Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

পায়ে মাড়িয়ে তৈরি হচ্ছে সেমাই, মিশছে শ্রমিকের ঘাম

পায়ে মাড়িয়ে তৈরি হচ্ছে সেমাই, মিশছে শ্রমিকের ঘাম
সেমাই ভাজতে ব্যবহার করা হয় এই পোড়া তেল। ছবি: বার্তা২৪.কম
উপজেলা করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
সাভার


  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদকে সামনে রেখে সরব হয়ে উঠেছে অসাধু সেমাই ব্যবসায়ীরা। সারা বছরের তুলনায় ঈদে সেমাইয়ের চাহিদা বাড়ে কয়েকগুণ। আর সেই সেমাইয়ের জোগান দিতেই অসৎ উপায় অবলম্বন করছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী।

সরেজমিনে সাভার পৌর এলাকার নামা বাজারের খালেক মার্কেটের পেছনে বাবলী ফুড লাচ্ছা সেমাই কারখানায় গিয়ে দেখা যায়, সেমাই তৈরির কাজে তারা নিম্নমানের ডালডা ও পোড়া তেল ব্যবহার করছে। এমনকি স্যাঁতসেঁতে মেঝের উপরে সেমাই তৈরির কাজে ব্যবহৃত ময়দা সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

সেই ময়দায় পানি দিয়ে খালি পায়ে মাড়িয়ে খামি তৈরি করছে শ্রমিকরা। কাজের ক্লান্তি ও গরমে খামিতে পা মাড়াতে মাড়াতে বেয়ে পড়ছে শ্রমিকদের শরীরের ঘাম।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/20/1558338178285.jpg

এছাড়া খামির সঙ্গে বিভিন্ন কাপড়ের কৃত্রিম রঙ মেশানো হচ্ছে। আর বাজারজাত করার সময় আকর্ষণীয় প্যাকেটে বিএসটিআইর নকল সিল মারা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বাবলী ফুড লাচ্ছা সেমাই কারখানার মালিক বাবুল হোসেন দেওয়ান বলেন, ‘আমার কারখানায় নোংরা পরিবেশে সেমাই তৈরি করা হয় না।’

শুধুমাত্র বাবলী ফুড লাচ্ছা সেমাই কারখানাতেই নয়, এ চিত্র সাভারের অধিকাংশ সেমাই তৈরির কারখানায়।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান কর্মকর্তা আমজাদুল হক জানান, এ সকল নোংরা পরিবেশে তৈরিকৃত সেমাই মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। এর ফলে গ্যাস্ট্রিক, ডায়রিয়া, আমাশয়, জন্ডিসসহ টাইফয়েডে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

তবে এ সকল অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন সাভার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজুর রহমান।

আপনার মতামত লিখুন :

‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী 

‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী 
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্র্যান্ড নিউ তৃতীয় বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’/ছবি: সংগৃহীত

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্র্যান্ড নিউ তৃতীয় বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ উড়োজাহাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়ে গেল বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট)।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনালে বেলা ১১টার দিকে উড়োজাহাজটির উদ্বোধন করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বের দরবারে বিমানের মাধ্যমেই বাংলাদেশ পরিচিতি পাবে। তিনি এ সময় আমদানি-রফতানি বাড়াতে দুটি কার্গো উড়োজাহাজ কেনার কথা জানান।

গত ২৫ জুলাই বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত গাঙচিল দেশে আসে। এ উড়োজাহাজ যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমানের বহরে বাণিজ্যিক উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫টি। সর্বশেষ (চতুর্থ) ড্রিমলাইনারটি বিমান বহরে যুক্ত হবে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে।

গাঙচিল-এ আসন সংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি আর ২৪৭টি ইকোনমি ক্লাস। বিজনেস ক্লাসে ২৪টি আসন ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত রিক্লাইন্ড সুবিধা এবং সম্পূর্ণ ফ্ল্যাটবেড হওয়ায় যাত্রীরা আরমদায়কভাবে স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে ভ্রমণ করতে পারবেন। উড়োজাহাজটিতে যাত্রীরা অন্যান্য আধুনিক সুবিধাসহ ইন্টারনেট ও ফোন কল করার সুবিধাও পাবেন। 

২০০৮ সালে বিমান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি ব্র্যান্ড নিউ উড়োজাহাজ কিনতে চুক্তি করে। ইতোমধ্যে চারটি নতুন বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দুটি নতুন বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও দুটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বিমানের বহরে যুক্ত হয়েছে।  

'হাওয়া ভবন থেকে গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল'

'হাওয়া ভবন থেকে গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল'
আলোচনা সভায় খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, '২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা হাওয়া ভবন থেকে করা হয়েছিল, তা প্রমাণিত। ১৫ ও ২১ আগস্টের হামলা একই সূত্রে গাথা।'

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের হোসেন চৌধুরী হলে '১৫ ও ২১ আগস্ট হামলা কি একই সূত্রে গাথা?' শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সভাটির আয়োজন করে বিবি ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন।

তিনি বলেন, 'বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার সম্পূর্ণভাবে হয় নাই। আগামী দিনে এই হত্যার রহস্য উদঘাটনের জন্য একটি তদন্ত কমিশন গঠন করতে হবে। এখন সময় হয়েছে ২১ আগস্টের খুনিদের এবং সমর্থনকারীদের নির্মূল করতে হবে, তা না হলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হবে না।'

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমালোচনা করে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, 'জিয়া পাকিস্তানের গুপ্তচর ছিলেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধকালীন সরকারের বিরোধিতা করেছিলেন, মু‌ক্তি‌যু‌দ্ধের প‌ক্ষে ছি‌লেন না।'

বিবি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বাহাদুর ব্যাপারীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য মো. রাশেদুল আলম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র