Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বৃষ্টিবিঘ্নিত খুলনার ঈদ বাজার

বৃষ্টিবিঘ্নিত খুলনার ঈদ বাজার
শপিংমলের সামনের রাস্তায় বৃষ্টির কারণে পানি জমেছে, ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
খুলনা


  • Font increase
  • Font Decrease

রোজার শেষ দিকে এসে খুলনার ঈদ বাজার জমে উঠলেও বৃষ্টিতে আবারও ছন্দপতন ঘটেছে। প্রচণ্ড গরমের পর স্বস্তির এ বৃষ্টিতে ক্রেতারা কেনাকাটা করতে পারেননি বরং অনেকেই ভোগান্তির শিকার হয়েছেন।

রোববার (২ জুন) সকাল থেকেই খুলনার আকাশ জুড়ে হালকা মেঘের আনাগোনা দেখা যায়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আকাশের মেঘ ঘন হতে শুরু করে। বেলা ১২টার দিকে হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হলে ঈদবাজারের ক্রেতারা বিপাকে পড়েন। বৃষ্টিতে খুলনার কয়েকটি মার্কেট ও শপিং মলের এলাকার রাস্তায় পানি জমে যায়। এতে ভোগান্তির শিকার হন ঈদের কেনাকাটা করতে আসা মানুষজন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/02/1559465042710.jpg
বৃষ্টিতে থেমে নাই ক্রেতারা, ছবি: বার্তা২৪

 

খুলনার নিউ মার্কেট, শিববাড়ী, সোনাডাঙ্গা, ডাকবাংলা মোড়, রেলওয়ে মার্কেট, পিকচার প্যালেস, বড় বাজার ঘুরে দেখা যায়, বৃষ্টির কারণে কয়েকটি মার্কেট এলাকায় পানি জমে গিয়েছে। ঈদ বাজারের কেনাকাটা করতে আসা ক্রেতারা বৃষ্টির কারণে মার্কেটেই আটকে পড়েন। অস্থায়ী বিপণিবিতানের পোশাক বৃষ্টিতে ভিজেও যায়। তবে বৃষ্টিতে অভিজাত বিপণিবিতানের থেকে অস্থায়ী বা ফুটপাতের বিক্রেতাদের বেশি ক্ষতি হচ্ছে বলে শোনা যায়।

ফুটপাতে পোশাক বিক্রেতা আব্দুল মুন্সি বার্তা২৪.কমকে বলেন, সকালের বৃষ্টিতে আমার কিছু কাপড় ভিজে গিয়েছে। তারপর ত্রিপল দিয়ে কোনোমতে বৃষ্টি আটকালেও মানুষ কেনাকাটা করতে আসতে পারেনি। এখনই বেচাবিক্রির সময়। বৃষ্টি হলে বিক্রি বন্ধ হয়ে যায়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/02/1559465159426.jpg
খুলনার কারণে রাস্তায় পানি জমে গিয়েছে, ছবি: বার্তা২৪

 

জলিল মার্কেটের ব্যবসায়ী মোনতাসীর আল মামুন বার্তা২৪.কম কে বলেন, ‘রোজার শুরু থেকে প্রচণ্ড গরমের জন্য ক্রেতারা কেনাকাটা করতে পারেনি। এখন তো সময় প্রায় শেষ। এখন একটু ক্রেতার চাপ বাড়ছে। এ সময় বৃষ্টি বাগড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে। বৃষ্টি হলে ক্রেতারা বের হতে পারেন না। আশা করছি বৃষ্টি থেমে গেলে ক্রেতা সমাগম বাড়বে।

বৃষ্টি বিপাকে পড়া ঈদ বাজারের ক্রেতা রেদোয়ান আহমেদ বার্তা২৪.কম কে বলেন, ‘সকালে পরিবারের জন্য কেনাকাটা করতে এসে বৃষ্টিতে আটকে পড়েছি। কেনাকাটা করার জন্য একটুও ঘুরতে পারিনি। রাস্তার পানি থেকে কাদা লেগে গেসে। কোনোরকমে ফিরতে পারলে হয় আরকি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/02/1559465192091.jpg
বৃষ্টিতে এক হাতে ছাতা অন্য হাতে রিকশার হ্যান্ডল ধরেই যাত্রীকে নিয়ে যাচ্ছেন তার গন্তব্যস্থলে, ছবি: বার্তা২৪

 

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া কেটে যাওয়ায় অপেক্ষায় আছেন খুলনার ঈদ বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতারা। বিশেষত মধ্যবিত্ত ও নিন্মবিত্তরাই ঈদের আগের এ মূহুর্তের কেনাকাটা করেন। বৃষ্টি কারণে ক্রেতা বিক্রেতার ঈদ কেনাকাটায় ভাটা পড়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

