Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

সুফিয়া কামালের জন্মবার্ষিকীতে গুগলের বিশেষ ডুডল

সুফিয়া কামালের জন্মবার্ষিকীতে গুগলের বিশেষ ডুডল
সুফিয়া কামাল, ছবি: সংগৃহীত
সেন্ট্রাল ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

২০ জুন, প্রথিতযশা কবি বেগম সুফিয়া কামালের ১০৮তম জন্মবার্ষিকী। তার জন্মবার্ষিকীতে বিশেষ ডুডল করেছে গুগল।

ডুডলে দেখা যায়, হালকা নীল পাড়ের সাদা শাড়ি পড়ে দাঁড়িয়ে আছেন সুফিয়া কামাল। চোখে মোটা ফ্রেমের চশমা। ডান হাত থুতনিতে রাখা, বাঁ হাত দিয়ে ডান হাত ধরে রেখেছেন। ঠিক পেছনে মাঝ বরাবর লাল অর্ধবৃত্ত। তার পেছনে সবুজ রঙে গুগল লেখা এবং অনেক নারীর সবুজ প্রতিকৃতি। যেখানে নারীরা একে অপরের হাত ধরে রেখেছে।

Sufia
সুফিয়া কামালের জন্মবার্ষিকীতে গুগলের বিশেষ ডুডল, ছবি: গুগল থেকে নেওয়া

 

বাংলাদেশের নারী জাগরণের পুরোধা সুফিয়া কামাল ১৯১১ সালের ২০ জুন বরিশালের শায়েস্তাবাদে মামার বাড়িতে জন্ম গ্রহণ করেন। তার বাবা সৈয়দ আবদুল বারি উকিল ছিলেন, বাড়ি ছিল কুমিল্লায়। তার মায়ের নাম সৈয়দা সাবেরা খাতুন।

তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থের মধ্যে রয়েছে সাঁঝের মায়া, দিওয়ান ও অভিযাত্রিক। ১৯৯৯ সালের ২০ নভেম্বর মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

বন্যার্তদের জন্য ইইউ’র ৮৫ লাখ ইউরো সহায়তা

বন্যার্তদের জন্য ইইউ’র ৮৫ লাখ ইউরো সহায়তা
ইউরোপীয় ইউনিয়নের পতাকা

দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বন্যা দুর্গতদের সহায়তায় ৮৫ লাখ ইউরো অনুদানের ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ফিলিপাইনের বন্যা দুর্গতের মাঝে এ সহায়তা দেওয়া হবে।

বুধবার (২৪ জুলাই) ঢাকাস্থ ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের দূতাবাস থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জরুরি আর্থিক সাহায্যের আওতায় বসতবাড়ি ও জীবিকা হারিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের জন্য খাদ্য সহায়তা, পুষ্টিসেবা, বিশুদ্ধ খাবার পানি, আশ্রয়, পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা ও স্বাস্থ্যসেবার সুবিধা দেওয়া হবে।

অন্য নারী থেকে প্ররোচিত হয় হৃদয়: ডিবি প্রধান

অন্য নারী থেকে প্ররোচিত হয় হৃদয়: ডিবি প্রধান
রেনু হত্যার প্রধান আসামি হৃদয়, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর বাড্ডায় তাসলিমা বেগম রেনুকে গণপিটুনির সময় অন্য এক নারীর কথায় প্রভাবিত হয়ে হৃদয় হামলা করেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের প্রধান আব্দুল বাতেন।

বুধবার (২৪ জুলাই) দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে ডিবির প্রধান ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এ কথা বলেন।

আব্দুল বাতেন বলেন, 'জিজ্ঞাসাবাদে হৃদয় জানিয়েছেন, ঘটনার দিন রেনু স্কুলে প্রবেশ করলে সেখানে থাকা অন্য এক নারী অভিভাবক রেনুর পরিচয় ও বাসার ঠিকানা জানতে চান। রেনু ওই নারীকে তার ঠিকানা জানান। সে সময় ওই নারী তাসলিমাকে দেখিয়ে ছেলে ধরা বলে চিৎকার করেন। বিষয়টি হৃদয় দেখেন। এরমধ্যে তাসলিমাকে স্কুলের একটি কক্ষে বন্দী করা হয়।'

তিনি জানান, পরে দ্রুত খবরটি ছড়িয়ে পড়ে। কাছেই বাজার থাকায় মুহূর্তে হাজারো মানুষ ভিড় জমান। এদের মধ্যে উৎসুক কিছু জনতা স্কুলের ভেতরে প্রবেশ রেনুকে বের করে গণপিটুনি দেন। এতে তার মৃত্যু হয়।

হৃদয়ের সম্পর্কে ডিবি প্রধান বলেন, 'গ্রেফতার হৃদয় সবজি বিক্রি করত। পুলিশ গ্রেফতারের ভয়ে নারায়ণগঞ্জে পালিয়ে যান।'

সাংবাদিকদের করা এক প্রশ্নের জবাবে আব্দুল বাতেন বলেন, 'রেনু এবং ওই নারী পূর্ব পরিচিত কী না সেটা দেখতে হবে। ঘটনাটি পরিকল্পিত কিনা তা ওই নারীকে জিজ্ঞাবাদের পর বলা যাবে। কারণ তাসলিমাকে দেখে তিনিই প্রথম ছেলে ধরা বলেছিলেন।'

উল্লেখ্য গত শনিবার (২০ জুলাই) সকালে স্কুলে সন্তানের ভর্তির খোঁজ নিতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হয়ে মারা যান তাসলিমা বেগম রেনু। ওইদিন রাতেই বাড্ডা থানায় একটি মামলা করেন নিহতের বোনের ছেলে নাসির উদ্দিন। মামলায় অজ্ঞাত ৪০০ থেকে ৫০০ ব্যক্তিকে আসামি করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র