Alexa

রোবট নিনো উদ্বোধন করল বিজ্ঞান উৎসব

রোবট নিনো উদ্বোধন করল বিজ্ঞান উৎসব

বিজ্ঞান উৎসব উদ্বোধন করল রোবট, ছবি: সংগৃহীত

ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবনী সব প্রকল্প, নানান রকম প্রশ্ন-উত্তর, রোবটের নাচ, বিজ্ঞানের মজার বইয়ের সাথে পরিচিতিসহ আরো অনেক আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিজ্ঞান উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করে হিউম্যানয়েড রোবট নিনো।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রাজধানীর সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের মাঠে দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ এবং বিজ্ঞান ভিত্তিক মাসিক পত্রিকা বিজ্ঞান-চিন্তার যৌথ আয়োজনে প্রায় ৭০০ শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে বিজ্ঞান উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়।

অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে নিনো বলে, ‘তোমাদের সরব উপস্থিতি জাতিকে স্বপ্ন দেখাবে, তোমাদের মধ্যে থেকেই বেরিয়ে আসবে আইনস্টাইন, নিউটন, স্টিফেন হকিংয়ের মতো বিজ্ঞানীরা। আমি বিজ্ঞান উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করছি।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিকাশের চিফ এক্সটারনাল অ্যান্ড করপোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার মেজর জেনারেল(অব:) শেখ মোঃ মনিরুল ইসলাম, সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ রবি পিউরিফিকেশন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. আরশাদ মোমেন, বাংলাদেশ পারমানবিক শক্তি কমিশনের সাবেক জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড.রেজাউর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল ফিজিক্স ও টেকনোলজি বিভাগের খণ্ডকালীন অধ্যাপক ড. সিদ্দিক-ই-রব্বানী এবং বিজ্ঞান চিন্তার সম্পাদক আবদুল কাইয়ুম সহ আরো অনেকে।

ঢাকা আঞ্চলিক উৎসবে ঢাকার ৩০টি স্কুলের শিক্ষার্থীরা দলগতভাবে প্রায় ১০০টি প্রকল্প উপস্থাপন করে। উৎসবের আগে নিবন্ধনের ভিত্তিতে প্রাথমিক যাচাই-বাছাই শেষে এই প্রকল্পগুলো প্রদর্শিত হয়। কুইজ পর্বেও বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। বিজ্ঞান প্রকল্পে এবং কুইজে বিজয়ীদের পুরস্কারও বিতরণ করা হয় এবং এখান থেকে ১৫টি প্রকল্প জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচন করা হয়।

বিকাশের চিফ এক্সটারনাল অ্যান্ড করপোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার মেজর জেনারেল(অব:) শেখ মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের যে ছোঁয়া বা ব্যবহার চলছে, সেগুলোর সঙ্গে যুক্ত না থাকলে আমরা পিছিয়ে যাব। বিজ্ঞানের প্রসারে শিক্ষার্থীদের এই সুযোগের সঙ্গে যুক্ত থেকে বিকাশ গর্বিত। এটা শিক্ষার্থীদের মানসিক ও চিন্তাশক্তির বিকাশ ঘটাবে বলে মনে করি।’

বিজ্ঞান চিন্তার সম্পাদক আবদুল কাইয়ুম বলেন, ‘প্রায় ১০০টি প্রকল্প প্রদর্শিত হচ্ছে এই উৎসবে। এর প্রভাব সমাজে নিশ্চয় পড়বে।’

‘বিজ্ঞানে বিকাশ’ স্লোগান নিয়ে সারাদেশের বিভাগীয় শহর গুলোতে স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য বিজ্ঞান উৎসব আয়োজন করা হবে। অনুষ্ঠানের সার্বিক আয়োজনে সহযোগিতা করেছে প্রথম আলো বন্ধুসভা।

২০১১ সালে কার্যক্রম শুরু করা বিকাশ লিমিটেড ব্যাংকিং সেবা ভিতরে ও বাইরে থাকা বাংলাদেশের একটি বিশাল জনগোষ্ঠীকে নানা ধরনের মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস দিয়ে আসছে। বিকাশ- ব্র্যাক ব্যাংক, ইউএস ভিত্তিক মানি ইন মোশন, ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্রুপের অন্তর্গত প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশন, বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এবং অ্যান্ট ফিনান্সিয়াল-এর যৌথ মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠান।

আপনার মতামত লিখুন :