Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

সিঙ্গাপুরের পর ধাপে ধাপে ভোটার হবেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা

সিঙ্গাপুরের পর ধাপে ধাপে ভোটার হবেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা
ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

সিঙ্গাপুর ও দুবাইয়ের পর ধাপে ধাপে ভোটার হতে পারবেন অন্যান্য দেশে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এক্ষেত্রে বিদেশে গিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটার করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

আগামী এপ্রিলে পরীক্ষামূলকভাবে (পাইলটিং) সিঙ্গাপুরে যেসব বাংলাদেশি থাকেন তাদেরকে ভোটার করা হবে। এরপর দুবাইয়ে ভোটার করার কার্যক্রম শুরু হবে। কমিশন বলছে, ধাপে ধাপে অন্য দেশগুলোর প্রবাসীদেরও ভোটার করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

কমিশন সূত্রে জানা গেছে, প্রবাসীদের ভোটার করার উদ্যোগটি বেশ আগে থেকেই নিয়েছিল ইসি। গত বছর এ বিষয়ে পরামর্শ নিতে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনও করা হয়।

সম্মেলন থেকে কমিশন বেশকিছু সুপারিশ পেয়েছে। তার প্রেক্ষিতে প্রবাসীদের ভোটার করার ব্যাপারে কার্যক্রম শুরু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়। তবে যেহেতু এরমধ্যে সংসদ নির্বাচন ছিল, তাই কমিশন সেই কার্যক্রমটি স্থগিত করে।

এখন পুনরায় এই কার্যক্রম শুরু করতে চায় কমিশন। ইতোমধ্যে সিঙ্গাপুরে যেসব বাংলাদেশি থাকেন পরীক্ষামূলকভাবে (পাইলটিং) তাদেরকে ভোটার করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। সেখানে সফলতা পাওয়া গেলে পরবর্তীতে অন্যান্য দেশে গিয়ে বাংলাদেশিদের ভোটার করা হবে।

এ বিষয়ে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘প্রবাসীদের ভোটার করার একটি উদ্যোগ আমাদের আছে। যেহেতু সংসদ নির্বাচন ছিল তাই আমরা সেই কার্যক্রমটি স্থগিত করেছিলাম। নির্বাচন শেষ হয়েছে, তাই একটি পরিকল্পনা আছে।

‘সিঙ্গাপুর যেহেতু আমাদের কাছের দেশ, সেখানে আমাদের প্রায় লক্ষাধিক প্রবাসী রয়েছেন। যারা শ্রমিক হিসেবে কর্মরত। সেটাকে পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে গ্রহণ করে তাদেরকে ভোটার করার ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘ইসির একটি টিম সিঙ্গাপুরে যাবে। ওখানে বিভিন্ন স্টেকহোল্ডার যারা আছেন তাদের সঙ্গে কথা বলবেন। বিশেষ করে বাংলাদেশি যে অ্যাম্বাসি আছে, ফরেন মিনিষ্ট্রি, লেবার উইং, ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট, বাংলাদেশি কমিউনিটির যারা নেতৃবৃন্দ আছেন, তাদের সঙ্গে মতবিনিময় ও সেমিনার হবে।’

‘তাদের মতামতের উপর ভিত্তি করে কারিগরি টিম পাঠানো হবে। যারা ভোটার হননি, জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার মাধ্যমে তাদেরকে ভোটার করব। আশা করছি এপ্রিলে সিঙ্গাপুরের কার্যক্রম শুরু করতে পারব। এটি সফলভাবে সম্পন্ন হলে দুবাইয়ের কার্যক্রম শুরু হবে।’

জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে দেশের উচ্চ আদালত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটাধিকার সংবিধান স্বীকৃত বলে ঘোষণা দেয়। দীর্ঘ ২০ বছরেও সেই ঘোষণা বাস্তবায়ন হয়নি। বিশ্বের ১৫৭টি দেশে কোটির উপরে প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন।

ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের পরিকল্পনা অনুযায়ী, সারাবিশ্বের বাঙালি অধ্যুষিত ১৫৭টি রাষ্ট্রের মধ্যে জনবহুল তিনটি দেশ অর্থাৎ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মালয়েশিয়ায় দ্বিতীয় ধাপের ভোটার করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। প্রথমধাপে সিঙ্গাপুর, দুবাই, কাতার, বাহরাইনের প্রবাসীদের ভোটার করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

