবে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় টহল প্রদান, সমুদ্র বন্দরের নিরাপত্তা, সন্ত্রাস দমন, মাদকের বিস্তার রোধ, মানবপাচার প্রতিরোধ, সমুদ্রচারীদের জীবন রক্ষা এবং সর্বোপরি ব্লু-ইকোনমি সংশ্লিষ্ট কার্যাবলিতে নিরাপত্তা প্রদান করে চলেছে। এ দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালনে নবনির্মিত দ্রুতগতি সম্পন্ন ইনসোর প্যাট্রোল ভেসেলসমূহ গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, ইনশোর প্যাট্রোল ভেসেল ছাড়াও খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের জন্য টাগ বোট, ভাসমান ক্রেন ও পন্টুন তৈরি করছে। ইতিপূর্বে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জন্য প্রতিষ্ঠানটি পাঁচটি প্যাট্রোল ক্রাফট ও দুটি লার্জ প্যাট্রোল ক্রাফট তৈরি করে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার এডমিরাল এম আশরাফুল হক। অনুষ্ঠানে অতিথিদের স্বাগত জানান খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর আনিছুর রহমান মোল্লা।

আপনার মতামত লিখুন :

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়
ঘটনাস্থলে বোম ডিসপোজাল ইউনিট ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর খামারবাড়িস্থ বঙ্গবন্ধু চত্বরের পাশেই যে বোমা সাদৃশ্য বস্তু শনাক্ত করা হয়, সেটার অবস্থান ও শক্তি বোঝার জন্য রোবট দিয়ে পরীক্ষা করেছে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল (বোম ডিসপোজাল ইউনিট)।

পরবর্তীতে বিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে ওই বোমাগুলো নিষ্ক্রিয় করে বোম ডিসপোজাল ইউনিট। এ সময় বিকট শব্দে চারপাশ কেঁপে ওঠে।

বুধবার (২৪ জুলাই) রাত ৩টার দিকে তেজগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার মাহামুদ হাসান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়

তিনি বলেন, 'সেখানে বোমা সদৃশ্য বস্তু রয়েছে, জানার পর জায়গাটি নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে ঘেরাও করে রাখা হয়। ওই বোমাগুলো কতটুকু কার্যকর আর কেমন অবস্থায় আছে তা জানার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য রোবট পাঠানো হয়। সেটা মনিটরে দেখে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।'

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, 'বোম ডিসপোজাল ইউনিট একটি বিস্ফোরণের মাধ্যমে ওই বোমগুলো নিষ্ক্রিয় করতে সক্ষম হয়। এ সময় বিকট শব্দ হয়। সেখানে মোট পাঁচটি অক্ষত বোম ছিল।'

তিনি আরও বলেন, 'বোমা নিষ্ক্রিয়ের পর তার কিছু অংশবিশেষ বোম ডিসপোজাল ইউনিট সংগ্রহ করে নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানানো হবে এগুলো কি ধরনের বোমা ছিল।'

উল্লেখ্য, এর আগে রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কাছাকাছি দুই জায়গা থেকে বোমা সদৃশ বস্তুর সন্ধান পায় পুলিশ।

আরও পড়ুন: রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার
উদ্ধারকৃত বোমা সদৃশ বস্তু, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কাছাকাছি দুই জায়গা থেকে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধারকৃত বোমা নিষ্ক্রিয় করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বোম ডিসপোজাল ইউনিট।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দিবাগত রাতে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তেজগাঁও থানার ওসি শামীম উর রশিদ।

শামীম উর রশিদ বলেন, 'খামার বাড়ির রাস্তায় বঙ্গবন্ধু চত্বরের কাছাকাছি দুই জায়গায় দুটি বোমা সাদৃশ্য বস্তু শনাক্ত করা গেছে। প্রাথমিকভাবে আমার নিশ্চিত হয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। ঘটনাস্থলে বোমা নিষ্ক্রিয় করার জন্য বোম ডিসপোজাল ইউনিট এসেছে।' 

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

তিনি বলেন, 'শনাক্ত করা বোমা সদৃশ্য এ দুটি বস্তু আদৌ বোমা কিনা এ বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে কাজ করছে বোম ডিসপোজাল ইউনিট।'

তবে বোম ডিসপোজাল ইউনিটের একটি সূত্রে জানা গেছে, একটি কার্টুনের ভেতর দুটি বোমা উদ্ধার করা গেছে। তবে সেগুলোর কার্যকারিতা সম্পর্কে এখনো জানা সম্ভব হয়নি। মনে হচ্ছে তরল কোনো কিছুর ভেতরে কালো স্কচ টেপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখা হয়েছে। পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র