Alexa

ভোটার তালিকা হালনাগাদ, রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে সতর্ক

ভোটার তালিকা হালনাগাদ, রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে সতর্ক

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান। ছবি: বার্তা২৪.কম

‘রোহিঙ্গারা যাতে ভোটার হতে সুযোগ না পায়, সেজন্য দেশের ৩২টি উপজেলাকে রোহিঙ্গা জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তথ্য সংগ্রহকারীদেরকে রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার নির্দেশনাও দেয়া রয়েছে। তারপরও অনেকেই উত্তরাঞ্চলে এসে ভোটার হতে সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করতে পারে। এজন্য তথ্য সংগ্রহকারী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করতে হবে।’

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে রংপুরে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসূচির অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান।

রংপুর জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই কার্যক্রমের উদ্বোধনী আয়োজনে মোখলেসুর রহমান বলেন, ‘নির্ভুল ভোটার তালিকা প্রণয়ন একটি বড় চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জে নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করা সকলের দায়িত্ব। দেশের ১৩৫টি উপজেলা, সিটি ও পৌর এলাকায় ২৩ এপ্রিল থেকে ১৩ মে পর্যন্ত প্রথম পর্যায়ের হালনাগাদ কার্যক্রম চলবে। তথ্যসংগ্রহকারী ও সুপার ভাইজাররা প্রত্যেক এলাকায় যাবেন। এরপর পর্যায়ক্রমে দেশের ৪৯২টি উপজেলাসহ সকল থানা এলাকায় তথ্য হালনাগাদ করা হবে।’

যাদের বয়স ১৬ চলছে তাদেরও তথ্য সংগ্রহ করা হবে উল্লেখ করে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘ভোটার হওয়া একটি সাংবিধানিক অধিকার। তবে দ্বিতীয়বার কেউ ভোটার হতে চেষ্টা করলে, তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করা হবে। এখন থেকে দশটি আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের আইরিশের ছাপ ও ছবি নেয়া হবে। হালনাগাদে কেউ পূর্বের ছোট ছোট ভুল ক্রটি সংশোধনের সুযোগ পাবে না। ভুল সংশোধনের জন্য সংশ্লিষ্ট নির্বাচন অফিসে যেতে হবে।’

অনুষ্ঠানে রংপুর বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আবু তাহের মোহাম্মদ মাসুদ রানার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন- বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি অফিসের পুলিশ সুপার এনামুল হক এনাম, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবু সুফিয়ান, রংপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু মারুফ হোসেন, রংপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শুকরিয়া পারভীন, রংপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জি.এম. সাহাতাব উদ্দিন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ‘দেশে বর্তমানে ১০ কোটি ৪৩ লাখের মতো ভোটার রয়েছে। যারা এখনো স্মার্ট কার্ড পায়নি, তারাও পর্যায়ক্রমে পেয়ে যাবে। স্মার্ট কার্ডে ৪৬টি তথ্য আছে। এই আইডি কার্ডের ব্যবহার ব্যাপক। এবার সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া দেড়শ কোটি টাকা ব্যয়ে ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে প্রবাসে থাকা বাংলাদেশিদেরও ভোটার হবার সুযোগ রাখা হয়েছে। প্রথমে সিঙ্গাপুরের প্রবাসীদের দিয়ে সেই কার্যক্রম শুরু করা হবে।’

অনুষ্ঠানে নগরীর বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীদের তথ্য হালনাগাদ করে এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব মোখলেসুর রহমান।

আপনার মতামত লিখুন :