Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

মূলধন বৃদ্ধির সুযোগ রেখে সংসদে বীমা কর্পোরেশন বিল

মূলধন বৃদ্ধির সুযোগ রেখে সংসদে বীমা কর্পোরেশন বিল
জাতীয় সংসদ অধিবেশন, ফাইল ছবি
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জীবন বীমা ও সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের অনুমোদিত ও পরিশোধিত মূলধন বৃদ্ধিসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়ে বিধানের প্রস্তাব করে সময়োপযোগী আইন প্রণয়নে জাতীয় সংসদে ‘বীমা কর্পোরেশন বিল-২০১৯’ উত্থাপন করা হয়েছে।

বুধবার (৬ মার্চ) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বিলটি উত্থাপন করেন। পরে তা অধিকতর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়। বিলটি যাচাই-বাছাই শেষে কমিটিকে ৩০ দিনের মধ্যে সংসদে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

বিলটি উত্থাপনের বিরোধীতা করেন বিরোধী দলের জাতীয় পার্টির সদস্য মো. ফখরুল ইমাম। তবে তার আপত্তি কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। এ সময় অর্থমন্ত্রী সংসদে জানান, বীমা কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনায় সুশাসন আনায়ন ও কর্পোরেশনের বোর্ড সদস্যদের পেশাদারিত্ব আনয়নসহ সময়োপযোগী আইন প্রণয়নে এই বিলটি আনা হয়েছে। যেখানে বিদ্যমান বীমা কর্পোরেশন আইন-১৯৭৩ রহিত করে এই আইনের অধীনে প্রতিষ্ঠিত জীবন বীমা ও সাধারণ বীমা কর্পোরেশন বহাল রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে।

সংসদে উত্থাপিত বিলে জীবন বীমা কর্পোরেশনের অনুমোদিত ও পরিশোধিত মূলধন যথাক্রমে ৩০০ কোটি এবং ৩০ কোটি টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। পাশাপাশি সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের অনুমোদিত ও পরিশোধিত মূলধন যথাক্রমে ৫০০ কোটি ও ১২৫ কোটি টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আর বীমা কর্পোরেশন পরিচালনার জন্য সরকার মনোনীত একজনকে চেয়ারম্যান করে ১০ সদস্যের পরিচালনা বোর্ড গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

ওই বিলে কর্পোরেশনের ক্ষমতা ও কার্যাবলী, কর্পোরেশনের সাধারণ নির্দেশনা, পরিচালনা বোর্ডের সভা, বোর্ড বাতিল, ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগ, বিনিয়োগ, পুনঃবীমা, কর্পোরেশনের অবসায়ন, ঋণ গ্রহণ ও অনুদান প্রদানের ক্ষমতা, কমিটি গঠন, কর্মচারী নিয়োগ, হিসাব পরিচালনা, হিসাবরক্ষণ ও নিরীক্ষাসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।

বিলে সরকারি সম্পত্তি বীমাকরণ সম্পর্কে বলা হয়েছে, সরকারি সম্পত্তি বা সংশ্লিষ্ট ঝুঁকি বা দায় সম্পর্কিত সব নন লাইফ বীমা ব্যবসা একশ ভাগ সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের নামে আন্ডার রাইট হবে। তবে সাধারণ বীমা নিজের জন্য পঞ্চাশ ভাগ অংশ রেখে বাকি ৫০ ভাগ বেসরকারি নন-লাইফ বীমা কোম্পানির মধ্যে সমহারে বণ্টন করে দেওয়ার বিধান রাখা হয়েছে। এছাড়া বিলে বিনা জামানতে বাণিজ্যিক ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়ার বিধান রাখা হয়েছে।

বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ১৯৭৩ সালের আইন জীবন বীমা কর্পোরেশন ও সাধারণ বীমা কর্পোরেশন, উভয় কর্পোরেশনের অনুমোদিত মূলধন ছিল মাত্র ২০ কোটি টাকা, যা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই অপ্রতুল। এজন্য অনুমোদিত ও পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া উক্ত আইনে সরকারি সম্পত্তি সম্পর্কিত ৫০ ভাগের বীমা বাধ্যতামূলকভাবে সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের কাছে এবং অবশিষ্ট ৫০ ভাগ সাধারণ বীমা বা অন্য বেসরকারি কোম্পানির কাছে হস্তান্তরের বিধান ছিল। নতুন আইনে তা শতভাগ সাধারণ বীমার নামে অবলিখন করে পরে পঞ্চাশ ভাগ বেসরকারি খাতে সমহারে বণ্টনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

