Alexa

ব্যস্ত সময় পার করছেন স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা

ব্যস্ত সময় পার করছেন স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা

ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা, ছবি: বার্তা২৪.কম

ঈদ উপলক্ষে সারাদেশে চাহিদা বাড়ে স্যান্ডেলের। ঈদের বাকি আর ২২ দিন। এরই মধ্যে কাজের অর্ডার নেয়া বন্ধ করে দিয়েছেন রংপুরের স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা। এ পর্যন্ত যেসব অর্ডার নিয়েছে সেগুলোই ডেলিভারি দিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। রাতদিন নিরলস পরিশ্রম করছেন।

চাহিদা অনুযায়ী এসব কারিগররা তৈরি করছেন জোড়ায় জোড়ায় নানান মাপের স্যান্ডেল। সমাজের নিম্ন ও মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষ তাদের মূল ক্রেতা। ফলে এটা মাথায় রেখেই দাম নির্ধারণ করা হয়।

জানা গেছে, গতানুগতিক জুতা বা স্যান্ডেল তৈরির কারখানার চেয়ে একটু ভিন্ন এসব কারিগররা। রাবার কার্টিজ থেকে শুরু করে আঠা বসান, ফিনিশিং, প্রিন্টিং সবই হচ্ছে তাদের হাতের নিখুঁত ছোঁয়ায়। শুধু সাইড ফিনিশিংয়ের কাজটা করা হয় মেশিন দিয়ে। রংপুর নগরীর আট থেকে দশটি কারখানায় স্যান্ডেল তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কারিগররা।

ব্যস্ত সময় পার করছেন স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা

ঈদকে ঘিরে কারখানা মালিকদের দেড় থেকে চার লাখ টাকার ব্যবসা হবে বলেও জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১৪ মে) রংপুর মহানগরীর জাহাজ কোম্পানি মোড়ের রিপোর্টার্স ক্লাব লেনের দুটি ছোট কারখানায় কারিগরদের অত্যন্ত ব্যস্ত দেখা গেছে।

আরএস সুজ-এর সত্ত্বাধিকারী তাপস দাস বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'এখন অর্ডার নেয়া বন্ধ রাখা হয়েছে। ঈদকে ঘিরে বিভিন্ন সাইজের স্যান্ডেল তৈরি করা হচ্ছে। আমার এ খাতে এখন প্রতিদিন চারজন কারিগর কাজ করছে। তাদের প্রতিজনকে দৈনিক ৪০০-৫০০ টাকা করে মজুরি দেয়া হচ্ছে।'

ব্যস্ত সময় পার করছেন স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা

তিনি আরও জানান, ঈদকে সামনে রেখে কয়েকশ ডজন স্যান্ডেল বিক্রির টার্গেট করেছে আরএস সুজ। প্রচণ্ড গরমে কারিগরদের শরীর থেকে ঘাম ঝরলে কাজ থেমে নেই। তবে মাথার ওপর ছোট ফ্যানই এ গরমের একমাত্র ভরসা।

কাজ করতে করতে জীবন দাস নামের এক কারিগর বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'কাজের চাপ অনেক, তাছাড়া টার্গেট আছে। আগামী ১৫ রমজানের মধ্যে আমরা ৬০০ জোড়া স্যান্ডেল তৈরির কাজ শেষ করব। এসব স্যান্ডেল আমাদের নিজস্ব দোকানে খুচরা বিক্রি করা ছাড়াও আশপাশের ছোট ছোট দোকানেও দেয়া হবে। একারণে একটু ব্যস্ততা বেড়েছে।'

ব্যস্ত সময় পার করছেন স্যান্ডেল তৈরির কারিগররা

প্রত্যেক জোড়া স্যান্ডেল সাইজ ও মান অনুযায়ী ২৫০-৪৫০ টাকায় বিক্রি হবে। এসব স্যান্ডেলের দাম কম হলেও বেশি দিন ব্যবহার করা যায় বলে জানালেন আরেক কারিগর।

হাবিব বুট হাউস-এর খাইরুল ইসলাম শুভ বার্তা২৪.কম-কে বলেন, '১৫ রমজানের পর থেকে স্যান্ডেলের চাহিদা বেড়ে যাবে। তবে ঈদের আগের রাতে আমাদের বানানো স্যান্ডেল সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়।'

আপনার মতামত লিখুন :