Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

১২ লাখ টন ধান কিনবে সরকার: কৃষিমন্ত্রী

১২ লাখ টন ধান কিনবে সরকার: কৃষিমন্ত্রী
বিএআরসি অডিটোরিয়ামে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী, ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

সরকার দ্রুততার সঙ্গে বাজার থেকে ১২ টন ধান ও দুই লাখ টন চাল কিনবে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

মঙ্গলবার (২১ মে) রাজধানীর বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. রাজ্জাক বলেন, 'মিলারদের জরুরি ভিত্তিতে ধান কেনার জন্য বলেছি। সরকার ১২ লাখ টন ধান ও ২ লাখ টন চাল দ্রুত কিনবে। আমাদের ৩ কোটি ৫০ লাখ টন চাল উৎপাদনের বিপরীতে ১০-১২ লাখ টন কিনলে বাজারে খুব বেশি প্রভাব পড়বে না। তবে সীমিত পর্যায়ে রফতানিরও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ভারত, পাকিস্তান ও থাইল্যান্ডের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে আন্তর্জাতিক বাজারে আমাদের প্রবেশ করতে হবে।'

কৃষিমন্ত্রী বলেন, 'কিছু মিডিয়া বলে থাকে সরকার কৃষকের সঙ্গে নেই। কৃষকের পাশে সরকার না থাকলে কিভাবে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছি। বিভ্রান্তি ছড়ানোর জন্য উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে এ কথা বলছেন। দেশে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন হয়েছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। কৃষকদের কল্যাণে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।'

৩ হাজার কোটি টাকার কৃষি যন্ত্রাংশ কেনা হবে উল্লেখ্য করে মন্ত্রী বলেন, 'ধান কাটা ও লাগানোসহ কৃষি কাজে কৃষি শ্রমিক এখন বড় সমস্যা। এর একমাত্র সমাধান কৃষি যান্ত্রিকীকরণ। আমরা যান্ত্রিকীকরণ শুরু করেছি এবং অচিরেই শতভাগ যান্ত্রিকীকরণ সম্পন্ন করব। কৃষিতে ৯ হাজার কোটি টাকা প্রতি বছর ভর্তুকির থেকে বাকি ৩ হাজার কোটি টাকা যান্ত্রিকীকরণে ব্যয় করা হবে।'

তিনি আরও বলেন, 'সারের ব্যবহার অনেক কৃষক পরিমিতভাবে করেন না। অনেক সময় বেশি, আবার অনেক সময় কম ব্যবহার করে থাকেন। এজন্য সচেতনতা দরকার এবং কৃষকদের প্রশিক্ষিত করা দরকার। কৃষির সকল ক্ষেত্রে আমরা উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। এখন সারা বছর ধরে ফসল হচ্ছে। এ ফসল উৎপাদন অব্যাহত রাখার জন্য সার সুপারিশমালা হাত বই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।'

বিএআরসি’র চেয়ারম্যান ড. মো. কবির ইকরামুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল মান্নান এমপি ও কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান।

আপনার মতামত লিখুন :

একদিনে ৩০০ কর্মী ছাঁটাই করেছে পাঠাও

একদিনে ৩০০ কর্মী ছাঁটাই করেছে পাঠাও
পাঠাও লেগো

কোনো ধরনের নোটিশ ছাড়াই একদিনে ‘তিন শতাধিক’ কর্মীকে ছাঁটাই করেছে দেশীয় রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান পাঠাও। এর মধ্যে শীর্ষ পর্যায়ের কয়েকজন কর্মকর্তাও রয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৫ জুন)  এসব কর্মীদের ছাঁটাই করা হয় বলে পাঠাওয়ের একাধিক সূত্র থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে এ বিষয়ে পাঠাও কর্তৃপক্ষের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার কোনো ধরনের নোটিশ ছাড়াই ৩০০ কর্মীকে ছাঁটাই করা হয়। এদের মধ্যে এক্সিকিউটিভ অ্যাসিসটেন্ট ম্যানেজার ও কয়েকজন ডিপার্টমেন্টাল হেডও রয়েছেন বলেও জানা গেছে।

ছাঁটাই-এর বিষয়টি অস্বীকার না করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বার্তা২৪.কম-কে বলেন, বিষয়টি নিয়ে জানতে প্রসাশন বিভাগে যোগাযোগ করুন। 

তবে এ বিষয়ে ফোনে পাঠাও-এর লিড মার্কেটিং ম্যানেজার সৈয়দা নাবিলা মাহবুব ও জনসংযোগ কর্মকর্তা নাফিসা আদিতি সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি। 

জানা গেছে, যাদেরকে ছাঁটাই করা হয়েছে, তাদেরকে স্বেচ্ছায় চাকরি থেকে অব্যাহতি নিতে বাধ্য করা হয়েছে। অব্যাহতি নেওয়ার কারণ হিসেবে নেতৃত্বের অভাব ও অভিজ্ঞতার অভাবকে দেখানো হয়েছে।

২০১৬ সালের মাঝামাঝি সময়ে দেশে পাঠাও তাদের রাইড শেয়ারিং সেবা চালু করে।

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, চালক-হেলপারের মৃত্যু

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, চালক-হেলপারের মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি ট্রাক গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে খাদে পড়ে চালক-হেলপারের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (২৬ জুন) সকালে উপজেলার লেংরা বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী মাহমুদ বার্তা২৪.কমকে জানান, ট্রাকটি সম্ভবত উত্তরাঞ্চল থেকে আসছিলো। লেংরা বাজার এলাকায় আসার পর ময়মনসিংহ শহরগামী ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারায়। এ সময় একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে খাদে পড়ে যায়। এতে চালক ও হেলপার ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

ওসি আরও জানান, নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখনও তাদের পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র