Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

মসিকে প্রতীক বরাদ্দ, শুরু হলো প্রচার

মসিকে প্রতীক বরাদ্দ, শুরু হলো প্রচার
মসিকে প্রতীক বরাদ্দ, শুরু হলো প্রচার। ছবি: বার্তা২৪.কম
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
ময়মনসিংহ
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন (মসিক) নির্বাচনে ৩৩টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৪২ জন ও ১১টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৭০ জন প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) সকাল থেকে আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও মসিকের রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

এর মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। যা চলবে ভোটগ্রহণের ৩২ ঘণ্টা আগ পর্যন্ত।

প্রতীক বরাদ্দের সময় সকল প্রার্থীকে আচরণবিধি মেনে প্রচার-প্রচারণা চালানোর আহ্বান জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান।

এদিকে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, মসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ইকরামুল হক টিটু ও জাপার জাহাঙ্গীর আহমেদসহ মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন পাঁচজন। এর মধ্যে আবু মো. মুসা সরকার, শহীদুল ইসলাম স্বপন মণ্ডল ও বিশ্বজিৎ ভাদুরী ভোটারের স্বাক্ষর জালের ঘটনায় ফেঁসে গিয়ে প্রার্থিতা হারান। পরে জাপা মনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আহমেদ মনোনয়ন প্রত্যাহার করলে ইকরামুল হক টিটুকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

তফসিল অনুযায়ী আগামী ৫ মে অনুষ্ঠিত হবে মসিক নির্বাচন। ৩৩টি ওয়ার্ডে এই নির্বাচনে মোট ভোটার ২ লাখ ৯৬ হাজার ৯৩৮ জন। ১২৭টি ভোটকেন্দ্রের সবগুলোতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এই ভোটের জন্য সব মিলিয়ে প্রায় ১১ কোটি টাকা ব্যয় ধরেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

আপনার মতামত লিখুন :

বন্যার কারণে ট্রেনের যেসব রুটে পরিবর্তন

বন্যার কারণে ট্রেনের যেসব রুটে পরিবর্তন
ট্রেনের বেশ কয়েকটি রুটে পরিবর্তন এনেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ/ ছবি: সংগৃহীত

দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যার কারণে রেললাইন পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ার ফলে বাংলাদেশ রেলওয়ের পক্ষ থেকে সেসব রুটে ট্রেন চলাচলে পরিবর্তন নিয়ে আসা হয়েছে এবং কিছু রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) এ তথ্য জানান বাংলাদেশ রেলওয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমান।

মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমান জানান, বন্যার কারণে বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের জামালপুর-দেওয়ানগঞ্জ বাজার সেকশনের বিভিন্ন স্থানে এবং জামালপুর-তারাকান্দি সেকশনের সরিষাবাড়ী-বয়ড়া সেকশনের মধ্যবর্তী স্থানে রেললাইন পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

এর ফলে আন্তঃনগর তিস্তা, যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, অগ্নিবীণা এক্সপ্রেস ট্রেনসহ ঢাকা, ময়মনসিংহ ও চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা অন্যান্য মেইল/এক্সপ্রেস, কমিউটার, লোকাল ট্রেন সমূহ দেওয়ানগঞ্জ বাজার ও তারাকান্দি/বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব পর্যন্ত চলাচল না করে জামালপুর স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করছে।

তিনি জানান, রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চল বাদিয়াখালি রোড ত্রিমোহনী জংশন স্টেশনের মধ্যবর্তী স্থানে রেললাইন বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া আন্তঃনগর লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা-সান্তাহার- বগুড়া-বোনারপাড়া-কাউনিয়া-লালমনিরহাট রুটের পরিবর্তে ঢাকা-সান্তাহার-পার্বতীপুর-লালমনিরহাট রুটে ও রংপুর এক্সপ্রেস ঢাকা সান্তাহার-বগুড়া -বোনারপাড়া-কাউনিয়া-রংপুর রুটের পরিবর্তে ঢাকা সান্তাহার-পার্বতীপুর -রংপুর রুটে চলাচল করবে।

এছাড়া আন্তঃনগর দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেনটি দিনাজপুর-সান্তাহার-দিনাজপুর রুটের পরিবর্তে দিনাজপুর-গাইবান্ধা-দিনাজপুর রুটে ও আন্তঃনগর করতোয়া এক্সপ্রেস সান্তাহার-বুড়িমারি-সান্তাহার রুটের পরিবর্তে সান্তাহার-বোনারপাড়া-সান্তাহার পর্যন্ত চলাচল করবে। পদ্মরাগ এক্সপ্রেস ট্রেনটি বাদিয়াখালি স্টেশনে আটকা পড়ায় সান্তাহার-লালমনিরহাট-সান্তাহার রুটে চলাচল করবে না।

অপরদিকে পাঁচবিবি উলিপুর স্টেশনের মধ্যবর্তী স্থানে রেললাইন বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় লোকাল ট্রেন পার্বতীপুর-কুড়িগ্রাম-পার্বতীপুর ও লোকাল ট্রেন তিস্তা জংশন-কুড়িগ্রাম-তিস্তা রুটে চলাচল করবে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হয়, বন্যার পানি সরে যাওয়ার পর অতি দ্রুত রেললাইন মেরামত করে এসব রুটে পূর্বের ন্যায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করা হবে।

কৃষক বাঁচাতে হলে উৎপাদন খরচ কমাতে হবে: কৃষিমন্ত্রী

কৃষক বাঁচাতে হলে উৎপাদন খরচ কমাতে হবে: কৃষিমন্ত্রী
অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কৃষিমন্ত্রী ড.মো. আব্দুর রাজ্জাক, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

কৃষক বাঁচাতে হলে উৎপাদন খরচ কমাতে হবে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড.মো. আব্দুর রাজ্জাক।

তিনি বলেছেন, ‘বোরো ধানের মূল্য নিয়ে আমরাও চিন্তিত। কৃষক যদি তার ফসলের ন্যায্য মূল্য না পায়, তাহলে কৃষক বাঁচবে কি করে? কৃষক বাঁচাতে হলে কৃষির উৎপাদন খরচ কমাতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন আধুনিক কৃষির। বিদেশের বাজারে কৃষি পণ্য প্রবেশ করার সক্ষমতা অর্জন করতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর হোটেল রেডিসনে কৃষি যন্ত্রপাতি এবং কৃষিপণ্য পরিবহনে মজবুত, টেকসই গাড়ির পরিচিতি অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘কৃষিকে লাভজনক করার জন্য যান্ত্রিকীকরণ অপরিহার্য। কৃষির আধুনিকায়ন তথা যান্ত্রিকীকরণের জন্য ৪ থেকে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ আজ বিশ্বের কাছে রোল মডেল, উন্নয়নের রোল মডেল। বিদেশি সাহায্য নির্ভরতা কমিয়ে এনেছে সরকার। কৃষি উন্নয়নে আমরা সবকিছু করব। কৃষকদের জন্য আমাদের ভাবতে হবে।’

মা এন্টারপ্রাইজের চেয়ারম্যান কৃষিবিদ আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে রিয়ার এডমিরাল (অবসরপ্রাপ্ত) কাজী সারোয়ার হোসেন বক্তব্য রাখেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র