Barta24

বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

English

নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢালেন সহপাঠী জাবেদ

নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢালেন সহপাঠী জাবেদ
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন মো. ইকবাল/ছবি: বার্তা২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ফেনী: সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির গায়ে কেরোসিন ঢালেন তারই সহপাঠী জাবেদ। আর আগুন যাতে ভালোভাবে লাগে সেজন্য নুসরাতকে চেপে ধরেন আরেক সহপাঠী কামরুন্নাহার মনি।

এভাবেই নুসরাত হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবাবন্দি দিয়েছেন কামরুন্নাহার মনি ও জাবেদ।

শনিবার (২০ এপ্রিল) বিকেলে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিন আহমদের আদালতে তাদের হাজির করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

কয়েক ঘণ্টার জবানবন্দি রেকর্ডের পর রাত ১০টার দিকে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান পিবিআই এর চট্টগ্রাম বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. ইকবাল।

তিনি বলেন, আদালতে এ দু’জন স্বীকারোক্তি দিয়েছেন যে তারা নুসরাত কিলিং মিশনে সরাসরি জড়িত ছিলেন। নুসরাতের সারা শরীরে কেরোসিন ঢেলে দেন জাবেদ। আর আগুন ভালো করে লাগার জন্য নুসরাতকে চেপে ধরেন মনি।

তিনি আরো বলেন, এ জবানবন্দিতে নতুন কিছু নামও উঠে এসেছে। তবে তদন্তের স্বার্থে তা উল্লেখ করা যাবে না।

এর আগে ১৫ এপ্রিল কামরুন্নাহার মনিকে সোনাগাজী থেকে গ্রেফতার করা হয়। ১৭ এপ্রিল একই আদালতে তাকে সাতদিনের রিমান্ড দেওয়া হয়। শুক্রবার মনিকে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যায় পিবিআই। সে সময় মনি কীভাবে নুসরাতের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে তার বর্ণনা দেন। অপরদিকে, জাবেদকে ১৩ এপ্রিল চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। ওই দিন থেকে তাকে সাতদিনের রিমান্ড দেন আদালত। শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেলে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরাফ উদ্দিন আহমেদের আদালত আবার তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

নুসরাত হত্যার ঘটনায় এখন পর্যন্ত এজহারভুক্ত আটজনসহ মোট ২০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন সাতজন। ১৩ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড দেওয়া হয়েছে। সর্বশেষ সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মাদরাসা কমিটির সহ-সভাপতি রুহুল আমিনকে পাঁচদিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

উল্লেখ্য, বুধবার (১০ তারিখ) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ফেনীর সোনগাজী উপজেলার সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান। তার মৃত্যুতে দেশজুড়ে নেমে আসে শোকের ছায়া। এর আগে ২৭ মার্চ নুসরাতকে যৌন হয়রানির অভিযোগে গ্রেফতার হন ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা। এর জের ধরে ৬ এপ্রিল নুসরাতকে পরীক্ষার হল থেকে ডেকে ছাদে নিয়ে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় সিরাজের অনুসারীরা।

আপনার মতামত লিখুন :

রুয়েট ছাত্রীকে যৌন হয়রানির ঘটনায় মামলা

রুয়েট ছাত্রীকে যৌন হয়রানির ঘটনায় মামলা
ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহী নগরীতে অটোরিকশায় বখাটেদের যৌন হয়রানির শিকার রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) সেই ছাত্রী মামলা করেছেন। নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় দায়েরকৃত মামলায় অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করেছেন তিনি।

বুধবার (২১ আগস্ট) দুপুরে রাজশাহী নগরীর বোয়ালিয়া মডের থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ এ তথ্য জানান। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী।

ছাত্রীর অভিযোগ, সোমবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে রুয়েটের সামনে থেকে অটোরিকশায় ওঠার পর তালাইমারী থেকে অটোচালক তার পরিচিত চার যুবককে ওই অটোতে তুলেন। পরে তালাইমারী থেকে নগরভবন পর্যন্ত ওই যুবকরা তাকে হয়রানি করেন। একপর্যায়ে তিনি চিৎকার করলে নগরভবনের সামনে তাকে চলন্ত অটো রিকশা থেকে ফেলে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: রুয়েট ছাত্রীকে উত্যক্ত করে অটো থেকে ফেলে দিল ৪ যুবক!

ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) রাত সাড়ে ১০টার দিকে ভুক্তভোগী ছাত্রী থানায় এজহার দাখিল করেন। পরে সেটি মামলা আকারে গ্রহণ করা হয়। মামলায় অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন অটোরিকশা চালক এবং অন্যরা তার পরিচিত কেউ।’

তিনি আরও বলেন, ‘যে সড়কে ঘটনাটি ঘটেছে, ইতোমধ্যে সেই সড়কের পাশে থাকা ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। আমরা আসামিদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। জড়িতদের চিহ্নিত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আরও পড়ুন: রুয়েট শিক্ষককে লাঞ্ছিত ও স্ত্রীকে যৌন হয়রানি, গ্রেফতার ৩

রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপ-কমিশনার আবু আহাম্মদ আল মামুন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘রুয়েটের ওই ছাত্রী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার পর বিষয়টি আমাদের নজরে আসে। এরপর ওই শিক্ষার্থীকে অভিভাবকসহ থানায় ডাকা হয়। মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) তাকে মহানগর ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এরপরই থানায় একটি মামলা দায়ের করার সিদ্ধান্ত নেন ভুক্তভোগী।’

গত ১০ আগস্ট রাজশাহী নগরীতে স্ত্রীকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করে বখাটেদের হামলার শিকার হন রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. রাশিদুল ইসলাম। ওই ঘটনায় রাজশাহীজুড়ে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা সৃষ্টি হয়। সেই ঘটনার রেশ না কাটতেই অটোতে তুলে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠায় প্রশাসনের গাফিলতির অভিযোগ ওঠে। তবে রুয়েট শিক্ষক দম্পতিকে লাঞ্ছিতের ঘটনায় তিন যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সহপাঠীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার

সহপাঠীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার
অভিযুক্ত শিক্ষার্থী শিঞ্জন রায়, ছবি: সংগৃহীত

খুলনায় সহপাঠীকে ধর্ষণের অভিযোগে নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়‌ের শিক্ষার্থী শিঞ্জন রায়কে (২৫) সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

বুধবার (২১ আগস্ট) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জানানো হয়, সহপাঠীকে ধর্ষণ ও গর্ভবতী করার অভিযোগে নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শিঞ্জন রায়কে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। একইসঙ্গে ঘটনার তদন্তে ৩ সদস্যর কমিটি গঠিত হয়েছে।

নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয় খুলনা শাখার উপাচার্য প্রফেসর ড. তারাপদ ভৌমিক বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শিঞ্জণের ঘটনাটি শোনার পর মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের পর নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ারম্যানের সঙ্গে আলোচনা করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিঞ্জনকে সাময়িক বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ঘটনাটি তদন্তের জন্য ৩ সদস্যর কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. নওশের আলী মোড়লকে তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র