Barta24

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

১০ হাজার রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা

১০ হাজার রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা
বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান অনুষ্ঠানে অতিথিরা/ ছবি: সংগৃহীত
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে রাজধানীর মহাখালীতে প্রায় ১০ হাজার রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিএমসিএ) উদ্যোগে এই সেবা প্রদান করা হয়। মহাখালীর টিঅ্যান্ডটি মহিলা কলেজ মাঠে এই সেবা দেওয়া হয়।

‘ফ্রি মাল্টি স্পেশালাইজড মেডিকেল ক্যাম্প’-এর আওতায় এই চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) দুপুরে পরিদর্শন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হোসেন, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের এই উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন, ‘বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলো এগিয়ে আসায় চিকিৎসা সেবায় বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে গেছে। দেশের স্বাস্থ্য সেবায় তারা অনেক অবদান রাখছে। তবে কিছু কিছু বেসরকারি মেডিকেল কলেজের দুর্বলতা আছে। সেগুলো সকলের সহযোগিতায় দূর করার চেষ্টাও করা হচ্ছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাস্থ্যসেবায় সব ধরণের সহযোগিতা করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ মন্তব্য করে বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোকে সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

বিপিএমসিএ-এর সভাপতি এম এ মুবিন খান জানান, ১৫টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ থেকে তিন শতাধিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, ইন্টার্ন চিকিৎসক ও নার্সসহ অন্যান্য বিভাগের পেশাদার টেকনোলজিস্টরা এই ক্যাম্প পরিচালনা করেন।

বিনা মূল্যে এই চিকিৎসা সেবা নেওয়া রোগীদের অধিকাংশই কড়াইল বস্তির বাসিন্দা। এই চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প উপলক্ষে টি অ্যান্ডটি মহিলা কলেজ মাঠে ১০০টি বুথ খোলা হয়। এসব বুথে বসে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়।

মুবিন খান বলেন, ‘এটা এ সময়ের সবচেয়ে বড় চিকিৎসা সেবা ক্যাম্প। সেবা দেওয়া ছাড়াও কোনো কোনো রোগীকে বিনা মূল্যে ওষুধ দেওয়ার পাশপাশি রক্ত, ডায়াবেটিস, চোখ, কান, নাক, গলার পরীক্ষা করে প্রতিবেদন ও পরামর্শ দেওয়া হয়।’

আপনার মতামত লিখুন :

পার্লামেন্টারি ফোরামের সভা শেষে দেশে ফিরলেন স্পিকার

পার্লামেন্টারি ফোরামের সভা শেষে দেশে ফিরলেন স্পিকার
স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী/ ছবি: সংগৃহীত

‘পার্লামেন্টারি ফোরাম অ্যাট দ্য ২০১৯ হাই লেভেল পলিটিক্যাল ফোরাম অন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট এন্ড রিলেটেড মিটিং’ শেষে দেশে ফিরেছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। শনিবার (২০ জুলাই) বিকালে তিনি দেশে ফেরেন।

স্পিকার গত ১৫ জুলাই ইউএন কনফারেন্স বিল্ডিংয়ে ‘গ্রোয়িং ইনিকোয়ালিটিস এন্ড ডিসট্রাস্ট ইন গভর্নমেন্ট: ব্রেকিং দ্য সাইকেল’ শীর্ষক সেশনে আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন। জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন আয়োজিত এসডিজি লক্ষ্য পূরণে বাংলাদেশের অর্জন ও ভবিষ্যৎ করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় স্পিকার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন কর্মসূচিতে যোগ দেন।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর নেতৃত্বে পার্লামেন্টারি ফোরামের অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের অপর সদস্য ছিলেন সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. জাফর আহমেদ খান।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে স্পিকারকে স্বাগত জানাতে সংসদ সচিবালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব আ ই ম গোলাম কিবরিয়া সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

যুবলীগে তৃণমূলের ত্যাগী কর্মীরাই পদ পাবেন

যুবলীগে তৃণমূলের ত্যাগী কর্মীরাই পদ পাবেন
রংপুরে যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

যুবলীগে তৃণমূলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত কর্মীরাই পদ-পদবি পাবেন বলে জানিয়েছেন দলের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী।

শনিবার (২০ জুলাই) বিকেলে রংপুর জিলা স্কুল মাঠে মহানগর যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা জানান।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, ‘বাংলাদেশকে ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত আধুনিক এবং প্রগতিশীল রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বের দরবারে উপস্থাপন করতে যুবলীগ কর্মীদের সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করতে হবে। যুবকদের মাধ্যমেই দেশ দ্রুত পরিবর্তন করা সম্ভব’

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ ও আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ এইচ এন আশিকুর রহমানসহ রংপুর মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের এবং যুবলীগের নেতা-কর্মীরা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র