এইচএসসি’র ফলাফলে রাজশাহী মহিলা কলেজের চমক

এইচএসসি’র ফলাফলে রাজশাহী মহিলা কলেজের চমক
রাজশাহী সরকারি কলেজ/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজে এইচএসসির ফলাফলে চলতি বছর জিপিএ-৫ পাওয়ার হারে শিক্ষার্থীরা চমক দেখিয়েছে। এ বছর কলেজটির বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৮২ জন। অথচ গত বছর কলেজটি থেকে মাত্র ১০ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছিল।

শিক্ষাবোর্ড সূত্র জানায়, সরকারি মহিলা কলেজ থেকে এবার ১ হাজার ৩৮৫ জন পরীক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে পাস করেছে ১ হাজার ৩১৭ জন। পাসের হার ৯৫ দশমিক ০৯ শতাংশ।

এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাস করেছে ৬১৪ জন। ফেল করেছে ২৭ জন। মানবিকে পাস ও ফেলের সংখ্যা যথাক্রমে ৪৩০ ও ৩৯। আর ব্যবসা শিক্ষা বিভাগে পাস-ফেল যথাক্রমে ২৭৩ ও ২১ জন। এ বছর জিপিএ-৫ পাওয়া ১৮২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৫৯ জন বিজ্ঞান, ২১ জন মানবিক ও দুইজন ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী।

গত বছর শুধু বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগ থেকে পাঁচজন করে মোট ১০ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছিল। সে বছর ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের কেউ জিপিএ-৫ অর্জন করতে পারেনি।

এর আগে ২০১৭ সালে কলেজটি থেকে ৭০ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পায়। ২০১৬ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৭৭ জন। আর ২০১৫ সালে পেয়েছিল ৫৫ জন। এ বছর জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দা নীলুফার ফেরদৌস এই ফলাফলে ভীষণ খুশি। তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘আমাদের এবারের পাসের হার ৯৫ দশমিক ০৯ শতাংশ। এটা খারাপ না। জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যাও এবার অনেক বেড়েছে। তাই আমরা খুশি।’ অধ্যক্ষ আরও বলেন, ‘শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই ফলাফল অর্জন করা সম্ভব হয়েছে। ভবিষ্যতে যেন আরও ভাল করা যায় সেই চেষ্টাই থাকবে।‘

 

পঙ্গু হাসপাতালে দুদকের অভিযান

পঙ্গু হাসপাতালে দুদকের অভিযান
জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান

রাজধানীর শেরবাংলা নগরে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) রোগীদের হয়রানি ও অনিয়মের অভিযোগে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

হাসপাতালে দালালদের দৌরাত্ম্য ও সেবাপ্রাপ্তির জন্য রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার (১৭ জুলাই) দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জাহিদ কালামের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানের বিষয়টি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে নিশ্চিত করেছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য।

দুদক সূত্রে জানা যায়, দুদক টিম পরিচয় গোপন করে হাসপাতালের বিভিন্ন ইউনিট ঘুরে বেশ কিছু অনিয়ম দেখতে পায়। এ সময় বিভিন্ন সেবা দেওয়ার জন্য রোগীদের হয়রানি ও অধিক টাকা আদায়ের অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পায় দুদক টিম।

হাসপাতালে বহিরাগত এক ব্যক্তিকে কর্মরত অবস্থায় শনাক্ত করে তাকে হাসপাতাল পরিচালকের কাছে হস্তান্তর করে দুদক টিম। এ সময় হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক আব্দুল গনি মোল্লাকে হাসপাতালে সিসি টিভি ক্যামেরা স্থাপন, সার্ভিস কাউন্টার বাড়ানো, নিজস্ব ডিসপেনসারি চালু, হাসপাতালের সীমানা দৃঢ়করণসহ বেশ কিছু সুপারিশ করেছেন দুদক টিমের সদস্যরা।

বুধাবার নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে একজন প্রাক্তন রেলওয়ে কর্মচারী অবৈধভাবে রেলওয়ের জায়গা দখল করে রাখার অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক।

অভিযানে এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, বাচ্চু মিয়া ওরফে রেন্ট বাচ্চু নামে এক সাবেক রেল কর্মচারী নানাভাবে প্রভাব খাটিয়ে লিজ না নি‌য়ে বা নবায়ন না করে নরসিংদী স্টেশনের চারপাশের অনেক জায়গা দখল করেছেন। দুদক টিম এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে।

এছাড়া দুদকের অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন ১০৬) বি‌ভিন্ন অভিযোগের বিষ‌য়ে পদক্ষেপ নি‌য়ে কমিশনকে জানা‌তে ১১ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে চি‌ঠি পা‌ঠি‌য়ে‌ছে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র