‘আমাকে ফাইন করুন’

‘আমাকে ফাইন করুন’
মহাখালী বাস টার্মিনাল পরিদর্শনে মেয়র আতিকুল ইসলাম

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘আমার সিটি করপোরেশনের কোথাও যদি পানি জমে থাকে, মিডিয়াতে যদি নিউজ আসে তাহলে দায়িত্বশীল কর্মকর্তাকে ফাইন করার নির্দেশ দিয়েছি, ওই কর্মকর্তাকে শাস্তির নির্দেশ দিয়েছি। আর যদি আমার অপরাধ থাকে আমাকে ফাইন করুন, আমি আইনের ঊর্ধ্বে নই।’

সোমবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে মহাখালী বাস টার্মিনাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন মেয়র। এসময় স্থানীয় কাউন্সিলর মফিজুর রহমান, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কীটতত্ব বিভাগের অধ্যাপক কবিরুল বাশার, অঞ্চল-৩ এর নির্বাহী কর্মকর্তা মো. হেমায়েত হোসেন, ডিএসসিসি’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার, মহিলা কাউন্সিলর আলেয়া সারোয়ার ডেইজী ও শ্রমিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র বলেন,  আমরা প্রতিটি বাড়িতে চিরুনি অভিযান শুরু করছি। আমি বলেছি আমি আর আমার অফিস করতে চাই না। আমার গাড়িতেই আমি অফিস করব। এই কয়েক দিন গাড়িতেই অফিস করব।

তিনি বলেন, যেখানে জমা পানি, স্বচ্ছ পানি সেখানেই এডিস মশার জন্ম নেবে। রোদ হচ্ছে, বৃষ্টি হচ্ছে এডিস মশা হবেই। তাই সবাইকে দায়িত্ব নিতে হবে। যার যার এলাকা নিজ দায়িত্বে পরিষ্কার রাখতে হবে।

গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আমার সিটি করপোরেশনে পানি জমে আছে, আমি ম্যাজিস্ট্রেটকে বলেছি, “যদি আমার সিটি করপোরেশনের কোথাও পানি জমে থাকে, যদি কোন নিউজ জানতে পারি। সিটি করপোরেশনের যে দায়িত্বে তাকেই জরিমানা করতে বলেছি। তাকেও জেল দিতে বলেছি। দরকার পরলে মেয়রকেও ফাইন দিবা, জরিমানা দিবা। আমিও আইনের ঊর্ধ্বে নই। সিটি করপোরেশনের যদি কোনও কাজের অবহেলা থাকে তাহলে তার দায়িত্ব মেয়রকে নিতে হবে।’’

খুলনায় ৪ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় বাবা-ছেলে গ্র‌েফতার

খুলনায় ৪ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় বাবা-ছেলে গ্র‌েফতার
টাকা আত্মসাতের মামলায় গ্র‌েফতারকৃত বাবা-ছেলে, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

খুলনায় ব্যবসার চার কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় বাবা ও ছেলেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

সোমবার (১৯ আগস্ট) দুপুর‌ে নগরীর শেরে বাংলা রোডের নিজ বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এর আগে গত ১৫ আগস্ট চার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বাবা ও দুই ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেন ব্যবসায়ী এম এ মাজেদ সরকার। গ্রেফতার হওয়া দু'জন হলেন মামলার প্রধান আসামি মাহমুদুর রহমান ও তার বাবা আবদুল কাদের। মামলার অপর আসামি মাহমুদুরের ভাই আরিফুর ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

সিআইডির এসআই মধুসুধন বর্মণ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'বাদী ও আসামিরা ২০১০ সাল থেকে অংশীদারি ব্যবসা শুরু করেন। তারা যৌথ হিসেবে লেনদেন করতেন। ৪/৫ মাস আগে আসামিরা ব্যাংক থেকে সব টাকা তুলে নিয়ে বাদীকে বের করে দেন। এরপরে বাদী নগরীর সোনাডাঙ্গা থানায় মামলা দায়ের করেন।

তিনি জানান, আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র