Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

গোলাপী বেগম জীবিত, দাফন করা লাশটি কার?

গোলাপী বেগম জীবিত, দাফন করা লাশটি কার?
গোলাপী বেগম। ছবি: বার্তা২৪.কম
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
রাজশাহী


  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার চকবাউসা গ্রামের ভুট্টা ক্ষেত থেকে সোমবার (১০ জুন) এক নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই নারীর মুখে পোড়া মবিল মাখিয়ে দেওয়ায় তার পরিচয় শনাক্ত করতে ঝামেলা হয়। তবে পরদিন মঙ্গলবার (১১ জুন) পরিচয় মেলে মৃত নারীর। উপজেলার আড়ানী পৌরসভার পাঁচপাড়া গ্রামের বাকপ্রতিবন্ধী মনির হোসেন দাবি করেন- উদ্ধারকৃত লাশটি তার স্ত্রীর।

পরিবারের অন্য সদস্য এবং স্থানীয়রাও একই দাবি করার পর পুলিশ লাশটি মনির হোসেনের স্ত্রী হিসেবে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। পরে মঙ্গলবার (১১ জুন) সন্ধ্যার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে লাশটি দাফনও করা হয়।

তবে বুধবার (১২ জুন) সকাল ১০টার দিকে আড়ানী স্টেশনে বসে থাকতে দেখা যায় মৃত ভেবে দাফন করা গোলাপী বেগমকে। স্থানীয় কয়েকজন তাকে সেখান থেকে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যায়। সেখানে ডাকা হয় গোলাপী বেগমের মামা শাকিব হোসেন, শাশুড়ি মরিয়ম বেগম, ভাশুর মাজদার রহমান, জা সাজেদা বেগমকে। তারা সকলেই গোলাপীকে ‘আসল গোলাপী’ হিসেবে চিহ্নিত করেন।

এদিকে, বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় মানুষ ইউনিয়ন পরিষদে ভিড় করতে শুরু করেন। পরে পুলিশ গোলাপী বেগমকে থানায় নিয়ে যায়। সেখানে জাতীয় পরিচয়পত্রসহ অন্যান্য বিষয়ও যাচাই-বাছাই শেষে তাকে আসল গোলাপী বেগম হিসেবে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

গোলাপী বেগম বলেন, ‘ঈদের আগে বুধবার (২৯ মে) আমি হাটে গরু বিক্রি করে ৪২ হাজার টাকা পেয়েছিলাম। সেই টাকা শ্বশুরবাড়ির লোকজন জোর করে নেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করেছিল। আমার স্বামী প্রতিবন্ধী হওয়ায় সব টাকা-পয়সা তার মা-বাবা নিয়ে নেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘তাই আমি বিদ্যুৎ বিল দেয়ার নাম করে বাড়ি থেকে পালিয়ে রাজশাহী শহরে চলে যাই। সেখানে এক আত্মীয়ের বাড়িতে লুকিয়ে ছিলাম। আমার ছয় বছরের ছেলে রয়েছে। আমি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। আজ বুধবার (১২ জুন) যখন ফিরে আসি। সঙ্গে সঙ্গে এলাকার মানুষ আমাকে ঘিরে ধরে, বলে তুমি তো মরে গেছ? বেঁচে আসলে কীভাবে? তুমি গোলাপীই তো!’

গোলাপী বেগম বলেন, ‘তাদের প্রশ্ন করা শুনে আমি অবাক হয়ে যাই। পরে ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে বিস্তারিত ঘটনা শুনেছি।’

গোলাপী বেগমের শ্বশুর বিচ্ছাদ আলী বলেন, ‘আমার ছেলে বাকপ্রতিবন্ধী হওয়ায় তার বউ খেয়াল-খুশি মতো চলাফেরা করে। ঈদের আগে হঠাৎ উধাও হয়ে গিয়েছিল। খুঁজে পাচ্ছিলাম না। তাই ওই লাশ দেখে আমরা ভেবেছিলাম- এটা হয়তো গোলাপী হবে। কিন্তু তা সঠিক হয়নি।’

