Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

অধিকাংশ প্রস্তাব পূরণ হয়নি, তবুও বাজেটে সন্তুষ্ট বিজিএমইএ

অধিকাংশ প্রস্তাব পূরণ হয়নি, তবুও বাজেটে সন্তুষ্ট বিজিএমইএ
ছবি: বার্তা২৪.কম
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

তৈরি পোশাক মালিক ও শ্রমিকদের বিভিন্ন সুবিধাসহ মোট ১১টি প্রস্তাব করা হলেও ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটে মাত্র দুটি প্রস্তাবের আংশিক প্রতিফলন ঘটেছে। তারপরও সন্তোষ প্রকাশ করছে বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)।

রোববার (১৬ জুন) রাজধানীর গুলশানে একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ সন্তুষ্টির কথা জানান সংগঠনের সভাপতি ড. রুবানা হক। এ সময় পোশাক খাতে অতিরিক্ত বরাদ্দের দাবিও জানান তিনি। এর আগে গত ১৩ জুন প্রস্তাবিত বাজেটকে জনকল্যাণমুখী উল্লেখ করে জানান, বাজেটে তারা ৭০ শতাংশ খুশি।

বিজিএমইএ’র তথ্য মতে, পোশাক খাতের উন্নয়নে সংগঠনের পক্ষ থেকে যে ১১টি প্রস্তাব করা হয় তার মধ্যে সাতটি গৃহীত হয়নি, আংশিক প্রতিফলন ঘটেছে দুটির এবং বাকি দুটির ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

আংশিক প্রতিফলন ঘটেছে:
পোশাক রফতানির ওপর ৫ শতাংশ হারে ভর্তুকির প্রস্তাব দেওয়া হলেও এক শতাংশ হারে প্রণোদনা দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে সংগঠনটির পক্ষ থেকে এটা কমপক্ষে ৩ শতাংশ করার দাবি জানানো হয়েছে। এছাড়া অগ্নি নিরাপত্তা সংক্রান্ত ৮টি পণ্যের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহারের দাবি করা হলেও ৫টি পণ্যের আমদানি শুল্ক ৫ শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। তবে পোশাক শিল্পে ব্যবহৃত প্রাকৃতিক গ্যাস, পানি ও বিদ্যুৎ বিলের কর সম্পূর্ণ বাতিলের বিষয়টি বাজেটে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রতিফলন ঘটেনি:
রফতানি খাতগুলোর জন্য ডলার প্রতি অতিরিক্ত ৫ টাকা হারে বিনিময় প্রণোদনার প্রস্তাব, অর্থ আইন-২০১৭ এর মাধ্যমে আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪-এর ৩০ এর সংশোধনী বাতিল করা, রফতানির উৎসে কর ০.২৫ শতাংশ অপরিবর্তীত রাখা, করপোরেট ট্যাক্স ১২ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ করা, মুনাফার টাকা পুনরায় বিনিয়োগ করলে করের আওতামুক্ত রাখা, রফতানি বিলের ওপর ০.২ শতাংশ হারে স্ট্যাম্প শুল্ক অব্যাহতি দেওয়া, স্থানীয় বাজারের সব পণ্য ও সেবা ভ্যাটের আওতামুক্ত রাখা এবং রফতানি ভ্যাটমুক্ত রাখা ও রিটার্ন দাখিল হতে অব্যাহতি, পোশাক খাতের উন্নয়নে প্রয়োজনীয় স্কিম গঠন এবং সামাজিক নিরাপত্তা খাতে শ্রমিকদের অন্তর্ভুক্তিকরণ।

আশ্বাস দেওয়া হয়েছে:
পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের লভ্যাংশের ওপর দ্বৈত কর পরিহার এবং পোশাক শিল্পের জন্য ব্যাংক সুদ হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনা।

আপনার মতামত লিখুন :

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়
ঘটনাস্থলে বোম ডিসপোজাল ইউনিট ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর খামারবাড়িস্থ বঙ্গবন্ধু চত্বরের পাশেই যে বোমা সাদৃশ্য বস্তু শনাক্ত করা হয়, সেটার অবস্থান ও শক্তি বোঝার জন্য রোবট দিয়ে পরীক্ষা করেছে বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল (বোম ডিসপোজাল ইউনিট)।

পরবর্তীতে বিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে ওই বোমাগুলো নিষ্ক্রিয় করে বোম ডিসপোজাল ইউনিট। এ সময় বিকট শব্দে চারপাশ কেঁপে ওঠে।

বুধবার (২৪ জুলাই) রাত ৩টার দিকে তেজগাঁও জোনের সহকারী কমিশনার মাহামুদ হাসান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

রোবট দিয়ে বোমা পরীক্ষা, বিস্ফোরণে নিষ্ক্রিয়

তিনি বলেন, 'সেখানে বোমা সদৃশ্য বস্তু রয়েছে, জানার পর জায়গাটি নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে ঘেরাও করে রাখা হয়। ওই বোমাগুলো কতটুকু কার্যকর আর কেমন অবস্থায় আছে তা জানার জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য রোবট পাঠানো হয়। সেটা মনিটরে দেখে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।'

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, 'বোম ডিসপোজাল ইউনিট একটি বিস্ফোরণের মাধ্যমে ওই বোমগুলো নিষ্ক্রিয় করতে সক্ষম হয়। এ সময় বিকট শব্দ হয়। সেখানে মোট পাঁচটি অক্ষত বোম ছিল।'

তিনি আরও বলেন, 'বোমা নিষ্ক্রিয়ের পর তার কিছু অংশবিশেষ বোম ডিসপোজাল ইউনিট সংগ্রহ করে নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানানো হবে এগুলো কি ধরনের বোমা ছিল।'

উল্লেখ্য, এর আগে রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কাছাকাছি দুই জায়গা থেকে বোমা সদৃশ বস্তুর সন্ধান পায় পুলিশ।

আরও পড়ুন: রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার
উদ্ধারকৃত বোমা সদৃশ বস্তু, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কাছাকাছি দুই জায়গা থেকে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধারকৃত বোমা নিষ্ক্রিয় করতে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বোম ডিসপোজাল ইউনিট।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দিবাগত রাতে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তেজগাঁও থানার ওসি শামীম উর রশিদ।

শামীম উর রশিদ বলেন, 'খামার বাড়ির রাস্তায় বঙ্গবন্ধু চত্বরের কাছাকাছি দুই জায়গায় দুটি বোমা সাদৃশ্য বস্তু শনাক্ত করা গেছে। প্রাথমিকভাবে আমার নিশ্চিত হয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। ঘটনাস্থলে বোমা নিষ্ক্রিয় করার জন্য বোম ডিসপোজাল ইউনিট এসেছে।' 

রাজধানীতে বোমা সদৃশ বস্তু উদ্ধার

তিনি বলেন, 'শনাক্ত করা বোমা সদৃশ্য এ দুটি বস্তু আদৌ বোমা কিনা এ বিষয়টি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে কাজ করছে বোম ডিসপোজাল ইউনিট।'

তবে বোম ডিসপোজাল ইউনিটের একটি সূত্রে জানা গেছে, একটি কার্টুনের ভেতর দুটি বোমা উদ্ধার করা গেছে। তবে সেগুলোর কার্যকারিতা সম্পর্কে এখনো জানা সম্ভব হয়নি। মনে হচ্ছে তরল কোনো কিছুর ভেতরে কালো স্কচ টেপ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখা হয়েছে। পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র