Barta24

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ব্যাংকক-ঢাকা রুটে ‘যাত্রী শূন্য’ ড্রিমলাইনার

ব্যাংকক-ঢাকা রুটে ‘যাত্রী শূন্য’ ড্রিমলাইনার
যাত্রী শূন্য ড্রিমলাইনার
ইশতিয়াক হুসাইন
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

শুক্রবার, ফ্লাইট নম্বর বিজি ৮৯। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ঢাকা-ব্যাংকক রুট। উড়োজাহাজ ড্রিমলাইনার। ২৭১ আসনের এই উড়োজাহাজ ব্যাংকক থেকে ঢাকা উড়ে আসলো মাত্র ৫৬ জন যাত্রী নিয়ে।

বিশ্বের সর্বাধুনিক এ উড়োজাহাজটি যখন ব্যাংকক থেকে আকাশে উড়লো তখন পুরো ফ্লাইটি খাঁ খাঁ করছিলো। বিশাল এ উড়োজাহাজে মাত্র ৫৬ যাত্রীকে যেন খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। কেবিন ক্রুরাও যেন সামান্য সংখ্যক যাত্রীদের সেবা দিতে এসে কিছুটা অস্বস্তিতে ভুগছিলেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/11/1547227057832.jpg

আগস্টে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্সের যুক্ত হয় প্রথম ‘ড্রিমলাইনার আকাশবীনা’। ডিসেম্বরে যুক্ত হয় দ্বিতীয় ‘ড্রিমলাইনার হংসবলাকা’। বহরে যুক্ত হওয়ার পর থেকে এ দুটো উড়োজাহাজ দিয়ে সিঙ্গাপুর ও ব্যাংকক রুটের মতো দূরত্বে ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে বিমান। অথচ বিশেষজ্ঞদের মতে বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজটি এসব রুটের জন্য সবচেয়ে উপযোগী। কারণ এসবের আসন সংখ্যা ১৬০টি। পক্ষান্তরে ড্রিমলাইনারের আসন সংখ্যা ২৭১টি।

বিমান চলাচল বিশেষজ্ঞ কাজী ওয়াহিদুল আলম বার্তা২৪‘কে বলেন, বিমানের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের কোনো রুট প্লানিং না থাকায় যেখানে যে উড়োজাহাজ উপযুক্ত নয়, সেখানে সে সব উড়োজাহাজ দিয়ে যাত্রী পরিবহণ করা হচ্ছে। এতে বিমানের সম্পদের যেমন অপচয় হচ্ছে, তেমন আর্থিক ক্ষতিও হচ্ছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/11/1547227083650.jpg

এ প্রসঙ্গে বিমানের জেনারেল ম্যানেজার (পিআর) সাকিল মেরাজ বার্তা২৪‘কে বলেন, বৈমানিকদের ট্রেনিংয়ের অংশ হিসেবে এ দুটো রুটে ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ চালানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, ব্যাংকক একটি ট্যুরিজম স্পট। মানুষ আনন্দের ভ্রমণের উদ্দেশ্যে ব্যাংকক যান। তাই, একটু আরামদায়ক ভ্রমণের অভিজ্ঞতা দিতে এ রুটে ড্রিমলাইনার চলছে।  

আপনার মতামত লিখুন :

আঞ্চলিক আর্থসামাজিক উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করার প্রত্যয়

আঞ্চলিক আর্থসামাজিক উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করার প্রত্যয়
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি

 

আজ ২৫ জুন বিমসটেক (বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টি সেক্টর‍াল টেকনিক্যাল এ্যান্ড ইকোনমিক্যাল কোপারেশন) -এর ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী।বাংলাদেশ, ভূটান, ভারত,, মিয়ানমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ড এর মধ্যকার আঞ্চলিক সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বর্ণাঢ্য আয়োজনের  মধ্য দিয়ে পালনের  উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ উপলক্ষে সদস্যদেশগুলোর রাস্ট্র ও সরকারপ্রধানগণ পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। এতে আঞ্চলিক অখণ্ডতা, আর্থসামাজিক উন্নয়ন, সন্ত্রাস দমন, পরিবেশ রক্ষায় একযোগে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়েছে। ঢাকার গুলশানস্থ বিমসটেক সচিবালয় সন্ধ্যায় এক সংবর্ধনা ও নৈশভোজের আয়োজন করেছে। এতে সদস্য দেশগুলোর কূটনীতিকসহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন এমপি প্রধান অতিথি, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

