Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

অবশেষে ঘড়ির টাকা ফেরত পেল সেই যুবক

অবশেষে ঘড়ির টাকা ফেরত পেল সেই যুবক
ছবিঃ বার্ত২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
লক্ষ্মীপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

অনলাইন শপে অর্ডার দিয়ে প্রতারিত হওয়া লক্ষ্মীপুরের সেই যুবক পিয়াস সরকার ঘড়ির জন্য দেওয়া ১ হাজার ৮০০ টাকা ফেরত পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) রাত ৯ টার দিকে টাকা বুঝে পাওয়ার বিষয়টি বার্তা২৪.কমকে নিশ্চিত করেছেন পিয়াস। এসএ পরিবহণ লক্ষ্মীপুর শাখা থেকে তাকে ওই টাকা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর এসএ পরিবহণ কার্যালয় থেকে জানা গেছে, ঘড়ির বদলে পেঁয়াজ পেয়ে যুবক প্রতারণার শিকার হওয়া নিয়ে সংবাদ প্রকাশ ও থানায় সাধারণ ডায়েরি করায় বিক্রেতারা টাকাটি নেয়নি। ঘটনার পর তাদের নাম্বারও বন্ধ ছিল। পরে বিক্রেতারা এসএ পরিবহণের মূল শাখায় ফোন দিয়ে ওই ক্রেতাকে টাকাটি ফেরত দেওয়ার জন্য বলে। সন্ধ্যায় ভূক্তভোগী ক্রেতা পিয়াসকে ১ হাজার ৮০০ টাকা বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। পিয়াস সরকার বলেন, সংবাদ প্রকাশ হওয়াতেই আমি টাকা বুঝে পেয়েছি। এজন্য বার্তা২৪.কমসহ গণমাধ্যম কর্মীদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে এসএ পরিবহণের লক্ষ্মীপুর শাখা ব্যবস্থাপক নুরুল আলম বলেন, অনলাইন শপের আরিফা আক্তার নামে এক কর্মচারী আমাদের মূল শাখায় ফোন করে বলেছিল টাকাটি পিয়াসকে ফেরত দেওয়ার জন্য। আমরা তাকে টাকাটি ফেরত দিয়েছি।

পিয়াস লক্ষ্মীপুর পোরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড বাঞ্চানগর এলাকার জয়দেব সরকারের ছেলে ও স্কাই ইন্টারনেটের লক্ষ্মীপুর শাখার ব্যবসায়ী।

সোমবার (১ এপ্রিল) ‘স্মার্ট সপ ঢাকা’ নামক একটি অনলাইন পেজ থেকে পিয়াস একটি স্মার্ট ঘড়ি অর্ডার করেন। ঘড়িটির দাম ১ হাজার ৮০০ টাকা। এটি পেতে ৬০ টাকা এসএ পরিবহণকে বাড়তি বিল দিতে হবে বলে ওই অনলাইনে থেকে জানানো হয়েছে। পরে মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এসএ পরিবহণ লক্ষ্মীপুর শাখা থেকে ১ হাজার ৮৬০ টাকা দিয়ে তার নামে আসা ঘড়ির প্যাকেটটি গ্রহণ করেন। কিন্তু প্যাকেটে থাকা বক্সটি খুলে দেখতে পান ‘সেখানে ঘড়ি নেই, আছে দুইটি পেঁয়াজ’।

আপনার মতামত লিখুন :

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির সাবেক ৭ এমডির বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির সাবেক ৭ এমডির বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট
বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি

বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিঃ এর সাবেক সাতজন ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ ২৩ জন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ২৪৩ কোটি ২৮ লাখ ৮২ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চার্জশিট  দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার (২১ জুলাই) দিনাজপুরের দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় থেকে এ চার্জশিট দেওয়া হয়েছে।

চাজশিটভুক্ত আসামিদের মধ্যে সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচলকরা হলেন মোঃ মাহবুবুর রহমান, মোঃ আব্দুল আজিজ খান, প্রকৌশল খুরশীদুল হাসান, প্রকৌঃ কামরুজ্জামান, মোঃ আমিনুজ্জামান, প্রকৌঃ এস.এম.নুরুল আওরঙ্গজেব, মাইন অপারেশন বিভাগ প্রকৌঃ হাবিব উদ্দিন আহাম্মদ, সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচলক (প্রশাসন)  মো: শরিফুল আলম,   সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচলক (প্রশাসন) মো: আবুল কাসেম প্রধানীয়া।