এইচএসসি’র ফলাফলে রাজশাহী মহিলা কলেজের চমক

এইচএসসি’র ফলাফলে রাজশাহী মহিলা কলেজের চমক
রাজশাহী সরকারি কলেজ/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজে এইচএসসির ফলাফলে চলতি বছর জিপিএ-৫ পাওয়ার হারে শিক্ষার্থীরা চমক দেখিয়েছে। এ বছর কলেজটির বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৮২ জন। অথচ গত বছর কলেজটি থেকে মাত্র ১০ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছিল।

শিক্ষাবোর্ড সূত্র জানায়, সরকারি মহিলা কলেজ থেকে এবার ১ হাজার ৩৮৫ জন পরীক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে পাস করেছে ১ হাজার ৩১৭ জন। পাসের হার ৯৫ দশমিক ০৯ শতাংশ।

এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাস করেছে ৬১৪ জন। ফেল করেছে ২৭ জন। মানবিকে পাস ও ফেলের সংখ্যা যথাক্রমে ৪৩০ ও ৩৯। আর ব্যবসা শিক্ষা বিভাগে পাস-ফেল যথাক্রমে ২৭৩ ও ২১ জন। এ বছর জিপিএ-৫ পাওয়া ১৮২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৫৯ জন বিজ্ঞান, ২১ জন মানবিক ও দুইজন ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী।

গত বছর শুধু বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগ থেকে পাঁচজন করে মোট ১০ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছিল। সে বছর ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের কেউ জিপিএ-৫ অর্জন করতে পারেনি।

এর আগে ২০১৭ সালে কলেজটি থেকে ৭০ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পায়। ২০১৬ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৭৭ জন। আর ২০১৫ সালে পেয়েছিল ৫৫ জন। এ বছর জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দা নীলুফার ফেরদৌস এই ফলাফলে ভীষণ খুশি। তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘আমাদের এবারের পাসের হার ৯৫ দশমিক ০৯ শতাংশ। এটা খারাপ না। জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যাও এবার অনেক বেড়েছে। তাই আমরা খুশি।’ অধ্যক্ষ আরও বলেন, ‘শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই ফলাফল অর্জন করা সম্ভব হয়েছে। ভবিষ্যতে যেন আরও ভাল করা যায় সেই চেষ্টাই থাকবে।‘

 

পঙ্গু হাসপাতালে দুদকের অভিযান

পঙ্গু হাসপাতালে দুদকের অভিযান
জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান

রাজধানীর শেরবাংলা নগরে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) রোগীদের হয়রানি ও অনিয়মের অভিযোগে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

হাসপাতালে দালালদের দৌরাত্ম্য ও সেবাপ্রাপ্তির জন্য রোগীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার (১৭ জুলাই) দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জাহিদ কালামের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযানের বিষয়টি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে নিশ্চিত করেছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য।

দুদক সূত্রে জানা যায়, দুদক টিম পরিচয় গোপন করে হাসপাতালের বিভিন্ন ইউনিট ঘুরে বেশ কিছু অনিয়ম দেখতে পায়। এ সময় বিভিন্ন সেবা দেওয়ার জন্য রোগীদের হয়রানি ও অধিক টাকা আদায়ের অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পায় দুদক টিম।

হাসপাতালে বহিরাগত এক ব্যক্তিকে কর্মরত অবস্থায় শনাক্ত করে তাকে হাসপাতাল পরিচালকের কাছে হস্তান্তর করে দুদক টিম। এ সময় হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক আব্দুল গনি মোল্লাকে হাসপাতালে সিসি টিভি ক্যামেরা স্থাপন, সার্ভিস কাউন্টার বাড়ানো, নিজস্ব ডিসপেনসারি চালু, হাসপাতালের সীমানা দৃঢ়করণসহ বেশ কিছু সুপারিশ করেছেন দুদক টিমের সদস্যরা।

বুধাবার নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে একজন প্রাক্তন রেলওয়ে কর্মচারী অবৈধভাবে রেলওয়ের জায়গা দখল করে রাখার অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক।

অভিযানে এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, বাচ্চু মিয়া ওরফে রেন্ট বাচ্চু নামে এক সাবেক রেল কর্মচারী নানাভাবে প্রভাব খাটিয়ে লিজ না নি‌য়ে বা নবায়ন না করে নরসিংদী স্টেশনের চারপাশের অনেক জায়গা দখল করেছেন। দুদক টিম এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করে।

এছাড়া দুদকের অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন ১০৬) বি‌ভিন্ন অভিযোগের বিষ‌য়ে পদক্ষেপ নি‌য়ে কমিশনকে জানা‌তে ১১ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে চি‌ঠি পা‌ঠি‌য়ে‌ছে দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র