দিবসটি উপলক্ষে প্র্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণীতে বলেছেন, বিগত ২২ বছরে বিমসটেক এর  উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। বিমসটেক এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য দেশ হিসেবে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নয়ন, জ্বালানি সহযোগিতা, সন্ত্রাস ও পরিবেশের বিরূপ প্রভাবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করে আসছে। ২০১৪ সালে ঢাকায় বিমসটেক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা বিমসটেক প্রক্রিয়ায় তার সরকারের একটি অঙ্গীকার বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দিবসটি উপলক্ষে এক বাণীতে বলেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিমসটেক সদস্য দেশগুলো আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধি, অর্থনৈতিক বন্ধন সুদৃঢ় করা এবং আঞ্চলিক নিরাপত্তা অর্জনে নিজ নিজ চেষ্টা জোরদার করেছে। তিনি বলেন, আমাদের পররাষ্ট্রনীতির অন্যতম অগ্রাধিকার হচ্ছে ‘প্রতিবেশী প্রথম’, আর এই প্রক্রিয়ায় ভারতের কাছে বিমসটেক একটি প্রাকৃতিক প্লাটফর্ম।

এ উপলক্ষে নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা, শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, ভূটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে সেরিং, মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সূচি শুভেচ্ছা বানী দিয়েছেন। পৃথক পৃথক বাণীতে তারা বিমসটেকের সাফল্য কামনা করেন এবং এর সদস্যভুক্ত ৮টি দেশের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

বিমসটেক সেক্রেটারি জেনারেল এ্যাম্বাসাডর এম শহিদুল ইসলাম বলেছেন, ৬ জুন ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর বিগত দুই দশকে বিমসটেক এ অঞ্চলের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে উল্লেখযোগ্য পরিপক্কতা দেখিয়েছে।

১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণাপত্র গ্রহণের মাধ্যমে বিমসটেক-এর যাত্রা শুরু হয়। প্রতি বছর ৬ জুন বিমসটেক দিবস পালন করা হয়। এ বছর এ অঞ্চলে একইসময় ঈদের দীর্ঘ ছুটির কারণে আজ ২৫ জুন বিমসটেক দিবস পালিত হচ্ছে।

পাই‌রে‌সির দায়ে বইয়ের পাঁচ দোকানকে জ‌রিমানা, সাম‌য়িক বন্ধ

পাই‌রে‌সির দায়ে বইয়ের পাঁচ দোকানকে জ‌রিমানা, সাম‌য়িক বন্ধ
ছবি: সংগৃহীত

বই পাইরে‌সি করে বে‌শি দামে বি‌ক্রি করায় বই বিচিত্রা ও ওয়ার্ল্ড বিচিত্রাসহ বইয়ের পাঁচ দোকানকে জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। মঙ্গলবার (২৫ জুন) রাজধানীর কলাবাগা‌ন এলাকায় অধিদফতরের একটি দল অভিযান চালিয়ে এই অর্থদণ্ড দেয়। একই স‌ঙ্গে প্রতিষ্ঠানগু‌লো‌কে সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হয়।

প্রতিষ্ঠানগু‌লোর ম‌ধ্যে ওয়ার্ল্ড বিচিত্রাকে ২৫ হাজার টাকা, বই বিচিত্রা-১ কে ৫০ হাজার টাকা, বই বিচিত্রা-২ কে ৫০ হাজার টাকা, জ্ঞান বিচিত্রাকে ৫০ হাজার টাকা এবং বিশ্ব বিচিত্রাকে ২৫ হাজার টাকাসহ মোট দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বার্তা২৪.কমকে বলেন, মঙ্গলবার কলাবাগা‌ন এলাকার বি‌ভিন্ন বইয়ের দোকা‌নে অভিযান চালিয়েছি। এসব দোকানে বি‌দে‌শি বই পাই‌রে‌সি ক‌রে বি‌ক্রি করছে। বিদেশি লেখকের পাইরেসি করা ফটোক‌পি বই অনেক ক্ষে‌ত্রে আসল বইয়ের চেয়ে নকল বই বে‌শি দামে বি‌ক্রি করছে। এসব অভিযোগে পাঁচ‌টি দোকানকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই স‌ঙ্গে প্রতিষ্ঠানগু‌লো‌কে সাময়িক বন্ধ করা হয়েছে। তা‌দের বুধবার (২৬ জুন) সকালে অধিদফতরে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আন‌তে বলা হ‌য়ে‌ছে। যথাযথ কাগজ উপস্থাপন কর‌তে ব্যর্থ হ‌লে দোকানগুলো স্থায়ীভা‌বে বন্ধ ক‌রে দেওয়া হ‌বে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র