এছাড়া অন্যান্যরা হলেন, মাইন অপারেশন বিভাগের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু তাহের মোঃ নুর-উজ-জামান চৌধুরী,  নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা পরিচালক  মাসুদুর রহমান হাওলাদার, ব্যবস্থাপক (মেন্টেনেন্স এন্ড অপারেশন) মো: আরিফুর রহমান,      ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা শাখা) সৈয়দ ইমান হাসান, উপ-ব্যবস্থাপক (কোল হ্যান্ডলিং ম্যানেজমেন্ট)  মুহাম্মদ খলিলুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপক (মেন্টেনেন্স এন্ড অপারেশন)  মো: মোর্শেদুজ্জামান,উপ-ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) মো: হাবিবুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপক (মাইন ডেভেলপমেন্ট) মো: জাহেদুর রহমান, সহকারী ব্যবস্থাপক (ভেন্টিলেশন ম্যানেজমেন্ট) সত্যেন্দ্র নাথ বর্মন, সহকারী ব্যবস্থাপক (পি.এম) মোঃ মনিরুজ্জামান, ব্যবস্থাপক (কোন হ্যান্ডেলিং ম্যানেজমেন্ট, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেড) মোঃ শোয়েবুর রহমান,  (২১) উপ-মহাব্যবস্থাপক (স্টোর ডিপার্টমেন্ট)  এ.কে.এম খালেদুল ইসলাম, ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) অশোক কুমার হালদার, উপ-মহাব্যবস্থাপক (মাইন প্ল্যানিং এন্ড ডেভেলপমেন্ট) মোঃ জোবায়ের আলী।

দুদক জানায়, এদের মধ্যে এজাহার ভূক্ত আসামি  ১৪ জন এবং তদন্তে আরো যুক্ত হয়েছে ৯ জন।

এদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, পরস্পর যোগসাজশে জানুয়ারি, ২০০৬ ইং মাস হতে ১৯/৭/২০১৮ খ্রি: মেয়াদে ঘাটতিকৃত এক লাখ ৪৩ হাজার ৭২৭ দশমিক ৯২ মে.টন কয়লা; যার বাজার মূল্য ২৪৩ কোটি ২৮ লাখ ৮২ হাজার ৫০১ দশমিক ৮৪ টাকা আত্মসাৎ করেছে।

দুদক জানায়,  দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ এবং ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ এবং এর ফলে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে।

এদিকে তদন্তে ৫ অভিযুক্তকে অব্যাহতি দিয়েছে দুদক। এরা  হলেন এজাহারভূক্ত আসামি ব্যবস্থাপক (এক্সপ্লোরেশন) মো: মোশারফ হোসেন সরকার, ব্যবস্থাপক (ডিজাইন, কনস্ট্রাকশন এন্ড মেন্টেনেন্স) জাহিদুল ইসলাম, উপ-ব্যবস্থাপক (সেইফটি ম্যানেজমেন্ট) মো: একরামুল হক, সাবেক মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব) মো: আব্দুল মান্নান পাটওয়ারী, মহাব্যবস্থাপক (অর্থ ও হিসাব, চ.দা.) গোপাল চন্দ্র সাহা।

জানা যায়, বিসিএমসি এর ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মোহাম্মদ আনিছুর রহমান বাদী হয়ে দিনাজপুরের পার্বতীপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।  এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন দুদকের প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক মোঃ সামছুল আলম।

ভালুকায় অজ্ঞাত মরদেহ উদ্ধার

ভালুকায় অজ্ঞাত মরদেহ উদ্ধার
প্রতীকী ছবি

ময়মনসিংহের ভালুকায় একটি খাল থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের (৩৫) গলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার (২১ জুলাই) দুপুরে উপজেলার খীরু নদীর ভান্ডাব এলাকার রুপির খাল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'রুপির খালে একটি মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে বস্ত্রহীন অবস্থায় ওই ব্যক্তির গলিত মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।'

তিনি আরও জানান, 'মরদেহটির মাথা, কপাল, চোখ ও গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ৪-৫ দিন আগে দুর্বৃত্তরা ওই ব্যক্তিকে হত্যার পর মরদেহটি খালে ফেলে যায় বলে ধারণা করা হচ্ছে।' 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র