Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

জাপা উন্নয়নের পক্ষেই কথা বলছে: রাঙ্গা

জাপা উন্নয়নের পক্ষেই কথা বলছে: রাঙ্গা
ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
রংপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেছেন, বিরোধী দলে আছি মানে উন্নয়ন থমকে থাকবে না। জাতীয় পার্টি (জাপা) উন্নয়নের পক্ষেই সংসদে কথা বলে যাচ্ছে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রংপুরের গঙ্গাচড়ায় উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘‘অনেক উন্নয়ন করেছি। এখনো কাজ চলছে। আগামীতে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। আমার উপজেলার একটি রাস্তাও কাঁচা থাকবে না। সব রাস্তা পিচ ঢালা হবে। বর্তমান সরকারের সহযোগিতায় গঙ্গাচড়ার দারিদ্র মানুষের ভাগ্যের দ্বার উম্মোচন করা হবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/19/1555688119317.jpg

দুপুরে উপজেলার বেতগাড়ী ইউনিয়নের সয়রাবাড়ী বাজার থেকে চান্দামারী পর্যন্ত রাস্তার ওপর নির্মিত ৪০ মিটার একটি দীর্ঘ ব্রিজের উদ্বোধন করেন তিনি। পশ্চিম বড়বিল নতুন জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। বিকালে বেতগাড়ী পেওলাদাহ বানিয়াপাড়া পুরাতন জামে মসজিদের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। সন্ধ্যায় গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ টিআর কর্মসূচির আওতায় স্থানীয় সাংবাদিকদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরণ করেন।

দিনব্যাপী কর্মসূচিতে গঙ্গাচড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, ভাইস চেয়ারম্যান সাজু আহম্মেদ লাল, রংপুর জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, উপজেলা জাপার সভাপতি সামসুল আলম, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, রংপুর সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কোকিলা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :

রোহিঙ্গাসহ মানব পাচারকারী চক্রের ১৩ সদস্য আটক

রোহিঙ্গাসহ মানব পাচারকারী চক্রের ১৩ সদস্য আটক
রোহিঙ্গাসহ মানব পাচারকারী চক্রের ১৩ সদস্য আটক, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ র‍্যাব-১০ এর একটি বিশেষ অভিযানে দু’জন রোহিঙ্গাসহ মানব পাচারকারী চক্রের ১৩ সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এলাকায় র‍্যাব-১০ এর একটি বিশেষ অভিযানে তাদের আটক করা হয়।

অভিযানে শেষে বিষয়ে র‍্যাব-১০ এর উপ-অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ আশরাফুল হক বলেন, ভুয়া কাগজপত্র, ভিসা ও পাসপোর্ট তৈরি করে বাংলাদেশি নাগরিক পরিচয়ে বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন দেশে পাঠানোর চেষ্টাকারী একটি চক্রের ১১ সদস্যকে আটক করা হয়েছে। আমাদের অভিযান এখনও চলমান দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হাজী নূর হোসেন বেপারি ঘাট এলাকায়। অভিযানে আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি এই চক্রটি রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদের জাল কাগজপত্র, ভিসা ও পাসপোর্ট তৈরি করে বাংলাদেশি নাগরিক পরিচয়ে দিয়ে মালয়েশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে পাঠাত।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/19/1563480724435.jpg

তিনি বলেন, অভিযানে ২ জন রোহিঙ্গাকেও আটক করা হয়েছে। তারা এই চক্রের মাধ্যমে নকল পাসপোর্ট বানিয়ে বিদেশে যেতে চেয়েছিল। অভিযানে ২৫১টি পাসপোর্ট উদ্ধার করা হয়। এছাড়া পাচারকারী চক্রের সঙ্গে পাসপোর্ট অফিসের কেউ অথবা ইমিগ্রেশনের কেউ জড়িত আছে কিনা তাও তদন্ত করে দেখা হবে।

মিন্নির নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবি মহিলা পরিষদের

মিন্নির নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবি মহিলা পরিষদের
আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বরগুনার চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। একই সঙ্গে এই মামলায় গ্রেফতার হওয়া রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণেও দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আয়েশা খানমের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব দাবি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের মামলায় তারই স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দ্রুত গতিতে আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে রিমান্ডে নেওয়া হলো। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত এসপির বরাত দিয়ে সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, মিন্নি জড়িত থাকার সত্যতা পাওয়া গিয়েছে।

মিন্নি একটি প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। কিন্তু পরবর্তী প্রশ্নের উত্তর দেননি। তাই এ বিষয়ে বস্তুনিষ্ঠ তদন্তসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী অভিযুক্ত মিন্নির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে প্রশাসনকে।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ মনে করে, বহু গুরুতর অপরাধ, শত খুনের আসামিদের পাশে আইনজীবীরা দাঁড়ান। নারী নির্যাতন না শুধু হত্যাকারীদের পাশেও দাঁড়ান।

তারা বলেন, মানবাধিকার নীতিমালা অনুযায়ী আসামিরাও লিগ্যাল প্রটেকশন পাওয়ার অধিকার আছে। সুতরাং ইচ্ছা বা অনিচ্ছায়, চাপ বা অন্য কারণে যা কিছু হোক বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ, আইনানুগ, স্বচ্ছ তদন্ত হবে এবং আসামিরও ব্যক্তিগত নিরাপত্তার বিষয়টি দাবি করে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র