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিন আলী বলেন, ‘উদ্ধারকৃত লাশটি ভুলভাবে শনাক্ত করেছিল তার আত্মীয়-স্বজনরা। যাকে মৃত ভেবে দাফন করা হয়েছে, সে আসলে জীবিত রয়েছে। এখন প্রশ্ন হলো তাহলে মৃত নারী কে? লাশ দাফন করা হলেও আমাদের কাছে আলামত ও ছবি রয়েছে। তা নিয়ে তদন্ত শুরু করব।’

আপনার মতামত লিখুন :

খুলনায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ভ্যানচালকের মৃত্যু

খুলনায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ভ্যানচালকের মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত

খুলনায় বৈদ্যুতিক তারে পা জড়িয়ে আজগর আলী শেখ (৪৫) নামের এক ভ্যানচালকের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (২৬ জুন) দুপুরে রূপসা উপজেলা সদরের কাজদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আজগর আলী কাজদিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল গফুর শেখের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের মতো দুপুরে নদীতে গোসল করতে যাচ্ছিলেন আজগর। এ সময় তিনি সড়কের ওপর পড়ে থাকা বৈদ্যুতিক তার দেখে পা দিয়ে সরাতে যান। এতে তিনি বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে পড়েন।

ঘটনাটি তার মা বুঝতে পেরে চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আজগরের মৃত্যুর বিষয়টি বার্তা২৪.কম-কে নিশ্চিত করেছেন।

নাসিম শিষ্টাচার বিরোধী মিথ্যাচার করেছে: গণফোরাম

নাসিম শিষ্টাচার বিরোধী মিথ্যাচার করেছে: গণফোরাম
ছবি: সংগৃহীত

সংসদে আওয়ামী লীগ নেতা মো. নাসিম, গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষনেতা ড. কামাল হোসেন সম্পর্কে কুরুচিপূর্ণ উদ্দেশ্যমূলক শিষ্টাচার বিরোধী মিথ্যাচার করেছে বলে জানিয়েছে গণফোরাম। দলটি জেষ্ঠ্য নেতারা এক বিবৃতিতে তাঁর এমন মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বুধবার (২৬ জুন) বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতি পাঠায় দলটি। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন গণফোরাম নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ ও এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া।

সংসদে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিএনপি বার বার ভুল করেছে। ২০১৮ সালের নির্বাচনে বিএনপি লোক ভাড়া করল। কাকে করলেন? আওয়ামী লীগের পরিত্যক্ত নেতাকে। অত্যন্ত বিদগ্ধ শিক্ষিত মানুষ। বিএনপি সেই শিক্ষিত মানুষকে ভাড়া করল, কামাল হোসেনের মত একজন ব্যর্থ চক্রান্তকারী মানুষকে ভাড়া করল। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সামনে দাঁড় করাল। জিততে পারবেন? জিততে পারবেন না। তিনি কি করলেন আওয়ামী লীগের পক্ষে কাজ করে মাঠ খালি করে দিলেন। আমরা ফাঁকা মাঠে গোল দিলাম। এই হচ্ছে ভাড়াটিয়া নেতার উপহার। ওরা ভাড়া করে ওদের জন্য কাজ করল আমাদের জন্য।

বিবৃতিতে তারা বলেন, গতকাল সংসদে আওয়ামী লীগ নেতা মো. নাসিম, গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষনেতা ড. কামাল হোসেন সম্পর্কে যে কুরুচিপূর্ণ উদ্দেশ্য মূলক শিষ্টাচার বিরোধী মিথ্যাচার করেছে, আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ভোটারবিহীন ও আগের রাতে ব্যালটবাক্স ভর্তি করা জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত বর্তমান পার্লামেন্টের সরকার দলীয় নেতা মো. নাসিমের কাছে- এর থেকে বেশী ভদ্রতা আশা করা যায় না।

জনগণের অংশগ্রহণে গড়ে উঠা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শক্তিতে ভীত নাসিম মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ও অনৈক্য সৃষ্টি করার লক্ষে এই মিথ্যাচার করেছে। রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার কুমতলবে এ ধরনের প্রলাপ বকছে। জাতীয় ঐক্যকে আরো শক্তিশালী ও সুদৃঢ় করে গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে সফল করার মধ্য দিয়ে এ ধরনের ধৃষ্টতার জবাব দিতে হবে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

আরও পড়ুন,

ভোটে ড. কামাল আমাদের পক্ষে কাজ করে মাঠ ফাঁকা করে দিয়েছেন

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র